অনলাইন আয়ের জন্য নতুন ৩টি দারুণ কাজ – 3 Amazing Jobs for Online Income

অনলাইন ইনকামের জন্য এমন ৩টি কাজ যা বাড়িতে বসেই করতে পারবেন এবং একটু একাগ্রতা দিয়ে কাজ করলে দারুণ ইনকাম করতে পারবেন।

3 Amazing Jobs for Online Income in Bangla | Online Income Guide and Tips in Bangla

প্রযুক্তির প্রসারণ ও সর্বক্ষেত্রে প্রযুক্তির সহজলভ্যতার যুগে এখন আমরা বাস করছি। প্রযুক্তি যে আমাদের অলস করে দিয়েছে কিংবা ইন্টারনেট ব্যবহার করে সময় নষ্ট করা শিখিয়েছে তাই নয়, প্রযুক্তি ব্যবহার করে আয়ের হাজারও দরজাও খুলে দিয়েছে।

এখন আর আয়ের উপায় হিসেবে টিউশন, বা অফিসে অফিসে ধর্ণা দেওয়া ছাড়াও যে আয় করা যায়, সেটাও আবার বাড়িতে বসেই, কোথাও যাওয়া ছাড়াই সেটা এখন মানুষ বিশ্বাস করতে শুরু করেছে এই প্রযুক্তি আর ইন্টারনেটের বদৌলতেই।

3 Amazing Jobs for Online Income in Bangla
3 Amazing Jobs for Online Income in Bangla

অনলাইন আয় বিষয়ে ইতোমধ্যেই আমাদের বেশ কিছু লেখা রয়েছে। আশা করি সেগুলো থেকে অনলাইন কাজ, আয়ের পরিমাণ, সময় এবং অন্যান্য বিষয় সম্পর্কে ধারণা পেয়েছেন।

আজ আমরা অনলাইন আয়ের ৩ টি কাজ সম্পর্কে জানব। যা করে আপনি পরিচিতি পাবেন, সাথে আয়ের পরিমাণও হবে বেশী। আশা করি বেকারত্ব ঘুচাতে এ বিষয়গুলো আপনাদের অনেক কাজে আসবে।

চলুন প্রিয় পাঠক, দেরী না করে মূল আলোচনায় যাওয়া যাক। অনলাইন আয়ের নতুন তিনটি কাজ সম্পর্কে জেনে নিন:

১. ব্র‍্যান্ড প্রোমোটার

ফেসবুক খুললেই এখন শুধু বিভিন্ন পণ্যের লাইভ দেখা যায়। সুন্দর বাচনভঙ্গী স্মার্ট ড্রেস আপে যাদের লাইভ আমাদের পছন্দ হয়, তাদের পেজ থেকেই পছন্দের পণ্য ক্রয় করে থাকি আমরা।

অনেক সময় তো পছন্দের প্রোমোটারের জন্যই শুধু ওই পেজ থেকেই জিনিস কিনি আমরা। বিষয়টা অনেকটা মিডিয়ার পছন্দের ব্যক্তিদের মতই।

আপনার যদি পণ্য সম্পর্কে ধারণা, সুন্দর করে গুছিয়ে কথা বলার দক্ষতা, বিনয়ের সাথে কমেন্ট হ্যান্ডেলের ধৈর্য, স্মার্টনেস, ড্রেস সেন্স থাকে তাহলে আপনি নিজের ব্যবসায়ের পন্যের অথবা অন্য কারো পণ্যের ব্র‍্যান্ড প্রোমোটার হিসেবে কাজ করতে পারেন।

পণ্যের লাইভে পণ্য সম্পর্কে বিস্তারিত জানানো, আকর্ষণীয় ভাবে উপস্থাপন, যাতে ক্রেতারা আকৃষ্ট হয়, ক্রেতাদের সাথে গল্পচ্ছলে লাইভ করা যাতে সম্ভাব্য ক্রেতাদের মনে হয়, তারা মার্কেটে গিয়ে সামনা সামনি পণ্য দেখছে, এভাবেই পণ্যের প্রচার, প্রসার ও বিক্রয় বাড়ানোর কাজকেই ব্র‍্যান্ড প্রোমোটিং বলে।

তো আপনি যদি ব্র‍্যান্ড প্রোমোটিং বিষয়ে ধারণা পেয়ে থাকেন আর মনে হয় যে, এটা আপনি করতে পারবেন, তাহলে কাজটি শুরু করতে পারেন।

এটা শুধু অর্থই নয় সম্মান ও পরিচিতিও বাড়াবে। যা থেকে পরবর্তীতে আরো বড় পরিসরে কাজ বা উদ্যোগ গ্রহণ করতে পারবেন। এ কাজে প্রতিষ্ঠান ভেদে আপনি অর্থ পাবেন।

৯০০০-২০০০০ হাজার পর্যন্ত মাসিক, অথবা আলোচনা সাপেক্ষে প্রতি লাইভের জন্য অর্থ পেতে পারেন।

২. পিডিএফ তৈরি

বই থেকে পিডিএফ ফাইল তৈরি করে আপলোড করেও ভাল টাকা আয় করা যায়। এরজন্য পিডিএফ কনভার্টার ডাউনলোড করে নিন, যা প্লে স্টোর থেকে ডাউনলোড করতে পারবেন।

এরপর যে বইটি পিডিএফ করতে চান, সে বইটার ছবি তুলে পিডিএফ কনভার্টার দিয়ে পিডএফ করে নিন।

