বাংলা সহায়তা কেন্দ্র 2022 সুবিধা ও আবেদন @ bsk.wb.gov.in

Bangla Sahayata Kendra Scheme 2022 – BSK (বাংলা সহায়তা কেন্দ্র 2022), বাংলা সহায়তা কেন্দ্র কি? এই যোজনার লাভ কি? বাংলা সহায়তা কেন্দ্র তে কিভাবে আবেদন করবেন? এবং এই বাংলা সহায়তা কেন্দ্রের আরও তথ্য এখানে দেখুন।

সাধারণ মানুষ স্বাভাবিক ভাবে বেঁচে থাকার জন্য যে সমস্ত সুবিধা ও চাহিদাগুলি জরুরি, সেগুলো যদি পূরণ হয়ে থাকে তাহলে জীবনযাত্রা অনেকটা সহজ হয়ে যায়। পশ্চিমবঙ্গের মানুষের কথা ভেবে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বেশ কিছু প্রকল্প এবং আরো অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা দিয়ে রেখেছেন সাধারণ মানুষের জন্য।

বাংলা সহায়তা কেন্দ্র 2022 (Bangla Sahayata Kendra 2022):

পশ্চিমবঙ্গের মানুষকে সাহায্য করার উদ্দেশ্যেই বাংলা সহায়তা কেন্দ্র খুলেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এক বছরের মধ্যেই এই প্রকল্প ব্যাপকভাবে সাফল্য অর্জন করে। পাঁচ কোটিরও বেশি মানুষ বাংলা সহায়তা কেন্দ্রের পরিষেবা পেয়েছেন, সে কথা ঘোষণা করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নিজেই জানিয়েছেন। তিনি বলেন “বাংলা সহায়তা কেন্দ্রের সুবিধা ইতিমধ্যেই পেয়েছেন রাজ্যে একাধিক মানুষ।”

(বাংলা সহায়তা কেন্দ্র) Bangla Sahayata Kendra @ bsk.wb.gov.in
(বাংলা সহায়তা কেন্দ্র) Bangla Sahayata Kendra @ bsk.wb.gov.in

এছাড়া রাজ্যে সর্বমোট ১০,০০০ বাংলা সহায়তা কেন্দ্র গড়ে তোলার পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। প্রয়োজন পড়লে রাজ্যের উদ্যোগে পাড়ায় পাড়ায় গড়ে তোলা হবে এই বাংলা সহায়তা কেন্দ্র। এই পরিষেবা পাবেন পাড়ায় পাড়ায় প্রতিটি সাধারণ মানুষ। তার পাশাপাশি রাজ্যে অনেক কর্মসংস্থান গড়ে উঠবে, বেকারত্ব দূর হবে এই প্রকল্পের মধ্যে দিয়েই।

তাছাড়া বর্তমানে রাজ্যের ৩,৫৬১ টি বাংলা সহায়তা কেন্দ্র রয়েছে। তার মধ্যে কর্মরত রয়েছেন ৭,১২২ জন কম্পিউটার অপারেটর। রাজ্যে নিযুক্ত এই অপারেটররাই সাধারণ মানুষকে অনলাইনের মাধ্যমে কন্যাশ্রী, রূপশ্রী, কৃষক বন্ধু, জমির মিউটেশন, খাদ্যসাথী, সবুজ সাথী, স্বাস্থ্য সাথী, যুবশ্রী, গতিধারা, আরো অন্যান্য পরিষেবা পাওয়ার জন্য বিনামূল্যে পরিষেবা দিয়ে থাকেন।

এই পরিষেবায় সংখ্যায় প্রায় পাঁচ কোটিরও বেশি মানুষ উপকৃত হয়েছেন। একজন ব্যক্তি একাধিক পরিষেবাও পেয়েছেন। সেই দিক থেকে উপকৃত হয়েছেন রাজ্যের তিন কোটি ৭২ লক্ষ ৯,২০১ জন মানুষ।

বর্তমানে পশ্চিমবঙ্গের একটি চাকরি অথবা জব পাওয়া কতটা কষ্টকর অথবা সময় সাপেক্ষ তা তো আমরা সকলেই জানি। পশ্চিমবঙ্গ সরকারের বর্তমান স্থায়ী একটি চাকরির ভ্যাকান্সি খুলছে যার নাম “বাংলা সহায়তা কেন্দ্র (Bangla Sahayata Kendra)।”

