SBI স্বেচ্ছাসেবী অবসর গ্রহণ প্রকল্প – SBI VRS Scheme যোগ্যতা এবং সুবিধা

আজ আমরা আপনাদের SBI স্বেচ্ছাসেবী অবসর গ্রহণ প্রকল্প – SBI VRS Scheme (SBI Voluntary Retirement Scheme in Bangla) সম্পর্কে বিস্তারিত জানাতে চলেছি। করোনা ভাইরাসের ধাক্কায় পুরো বিশ্বের অর্থনীতিই এক কঠিন সময় পার করছে।

এই সময়ে অনেক প্রতিষ্ঠানই তাদের খরচ কিভাবে কমানো যায় তা নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে। এই ঢেউ এসে লেগেছে ভারতের প্রতিষ্ঠান গুলিতেও।

ইতিমধ্যে ভারতের বৃহত্তম ব্যাংক State Bank of India (SBI) তাদের ব্যয় সংকোচনের জন্য কর্মীদের জন্য স্বেচ্ছায় অবসর প্রকল্প গ্রহন করেছে।

SBI VRS: Eligibility, Compensation and Benefit
SBI VRS: Eligibility, Compensation and Benefit in Bangla

এই ব্যপারে ব্যাংকটির “সেকেন্ড ইনিংস টযাপ ভিআরএস” নামে একটি নীতিমালা প্রণয়নের কাজ চলছে।

এতে করে এই প্রতিষ্ঠানের কর্মীরা সময়ের আগেই সম্মানের সাথে চাকরি ছাড়ার সুযোগ পাবে এবং সেই সাথে নীতিমালা অনুযায়ী নির্ধারিত টাকা পাবে।

আমাদের বাংলাভূমি সাইটে আপনাদের সাথে নিয়মিতভাবেই নানা প্রয়োজনীয় বিষয় নিয়ে আলোচনা করে থাকি।

এই সকল আলোচনা থেকে আপনারা নানা গুরুত্বপূর্ন বিষয় সম্পর্কে ধারণা পেয়ে থাকেন এবং জীবনের নানা জটিল সময়ে এই সকল তথ্য থেকে উপকৃত হয়ে থাকেন।

এরই ধারাবাহিকতায় আজ আমরা আপনাদের সাথে SBI স্বেচ্ছা অবসর গ্রহন প্রকল্প (SBI Voluntary Retirement Scheme) নিয়ে আলোচনা করবো। এতে করে আপনারা সবাই এই অবসর গ্রহন প্রক্রিয়া, যোগ্যতা ও সুবিধা সম্পর্কে জানতে পারবেন।

সেই সাথে নিজের বা পরিচিতজন কেউ এই প্রকল্পের সুবিধা নিয়ে চাইলে তাকে সঠিক তথ্য দিয়ে সহায়তা করতে পারবেন।

তাই আমাদের জন্য এই SBI স্বেচ্ছা অবসর গ্রহন প্রকল্প নিয়ে লেখাটি মনোযোগ দিয়ে পড়া প্রয়োজন। আসুন দেখে নি, SBI স্বেচ্ছা অবসর গ্রহন প্রকল্প এর বিস্তারিত তথ্য

SBI স্বেচ্ছা অবসর গ্রহন প্রকল্প কি?

১ ডিসেম্বর থেকে State Bank of India (SBI) তাদের প্রায় ৩০ হাজার কর্মীকে স্বেচ্ছা অবসর দেয়ার পরিকল্পনা করেছে। এই স্বেচ্ছা অবসর দেয়ার নীতিমালাই হলো SBI স্বেচ্ছা অবসর গ্রহন প্রকল্প।

এই প্রতিষ্ঠানের যে সকল কর্মীরা নিজেদের কর্মদক্ষতার শীর্ষে নেই এবং কাজের ক্ষেত্রে অনেকদিন যাবত একটি নির্ধারিত স্থানে আটকে আছে তাদের জন্য সম্মানের সাথে অবসরে যাবার সুযোগ করে দেইয়া হবে।

একই সাথে ব্যক্তিগত কারণে কেউ চাকরি ছাড়তে চাইলে এবং অন্য কোন কারণে চাকতি ছাড়তে চাইলেও এই প্রকল্পের মাধ্যমে স্বেচ্ছা অবসরের সুবিধা নিতে পারবে।

কারা এই সুবিধা নিতে পারবেন?

