দ্রুত ওজন বাড়াতে খান এই খাবারগুলি

শিরোনাম দেখে কি কিছুটা অবাক হচ্ছেন পাঠক? ভাবছেন এখন তো সবাই ওজন কমাতে চায়, ওজন বাড়ানো তো সহজ। শুধু খেলেই হয়। আসল কথা হচ্ছে, ওজন কমানো হয় তখন, যখন আপনার ওজন প্রয়োজনের চেয়ে বেশী।

কিন্তু যখন আপনার ওজন প্রয়োজনের তুলনায় কম থাকবে বা বিভিন্ন অসুখ বা অন্যান্য কারণে কমে যাবে, তখন সেটা দ্রুত বাড়াতে আপনাকে কার্যকর কিছু খাবার খেতে হবে। সব খাবারই দ্রুত ওজন বাড়ায় না। কিছু খাবার খেলে শরীরে পুষ্টি পাবেন, শরীর সুস্থ থাকবে, কিন্তু ওজন বাড়বে না। এজন্য খেয়াল রাখতে হবে, খাবার পুষ্টিকর হওয়ার পাশাপাশি ওজন বৃদ্ধিতে সহায়ক হতে হবে।

সুপ্রিয় পাঠক,  আজ আমাদের আলোচনার বিষয় হচ্ছে, কিভাবে দ্রুত ওজন বৃদ্ধি করা যায়, এরজন্য কোন কোন খাবারগুলো খাওয়া উচিত। চলুন দেরী না করে আলোচনা শুরু করা যাক।


দ্রুত ওজন বাড়াতে কার্যকর যেসব খাবার

১. ডিম

ডিম খুবই সহজলভ্য এবং সুস্বাদু খাবার। যেকোন বেলার খাবারই ডিম দিয়ে খাওয়া যায়। যদি খুব দ্রুত ওজন বাড়াতে চান তাহলে প্রতিদিন অন্তত দুইবেলা খাদ্যতালিকায় ডিম রাখুন।

ডিম আপনার শরীরে প্রোটিনের চাহিদা দ্রুত পূরণ করে মাংশপেশী গঠনে সাহায্য করবে। তাই নিয়মিত ডিম খান।

২. বাদামজাতীয় খাবার

বাদামে রয়েছে ভিটামিন ই, ওমেগা ফ্যাটি এসিড ও প্রচুর ক্যালরি রয়েছে বাদামে। প্রতিদিন বাদাম খেলে শরীরের ঘাটতি দ্রুত পূরণ হবে। শরীরে শক্তি পাবেন। এবং শরীরের ওজন খুব দ্রুত বাড়বে৷

বাদামে প্রচুর উদ্ভিজ্জ আশ রয়েছে যা শরীরের ঘাটতি পূরণ করে শরীর গঠন করবে। এছাড়া বাদাম খেলে ত্বক সুন্দর থাকে।

৩. আলু

শর্করা জাতীয় খাবারের মধ্যে আলু খুবই সহজলভ্য ও সহজপাচ্য। প্রতিদিনের খাবারের তালিকাতেই আলু থাকে। আলুতে রয়েছে পটাসিয়াম, কার্বোহাইড্রেট ও ভিটামিন। খুব দ্রুত ওজন বাড়াতে আলুর কোন তুলনা নেই।

হজমে সহায়তার জন্য আলু সেদ্ধ খেতে পারেন, জলখাবারে আলু ভাজা, বিকালে ফ্রেঞ্চ ফ্রাই, বা আলুর চিপস খেতে পারে। আলু যেমন পুষ্টিকর, তেমনি দ্রুত ওজন বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে।

৪. দুগ্ধজাতীয় খাবার

দ্রুত ওজন বাড়াতে চাইলে দুগ্ধজাতীয় খাবারের কোন বিকল্প নেই। মিষ্টি, দই, ছানা, চিজ, দুধ, পনিরে প্রচুর ক্যালসিয়াম, গ্লুকোজ, ভিটামিন ডি এবং ক্যালরি থাকে যা দ্রুত ওজন বাড়াতে সাহায্য করবে।

