মেছতা (মুখে কালো দাগ) দূর করার ঘরোয়া উপায় – Remove Black Spots On Face

মেছতা অর্থাৎ মুখে কালো দাগ একটি সৌন্দর্য বিনষ্টকারী সমস্যা, মুখে মেছতা পড়লে চেহারার সৌন্দর্য নষ্ট হয়। এটা দূর করতে অনেক ঔষধ বা ট্রিটমেন্ট করিয়ে থাকি আমরা, যার রয়েছে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া।

অনেকেই মেছতাকে স্থায়ী চর্মরোগ বলে মনে করেন, এবং ভাবেন যে একবার মেছতা হলে তা আর ভাল হয়না, কিন্তু এটা সম্পূর্ন ভ্রান্ত একটি ধারণা। নিয়মিত ঔষধ সেবন বা ঘরোয়া উপাদান দিয়ে যত্ন নিলে মেছতা সম্পূর্ণরূপে ভাল হয়ে যায়।

Home Remedies For Remove Black Spots On Face
Home Remedies For Remove Black Spots On Face

এজন্য বেছে নিতে পারেন ঘরোয়া উপাদান, যা ব্যবহার করতে কোন অর্থ প্রয়োজন নেই এবং এটা মেছতা (মুখে কালো দাগ) দূর করতে কার্যকর ভূমিকা রাখবে।

কিন্তু অনেকেই এটা জানেন না যে, ঠিক কোন কোন উপাদান ব্যবহার করলে মেছতা ভাল হয়, অনেক সময় বাজারের ক্রিম বা অয়েনমেন্টে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দেয়, তাই সমস্যা খুব গভীর না হলে ঘরোয়া উপাদান ব্যবহার করার পরামর্শ রইল।

সুপ্রিয় পাঠক আমাদের আজকের আয়োজন সাজানো হয়েছে ঘরোয়া কিছু উপাদান দিয়ে কিভাবে মেছতা দূর করবেন এই সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা দিয়ে। চলুন মূল আলোচনায় যাওয়া যাক।

১. কলার খোসা ব্যবহার করুন

মেছতা দুর করার জন্য বেছে নিতে পারেন ঘরোয়া উপাদান, যা ব্যবহার করতে কোন অর্থ প্রয়োজন নেই এবং এটা মেছতা দূর করতে কার্যকর ভূমিকা রাখবে।

মেছতা (মুখে কালো দাগ) দূর করতে ব্যবহার করতে পারেন কলার খোসা, কলার খোসাতে রয়েছে গ্লুকোনোল্যাক্টোন যা ত্বক ভেতর থেকে ফর্সা করে ও বয়সের ছাপ দূর করে।

কলার খোসার ভেতরের দিক ত্বকে যেখানে মেছতা হয়েছে সেখানে ৩-৫ মিনিট ঘসে নিন, এরপর ৫-৭ মিনিট এভাবে রেখে অপেক্ষা করুন।

তারপর পরিষ্কার জল দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন। কলার খোসা যদি শুধুমাত্র মেছতার জায়গায় ব্যবহার করেন তাহলে রোজই এই উপায়টি অনুসরণ করতে পারেন।

২. বাদাম তেল

বাদামে রয়েছে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন ই ও প্রাকৃতিক ব্লিচিং উপাদান যা ত্বকে বয়সের ছাপ পড়া রোধ করে, ত্বককে ভিতর থেকে মময়েশ্চারাইজড করে।

ত্বকের মেছতা দূর করতে বাদাম তেল খুবই কার্যকর। বাদাম তেল বা আমন্ড অয়েল হালকা গরম করে দুই হাতের তালুতে নিয়ে ঘষে নিন, এরপর হালকা হাতে মেছতার স্থানে লাগান।

১-২ ঘন্টা রেখে কুসুম গরম জলে মুখ ধুয়ে নিন। যদি রাতে ভিটামিন ই ক্যাপ এর সাথে লাগান তাহলে সকালে উঠে মুখ ধুয়ে নিতে পারেন। সপ্তাহে এই টিপসটি ৩ দিন অনুসরণ করতে পারেন।

৩. অলিভ অয়েল

অলিভ অয়েলে প্রচুর ভিটামিন ই রয়েছে যা ত্বকের তারুণ্য ও উজ্জ্বলতা ধরে রাখে। মেছতা দূর করতে অলিভ অয়েল নিয়মিত ব্যবহার করতে পারেন।

এরজন্য অলিভ অয়েল সামান্য গরম করে হাতের তালুতে ঘষে ত্বকের সহনশীল তাপমাত্রা পরীক্ষা করে নিন। তারপর মেছতার স্থানে হাত দিয়ে ম্যাসাজ করুন, ত্বকে তেল ভালভাবে শোষিত হয়ে গেলে এভাবে ২-৩ ঘন্টা রেখে দিন।