যে সকল কর্মচারী State Bank of India এর অধীনে নূন্যতম ২৫ বছর চাকরী করেছেন তারা এই “SBI স্বেচ্ছা অবসর গ্রহন প্রকল্প” এর জন্য আবেদন করতে পারবেন।

এই প্রতিষ্ঠানের স্থায়ী কর্মচারীরাই এই প্রকল্পের জন্য বিবেচিত হবেন।

যে সকল কর্মচারীর বেতন ৫৫ বছরের চাইতে বেশি তারাও “SBI স্বেচ্ছা অবসর গ্রহন প্রকল্প” এর আওতায় আসবেন।

কবে থেকে এই আইন কার্যকর?

১লা ডিসেম্বর ২০২০ তারিখ হতে এই “SBI স্বেচ্ছা অবসর গ্রহন প্রকল্প” এর জন্য আবেদন করা যাবে।

এই প্রকল্পের আওতায় কতজন থাকবেন?

প্রতিষ্ঠানটির হিসাব অনুযায়ী প্রায় ৩০ হাজার কর্মচারী এই প্রকল্পের আওতায় আসবে।

১১ হাজার ৫৬৫ জন অফিসার এবং ১৮ হাজার ৬২৫ জন কর্মী স্বেচ্ছা অবসরের জন্য বিবেচিত হবেন।

এই প্রকল্পের মাধ্যমে কি কি সুবিধা পাবে?

আসুন দেখে নিই SBI স্বেচ্ছা অবসর গ্রহন প্রকল্প থেকে কি কি সুবিধা পাওয়া যাবে।

১) কর্মীরা তাদের বাকি কর্মজীবনের ৫০% বেতন এককালীন পাবে। তবে এই বেতন সর্বোচ্চ ১৮ মাসের জন্য গন্য করা হবে।

২) কর্মীরা আগের সুবিধা অনু্যায়ী গ্রেচিয়েটি, পেনশন, প্রভিডেন্ট ফান্ড সহ সকল সুবিধা পাবেন।

৩) ২ বছর কুলিং পিরিওড শেষে চাইলে আবার এই প্রতিষ্ঠানে যোগ দিতে পারবেন। যেদিন থেকে অবসরে যাবেন্ন সেদিন থেকে এই ২ বছরের কুলিং পিরিওড গগনা করা হবে।

এই প্রকল্পে SBI এর লাভ কি?

বর্তমানে SBI এর প্রায় ২ লক্ষ ৫০ হাজার কর্মী রয়েছে। তারা ধারনা করছে এই প্রকল্পের মাধ্যমে ৩০ হাজার লোকবল কমানো সম্ভব হবে।

এতে করে প্রায় ১০ ভাগ জনবল কমবে এবং ২১৭০ কোটি টাকা সাশ্রয় হবে।

ধারনা করা হচ্ছে এই প্রকল্পের মাধ্যমে প্রাথমিকভাবে ১১ হাজার ৫৬৫ জন অফিসার এবং ১৮ হাজার ৬২৫ জন কর্মী স্বেচ্ছা অবসরের জন্য বিবেচিত হবেন।

আজ আমরা “SBI স্বেচ্ছা অবসর গ্রহন প্রকল্প” বিস্তারিত, যোগ্যতা ও সুবিধা নিয়ে আলোচনা করলাম। এতে করে আপনারা এই প্রকল্প সম্পর্কে ভালোভাবে জানতে পারলেন।

আমাদের সাইটের পরবর্তী লেখায় আপনাদের জন্য এই বিষয়ের উপর আরো বিস্তারিত লেখা থাকবে। তাই আমাদের বাংলাভূমি সাইটে নিয়মিত চোখ রাখুন।

এই লেখাটি অনেকের কাজে লাগতে পারে তাই লেখাটি যতটুকু সম্ভব শেয়ার করুন, যাতে করে অনেকে এই লেখা থেকে শিক্ষা নিয়ে ভারত সরকারের নানা উদ্যোগ সম্পর্কে অনেক কিছু জানতে পারবেন।

ভারত সরকারের বিভিন্ন যোজনা নিয়ে আরো অনেক লেখা পেতে আমাদের সাইটের অন্য লেখাগুলি দেখুন।

আমাদের লেখা ভালো লাগলে বা যেকোন মন্তব্য আমাদের ফেসবুক পাতায় লিখুন। আমরা আপনার মন্তব্যের সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেবো।

Leave a Comment