যদি মার্কেটপ্লেস এ কাজ করেন তাহলে ক্লায়েন্ট এর হয়ে পিডিএফ কনভার্ট করতে পারেন, অথবা নিজে থেকেই বিভিন্ন ওয়েবসাইটে পিডিএফ ফাইল বানিয়ে আপলোড করতে পারেন।

এজন্য পিডিএফ পাওয়া যায় এমন সাইট গুগলে সার্চ করুন, সেখানে পিডিএফ আপলোড করা করুন, এখান থেকে অন্য কেউ পিডিএফ ডাউনলোড করলে আপনি টাকা পাবেন।

ওই সকল সাইটে যেসব অ্যাড দেওয়া আছে সেখান থেকে আয় করে সাইটগুলো আপনাকে টাকা পে করবে।

এক্ষেত্রে প্রতি ডাউনলোডে সাইট অনুযায়ী $1 থেকে $৫ পর্যন্ত পেতে পারেন। টাকা ওঠানোর মাধ্যম হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন paypal, pioneer, এগুলোর মাধ্যমে টাকা তুলতে পারবেন।

পিডিএফ ফাইলের চাহিদা বর্তমানে অনেক বেশী, কারণ সবার পক্ষেই বই কিনে পড়া সম্ভব হয়না, এজন্য তারা পিডিএফ সংগ্রহ করে থাকেন।

তাছাড়া বই সবখানে বহন করা সম্ভব নয়, সেখানে ফোনে ২০০ টা পিডিএফ অনায়াসে সংগ্রহ করে রাখা যায়।

৩. কপি পেস্ট জব

যারা অনলাইন আয়ের ক্ষেত্রে একেবারেই নতুন, অন্য কোন কাজ যেমন আর্টিকেল রাইটিং, ব্লগ, ডিজিটাল মার্কেটিং বা অন্যান্য কোন কাজে সেভাবে সাফল্য লাভ করতে পারেন নি, বা এখনো শেখেন নি, কিন্তু চাইছেন যে শুরু করতে তাদের জন্য কপি পেষ্ট জবটি অনেক ভাল হবে।

কারণ এখানে আপনাকে ইন্টারনেট, এম এস ওয়ার্ড, ইমেইল এর কাজ সম্পর্কে জানতে হবে।

প্রথমে কোম্পানি বা ক্লায়েন্টের চাহিদা অনুযায়ী ফাইল কপি করে এম এস ওয়ার্ডে পেস্ট করুন, এখানে কোম্পানি বা ক্লায়েন্টের চাহিদা অনুযায়ী বিভিন্ন পরিবর্তন, পরিবর্ধন সংযোজন করুন, এ কাজ করতে হলে টাইপিং এ ভাল হওয়া আবশ্যক, তারপর সেগুলো সেভ দিয়ে নাম পরিবর্তন করে দিন।

এরপর কোম্পানির চাহিদা অনুযায়ী ইমেইল বা অন্য মাধ্যমে সেন্ড করে দিন। ক্লায়েন্ট বা কোম্পানি ভেদে এখানে মাসিক ৫০০০- ৭০০০ টাকা আয় করা সম্ভব, যা শুরুর দিকে আপনার জন্য বেশ ভাল পরিমাণের অর্থ।

এভাবেই কাজ শিখে নিয়ে আরো ভাল ও এডভান্স লেভেলের কাজের জন্য জন্য নিজেকে প্রস্তুত করুন। কারণ এখানে কাজ জানলে কাজের কোন অভাব হবেনা।

কিন্তু যে কাজই করেন না কেন মন দিয়ে সততার সাথে কাজ করতে হবে। তাহলেই সাফল্য আসবে।

উপসংহার

অনলাইন আয়ের ক্ষেত্রে নতুন নতুন আয়ের ক্ষেত্র সৃষ্টি হচ্ছে। এখানে আপনি কাজ করতে চাইলে যেকোন ধরনের কাজ করেই অর্থ উপার্জন করতে পারেন।

তবে এডভান্স লেভেলের কাজ না শিখলে কাজগুলো হবে সাময়িক, এবং এ কাজগুলো থেকে খুব বেশী অর্থ আয় করতে পারবেন না। তবে হাত খরচ চালানো বা বিলাসিতা না করে চলার মত অর্থ আয় করতে পারবেন সহজেই।

অনলাইন আয় দিয়ে যদি ক্যারিয়ার শুরু করতে চান তাহলে ইন্টারনেটের কাজগুলো শেখা শুরু করুন, আর আয় করুন সফলভাবে।

কারণ যত অল্প আয়ই হোকনা কেন বাড়িতে বসে আয় করাটা আপনার জন্য সহজ ও সাথে অন্য কাজও করতে পারবেন সহজেই। তাই বসে না থেকে এই কাজগুলোর যেকোন একটি কাজ অনায়াসেই শুরু করতে পারেন।

আশা করি অনলাইন আয় শুরু করতে লেখাটি আপনাদের কাজে আসবে। আপনাদের বাড়িতে বসে সাবলম্বী হতে সাহায্য করাই আমাদের লেখার মূল উদ্দেশ্য।

এ বিষয়ে কোন মতামত থাকলে আমাদের কমেন্ট করতে পারেন। আমরা অবশ্যই তথ্য জানিয়ে আপনাকে সাহায্য করার চেষ্টা করব। আজকের মত এখানেই শেষ করছি। ধন্যবাদ সবাইকে।

Leave a Comment