প্রতিদিন খাওয়ার পর দই বা মিষ্টি খেলে খাবার দ্রুত হজম হবে। তাই প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় দুধ বা দুধের তৈরি কোন খাবার রাখুন।

৫. ফাস্ট ফুড

যেকোন ধরনের ফাস্ট ফুড খুব দ্রুত ওজন বাড়াতে সাহায্য করে। তাই সপ্তাহে ২-৩ দিন বার্গার, পিজ্জা, চিকেন ফ্রাই, চিকেন শর্মা, কাবাব, নান এগুলো খাদ্যতালিকায় রাখতে পারেন।

কিন্তু যদি বাইরের রেস্টুরেন্ট থেকে খেতে সমস্যা হয়, তাহলে বাড়িতেই ইউটিউব দেখে ফাস্ট ফুডগুলো তৈরি করে নিতে পারেন। তাতে খাবার স্বাস্থ্যকরও হবে আর ওজনপ দ্রুত বাড়বে।

৬. ফল ও সবজী

ওজন কমাতেই বেশিরভাগ মানুষ ফল ও সবজী খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন। কিন্তু ফল খেলে যে শুধু ওজন কমে তাই নয়, ওজন বাড়েও। তবে সব ফলে নয়।

যেমন কলা খেলে ওজন বাড়ে, কিসমিস ও ড্রাই ফ্রুটসে প্রচুর প্রাকৃতিক চিনি ও ক্যালরি থাকে যা দ্রুত ওজন বাড়াতে সাহায্য করে। এছাড়া কুমড়া, ইচড়, মোচা, ইত্যাদি সবজি তেল দিয়ে রান্না করা হলে তাতে ওজন বাড়াতে সাহায্য করবে।

৭. মাংস

মাংসে প্রচুর প্রোটিন ও ক্যালসিয়াম থাকে যা ওজন বাড়াতে সাহায্য করে। তবে মাংস রান্না করতে হবে কম তেল দিয়ে এবং স্বাস্থ্যকর উপায়ে।

কারণ মাংস ওজন বাড়ালেও বেশী খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর।

৮.বিরিয়ানি

বিরিয়ানিতে যদিও তেল মসলার পরিমাণ অনেক বেশী। তবে মুখরোচক হিসাবে এবং দ্রুত ওজন বাড়াতে চাইলে সপ্তাহে ২-৩ দিন দুপুরের খাবারে বিরিয়ানি রাখতে পারেন।

এতে প্রচুর ফ্যাট, ক্যালসিয়াম, ওয়েল ও ক্যালরি রয়েছে যা দ্রুত ওজন বাড়াতে সাহায্য করে।

উপসংহার

সুপ্রিয় পাঠক, ওজন বেড়ে গেলে সেটা কমাতে যেমন খাদ্যতালিকায় পরিবর্তন আনা আবশ্যক, তেমনি ওজন কমে গেলে নিয়মিত জীবনযাত্রা ব্যহত হয় বিধায় তা দ্রুত বাড়িয়ে নেওয়ার জন্য খাবারে পরিবর্তন আনতে হবে।

সব ধরনের খাবারই শরীরের জন্য গুরুত্বপূর্ণ, কিন্তু ওজন বাড়াতে চাইলে উপরিউক্ত খাবারগুলোই আপনার জন্য বেশী প্রয়োজন। এখানে কিছু খাবার নিয়মিত খাওয়া শরীরের জন্য উপকারী নয়। তবে ওজন আগে সঠিক স্থানে আনার পর এইসব খাবারগুলো নিয়মিত না খেলেও চলবে।

আশা করি ওজন বাড়াতে কোন ধরনের খাবারগুলো খাওয়া প্রয়োজন সে সম্পর্কে ধারণা লাভ করেছেন এবং এই তথ্যগুলো ওজন বাড়াতে আপনাকে সাহায্য করবে।

এ বিষয়ে কোন মতামত বা প্রশ্ন থাকলে আমাদের কমেন্ট করতে পারেন। আমরা অবশ্যই তথ্য জানিয়ে আপনাকে সাহায্য করার চেষ্টা করব। আজকের মত এখানেই শেষ করছি। ধন্যবাদ সবাইকে।

Leave a Comment