এই সহায়তা কেন্দ্রের মাধ্যমে সমস্ত রকম অনলাইন কাজ, আধার কার্ড থেকে শুরু করে যাবতীয় অনলাইনে যে সমস্ত কাজ রয়েছে সেগুলি করতে পারবেন আপনার স্থানীয় ব্লক অথবা বিডিও অফিসে এবং পোস্ট অফিসের সহায়তা কেন্দ্র গুলি থেকে।

Bangla Sahayata Kendra - বাংলা সহায়তা কেন্দ্র
Bangla Sahayata Kendra – বাংলা সহায়তা কেন্দ্র

সমস্ত রকম সুযোগ-সুবিধা ও বেকারত্ব দূর করার উদ্দেশ্যেই কর্মসংস্থান করার জন্যই এই বাংলা সহায়তা কেন্দ্র প্রকল্পটি চালু করা হয়েছে। এর মাধ্যমে একাধিক মানুষ উপকৃত হবেন আশা করা যায়।

বাংলা সহায়তা কেন্দ্র তে আবেদনের জন্য ডকুমেন্টস:

যেকোনো কাজের ক্ষেত্রে আবেদন করার জন্য সমস্ত রকম প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস আপনার কাছে থাকাটা জরুরী। অনলাইনে আবেদন করুন অথবা অফলাইনে, সমস্ত রকম ডকুমেন্টস না থাকলে আপনার আবেদন পত্রটি বাতিল হতে পারে। আর সেই কারণেই সমস্ত রকম ডকুমেন্টস হাতের কাছে রাখুন, প্রয়োজন অনুসারে ব্যবহার করুন।

যে সমস্ত ডকুমেন্টস লাগবে সেগুলি হল:

  • রঙিন পাসপোর্ট সাইজের ফটোগ্রাফ।
  • আধার কার্ড
  • কম্পিউটার ট্রেনিং সার্টিফিকেট
  • ভোটার আইডি কার্ড
  • বার্থ সার্টিফিকেট
  • আবেদনকারীর সিগনেচার
  • কাস্ট সার্টিফিকেট (SC, ST, OBC)
  • আবেদনকারীর শিক্ষাগত যোগ্যতার সার্টিফিকেট।

তবে মনে রাখতে হবে যে, উপরে যে সমস্ত ডকুমেন্টস গুলি দেওয়া রয়েছে তার অবশ্যই স্ক্যান কপি করে রাখবেন মোবাইল অথবা কম্পিউটার এর মধ্যে এর প্রত্যেকটি ডকুমেন্ট স্ক্যান 50kb এর ভিতর হতে হবে।

এছাড়া যদি আপনার স্ক্যানার না থাকে তাহলে আপনার মোবাইল এর প্লে স্টোরে গিয়ে যেকোনো একটি স্ক্যানার অ্যাপ ডাউনলোড করতে পারেন এবং স্ক্যানার গুলো জে পি জি (jpg) এবং পি এন জি (png) ফরমেটে হতে হবে।

শিক্ষাগত যোগ্যতা হিসেবে আবেদন করতে চাইলে:

  • আপনাকে অবশ্যই পশ্চিমবঙ্গের স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে।
  • আপনার স্থানীয় কোন কম্পিউটার ট্রেনিং সেন্টার থেকে রেপুটেড ট্রেনিং সেন্টারের (Reputed training Center) সার্টিফিকেট থাকতে হবে।
  • আবেদনকারীকে কমপক্ষে উচ্চ মাধ্যমিক পাস সার্টিফিকেট দেখাতে হবে।
  • আবেদনকারীর বয়স সর্বনিম্ন ১৮ বছর থেকে সর্বোচ্চ ৪০ বছর বয়সের মধ্যে হতে হবে।
  • আর যদি আবেদনকারী SC, ST, OBC হয়ে থাকেন, তাহলে বয়সের সীমা ১৮ বছর থেকে সর্বোচ্চ ৪৩ বছর বয়সের মধ্যে হলেও আবেদন করতে পারবেন।

বাংলা সহায়তা কেন্দ্রের আবেদন করার পদ্ধতি:

খুব সহজ কয়েকটি পদক্ষেপ অবলম্বন করলেই নিজের স্মার্টফোনের মাধ্যমে বাংলা সহায়তা কেন্দ্রে (Bangla Sahayata Kendra) এপ্লাই করতে পারবেন।