তারপর কুসুম গরম জল দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন। চাইলে রাতে ভিটামিন ই ক্যাপ মিক্স করেও লাগাতে পারেন, সেক্ষেত্রে সকালে উঠে মুখ ধুয়ে নিন। প্রতিদিন ১-২ বার মেছতার স্থানে অলিভ অয়েল ব্যবহার করতে পারেন।

৪. নিয়মিত স্ক্রাবিং করুন

ত্বকে যদি মৃতকোষ এবং ময়লা জমে যায় তখন তা মেছতার সৃষ্টি করতে পারে। এজন্য ত্বকের ডেড সেলস এবং ময়লা পরিষ্কার করা জরুরী।

এজন্য সপ্তাহে নিয়মিত ৩ দিন যেকোন ভাল ব্র‍্যান্ডের স্ক্রাবার দিয়ে স্ক্রাবিং করুন। বাজারে প্রচলিত স্ক্রাবার ব্যবহার করতে না চাইলে চালের গুড়া ও দুধ মিশিয়ে স্ক্রাবার বানিয়ে ব্যবহার করতে পারেন।

এতে ত্বকের উপরের ডেড সেলস ও মেছতার কালো ছোপছোপ দাগ দূর হয়ে যাবে।

৫. টকদইয়ের প্যাক

টকদইয়ে রয়েছে ল্যাক্টিক এসিড এবং সবরকম কালোদাগ দূর করার ক্ষমতা। মেছতা দূর করার ঘরোয়া উপায় হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন টকদইয়ের প্যাক।

এই প্যাকটি বানাতে প্রয়োজন হবে দুই টেবিল চামচ টকদই, এক টেবিল চামচ লেবুর রস, ও এক টেবিল চামচ মধু, এগুলো একসাথে মিশিয়ে মিশ্রন তৈরি করুন, তারপর মেছতার স্থানে লাগিয়ে রাখুন, চাইলে পুরো মুখে উপটান হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন।

প্যাকটি লাগিয়ে ২০ মিনিট রাখুন, তারপর পরিষ্কার ঠান্ডা জল দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন। এই প্যাকটি সপ্তাহে নিয়মিত ৩ দিন ব্যবহার করলে খুব দ্রুত মেছতা দূর হয়ে ত্বক উজ্জ্বল ও মসৃণ হয়ে উঠবে।

৬. টমেটোর ফেসপ্যাক

টমেটোতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন সি ও এন্টি অক্সিডেন্ট, সাথে এটা খুব কার্যকর প্রাকৃতিক ব্লিচ, যা ত্বকের রঙের অসামঞ্জস্য ও কালোদাগ দূর করে।

টমেটোর প্যাক তৈরি করতে প্রয়োজন হবে একটি পাকা টমেটোর রস,ও দুই টেবিল চামচ মধু একসাথে মিশিয়ে নিন, তারপর মুখের যে স্থানে মেছতা আছে সে স্থানে লাগিয়ে রাখুন ১৫ মিনিট।

তারপর ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। প্যাকটি ত্বকের মেছতার দাগ দূর করে ত্বক দাগহীন ও উজ্জ্বল করে তুলবে। সবচেয়ে ভাল ফল পেতে সপ্তাহে ২-৩ দিন ব্যবহার করতে পারেন।

আরও কিছু

মেছতা আমাদের ত্বকের সৌন্দর্য নষ্ট করে দেয়, এরজন্য বয়স বেশী দেখায়, ত্বকের উজ্জ্বলতা হারিয়ে যায়। অনেকেই ভাবেন যে ত্বকে একবার মেছতা হলে তা আর ভাল হয়না, বা বারবার ফিরে আসে,,এটা ভুল ধারণা।

নিয়মিত যত্ন নিলে মেছতা ভাল হয় এবং আবার এই সমস্যায় পড়ার সম্ভাবনাও থাকেনা। ঘরোয়া উপাদান দিয়েই মেছতা ভাল করা সম্ভব।

তবে যদি খুব বেশী খারাপ অবস্থা ধারণ করে তবে স্কিন ও হেয়ার এক্সপার্ট ডক্টর দেখিয়ে সেই অনুযায়ী ঔষধ সেবন করতে হবে।

আশা করি আজকের পোস্টটি ঘরোয়া উপায়ে মেছতা দূর করার ব্যাপারে আপনাদের সাহায্য করবে। পোস্টটির বিষয়ে কোন তথ্য জানানোর হলে বা কোন প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট সেকশনে কমেন্ট করুন।

আমরা অবশ্যই তথ্য জানিয়ে আপনাকে সাহায্য করার চেষ্টা করব। আজকের মত এখানেই শেষ করছি।

ধন্যবাদ সবাইকে।

Leave a Comment