নিম্নলিখিত পদক্ষেপগুলো ফলো করলেই বাংলা সহায়তা কেন্দ্র আবেদন করতে পারবেন:-

Step 1. সবার প্রথমে আপনার মোবাইল অথবা কম্পিউটার এর যেকোন ব্রাউজারে wbbsk.in অথবা https://bsk.wb.gov.in/ সার্চ করলে অথবা এই লিংকে ক্লিক করলে অনলাইনে আবেদন করার জন্য অফিসিয়াল ওয়েব সাইট ওপেন হয়ে যাবে।

Bangla Sahayata Kendra Online Apply
Bangla Sahayata Kendra Online Apply

Step 2. তারপর একটু নিচের দিকে আসলে Apply Now অপশনটি দেখতে পাবেন এই অপশনে ক্লিক করুন, দেখবেন একটি অ্যাপ্লিকেশন ফর্ম ওপেন হবে।

Step 3. সবার প্রথমে Post Information এ আপনার জেলায় স্থানীয় তিনটি ব্লকের নাম সিলেক্ট করে নিন। যেমন – Block 1, Block 2, Block 3.

Step 4. যদি মোবাইল ফোন থেকে আবেদন করেন তাহলে আপনার পাসপোর্ট সাইজের ফটো সিগনেচার করা এবং স্ক্যান করা jpg একটি করে ফরমেট আপলোড করুন।

Step 5. এরপর বেসিক ইনফরমেশন পূরণ করার জন্য আবেদনকারীর নাম, জন্মতারিখ, বাবার নাম, দিয়ে দিন। তার সাথে ব্লাড গ্রুপ এবং ধর্ম সিলেক্ট করুন। এরপর আপনার কাস্ট সিলেক্ট করুন। আপনি বিবাহিত না অবিবাহিত সেটা উল্লেখ করুন, আপনি পুরুষ না মহিলা সেটাও উল্লেখ করতে হবে।

Step 6. যদি SC, ST, OBC এর মধ্যে হয়ে থাকেন তাহলে তার সার্টিফিকেট স্ক্যান করে jpg ফরমেট 50kb এর মধ্যে আপলোড করে দিন।

Step 7. এরপর দেখবেন আপনার ঠিকানা দিতে হবে, অ্যাড্রেস ইনফর্মেশন এর মধ্যে। এর জন্য প্রথমে আপনার গ্রাম, পোস্ট অফিস, জেলা, পুলিশ স্টেশন, আপনার ব্লক, গ্রাম পঞ্চায়েত, পিন কোড, ইমেইল আইডি, মোবাইল নাম্বার, প্যান কার্ড নাম্বার, ইমারজেন্সি কন্টাক্ট নাম্বার, ভোটার আইডি কার্ড নাম্বার, আধার কার্ড নাম্বার, এইসবগুলো  লিখে ফাঁকা বক্সের মধ্যে লিখে ফিলাপ করতে হবে।

Step 8. এরপর আসবে আপনার শিক্ষাগত যোগ্যতা সম্পর্কে, Academic Qualifications (School/ Pre- Degree Level) প্রথমে কোন ক্লাসে পরীক্ষায় পাশ করেছেন, তারপর কোন ইউনিভার্সিটি থেকে গ্রাজুয়েশন কমপ্লিট করেছেন, কোন বছরে পাশ করেছেন তার তারিখ দেবেন, তারপর ক্লাস ডিভিশন দেবেন, তারপরে কত পার্সেন্ট নাম্বার পেয়েছেন এবং শেষে কোন স্কুলে পড়াশোনা করেছেন সেটা উল্লেখ করতে হবে।

Step 9. আবেদনকারীর লেটেস্ট টেকনিক্যাল কোয়ালিফিকেশন পূরণ করতে হবে।

Step 10. তাছাড়া আবেদনকারীর কাজ করার অভিজ্ঞতা কত বছর এর রয়েছে সেটাও কিন্তু উল্লেখ করতে হবে।

Step 11. আবেদনকারী কোন ভাষায় লিখতে অথবা কথা বলতে পারেন (Language Known) সুন্দরভাবে সেটাও কিন্তু সিলেক্ট করতে হবে।

Step 12. এরপর আবেদনকারীর যে সমস্ত ডকুমেন্টস গুলি আপলোড করতে হবে সেগুলো নিচে দেওয়া রইল:-

  • বয়সের প্রমাণপত্র হিসেবে বার্থ সার্টিফিকেট স্ক্যান কপি 50kb
  • লাস্ট অ্যাক্যাডেমিক কোয়ালিফিকেশন স্ক্যান কপি 50kb
  • কম্পিউটার ট্রেনিং সার্টিফিকেট স্ক্যান কপি 50kb
  • কাজের অভিজ্ঞতার সার্টিফিকেট অথবা এক্সপেরিয়েন্স সার্টিফিকেট স্ক্যান কপি 50 kb
  • আধার কার্ডের স্ক্যান কপি 50kb
  • ভোটার আইডি কার্ডের স্ক্যান কপি 50kb

এই সমস্ত ডকুমেন্টস গুলো আপলোড করার পর নিচের দিকে চলে আসবেন, সেখানে “I have read and agree to the declaration” এই লেখাটির পাশে ফাঁকা ঘরে টিক চিহ্ন দেবেন এবং নিচের দিকে দেখবেন সাবমিট (Submit) বাটন রয়েছে সেই বাটনে ক্লিক করুন। আপনার আবেদনটি সম্পূর্ণ হয়েছে।

তো এইভাবে বাংলা সহায়তা কেন্দ্রে অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন খুবই সহজ ভাবে।

এবার জানা যাক বাংলা সহায়তা কেন্দ্র তে জব  পাওয়ার পর আপনার সেলারি অথবা বেতন কত হতে পারে:

অনেকেই ইতিমধ্যে বাংলা সহায়তা কেন্দ্রে চাকরি পাওয়ার জন্য আবেদন করে ফেলেছেন, তবে অনেকেরই হয়তো ধারণা নেই যে, এই বাংলা সহায়তা কেন্দ্রে কতটা স্যালারি অথবা বেতন পাওয়া যেতে পারে।

তবে অনেকক্ষেত্রে জানা গিয়েছে এই চাকরির জন্য প্রতি মাসে ১৩ হাজার করে টাকা দেওয়া হবে, তবে সঠিক তথ্য এখনো জানা যায়নি, তবে অনুমান করা যাচ্ছে এবং আশা করা যাচ্ছে যে, বাংলা সহায়তা কেন্দ্রের মাসিক বেতন হিসেবে ১০,০০০ টাকা থেকে ২০,০০০ হাজার টাকার মধ্যে হতে পারে।

বাংলা সহায়তা কেন্দ্র কন্টাক্ট ডিটেইলস:

  • ইমেইল এড্রেস: [email protected]
  • কন্টাক্ট নাম্বার (টেকনিক্যাল অ্যাসিস্ট্যান্ট দের জন্য): +91 33 2214-0027
  • Email, E-Wallet Queries এর জন্য: [email protected]
  • কন্টাক্ট নাম্বার (E-Wallet Technical Assistance):  AGM SIB Branch: 9674712509    DBM SIB Branch: 9674712520

বাংলা সহায়তা কেন্দ্র এর ঠিকানা:

Personnel & Administrativ Reforms & e- Governance Department

নবান্ন (Nabanna), 7 th floor, 325 শরৎ চ্যাটার্জি রোড, শিবপুর, হাওড়া, পিন কোড:- 711102

ফোন নাম্বার:- +91 33 2214-0027

এছাড়া বাংলা সহায়তা কেন্দ্র সম্পর্কে আরও যদি অন্যান্য কিছু তথ্য জানার থাকে, তাহলে উপরে দেওয়া সমস্ত নাম্বারে ফোন করেও জানতে পারেন, অথবা এই ঠিকানায় চিঠিও লিখতে পারেন।

তাহলে দেখতেই পাচ্ছেন যে, রাজ্যের কর্মসংস্থানের জন্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই প্রকল্পটি শুরু করেছেন, বেকারত্ব দূর করার উদ্দেশ্যেই। ভবিষ্যতের পাড়ায় পাড়ায় এই প্রকল্পটির ছড়িয়ে পড়বে আশা করা যায়। রাজ্যের কোনায় কোনায় এই প্রকল্পের সুবিধা ভোগ করতে পারবেন সাধারণ মানুষ।

Home Click here
Official Website Click here

1 thought on “বাংলা সহায়তা কেন্দ্র 2022 সুবিধা ও আবেদন @ bsk.wb.gov.in”

  1. very good opporftunity.

    Reply

Leave a Comment