ভারতের কোথায় সস্তায় জমি পাওয়া যায়?

আমরা সবাই চাই নিজের জমি থাকুক। তিল তিল করে জমানো সঞ্চয় দিয়ে আমরা জমি কেনার চেষ্টা করি। দিন দিন ভারতের জমির দাম যেভাবে বাড়ছে তাতে করে মধ্যবিত্তের পক্ষে জমি কেনা অনেকটা দূরহ ব্যপার হয়ে দাড়িয়েছে। এজন্য আমরা খুজতে থাকি কোথায় একটু কম টাকায় জমি কিনতে পারা যায়। জমি কেনার সময় দেখে নিতে হয় জমির কিছু বিশেষ বৈশিষ্ট্য। এগুলি হলো 

১) যোগাযোগ ব্যবস্থা

২) জমির দাম

৩) জমির আশেপাশে শিল্পায়ন

৪) জমির উচ্চতা, জমিতে পানি উঠে কিনা। 

এসব বিবেচনায় ভালো জমি কম দামে কিনতে পারে অনেক কঠিন ব্যপার হয়ে দাড়ায়। আমরা অনেকেই জানি না কোথায় একটু কমদামে ভালো জমি পাওয়া যায়। তাই আমাদের জানা থাকলে জমি কেনার জন্য সুবিধা হয়।

 

আমাদের সাইটে আমরা নিয়মিতভাবে জমি নিয়ে নানা বিষয়ে আলোচনা করে থাকি। তারই ধারাবাহিকতায় আজ আমরা আলোচনা করবো ভারতের কোথায় সস্তায় ভালো জমি পাওয়া যায়। এখানে আমরা ভারতের বিভিন্ন জায়গার অবস্থান, যোগাযোগ ব্যবস্থা, জমির দাম নিয়ে আলোচনা করবো। যাতে করে আপনারা জমি কেনা নিয়ে সহজেই সিদ্ধান্ত নিতে পারেন। আসুন দেখে নিই ভারতের কোথায় কোথায় সস্তায় জমি পাওয়া যায়। 

 

ভারতের কিছু সস্তায় জমি কেনার স্থান

সারা দেশে জমির দাম আকাশচুম্বি হয়ে যাচ্ছে। এরই মাঝে সম্ভাবনাময় কিছু স্থানে এখনও জমির দাম কম থাকলেও যোগাযোগ ব্যবস্থা ও শিল্পায়নের প্রভাবের কারণে এসব জমি কেনা খুবই লাভজনক। নিচে আমরা এমন কিছু জমি নিয়ে আলোচনা করছি।

 

হায়দারাবাদ, তেলেঙ্গানা

হায়দারাবাদ ভারতের অর্থনৈতিকভাবে খুবই গুরুত্বপুর্ন একটি স্থান । এখানে দিনে দিনে মানুষের কর্ম চাঞ্চল্য বেড়েই যাচ্ছে। এখানে অনেক আইটি নির্ভর প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠায় এখানকার আবাসিক জমির চাহিদা অনেক বেড়ে গেছে। হায়দারাবাদের আশেপাশের মানিকুন্ডা, কুকাতপল্লি, মিয়াপুর, সৈনিকপুরি এসব স্থানে আবাসনে জন্য খুব সহজেই জমি কেনা যায়। এখানে ৩০ লক্ষ হতে ৫০ লক্ষ টাকায় বাড়ি বাড়ি কেনা যায়। তাই হায়দারাবাদ ভারতের মাঝে সস্তায় জমি কেনার জন্য খুবই উপযুক্ত শহর। 

 

পুনে, মহারাষ্ট্র

গত কয়েক বছরে পুনে নগরীর উন্নয়ন চোখে পড়ার মত। বিশেষ করে এর আবাসিক এলাকাগুলি খুব দ্রুত উন্নতি লাভ করেছে এবং এই এলাকায় অনেক বিলাসবহুল এপার্টমেন্ট গড়ে উঠেছে। এখানকার যোগাযোগ ব্যবস্থা ও জীবনযাত্রার মান যথেষ্ট উন্নত। তাই এখনকার সময়ে পুনে শহরের আশেপাশে জমি কেনা হবে অনেক ভালো একটি বিনিয়োগ। আর চেন্নাই, মুম্বাই শহরের তুলনায় এখানে অনেক কম টাকায় বাড়ি করা বা বাড়ি কেনা যায়। তাই পুনে ভারতের কম টাকায় জমি কেনার মত জায়গার মাঝে ১ টি। 

 

নাভি মুম্বাই, মহারাষ্ট্র

গত কয়েক বছরে নাভি মুম্বাইয়ের অবস্থা অনেক পরিবর্তন হয়ে গেছে। দ্রুততম সময়ে এখানকার যোগাযোগ ব্যবস্থা আধুনিক রুপ লাভ করেছে। কিন্তু আশার কথা এইযে, মুম্বাই শহরে যেখানে জমির মূল্য আকাশ ছুয়েছে সেখানে নাভি মুম্বাইয়ের জমির দাম এখনো মধ্যবিত্তের সাধ্যের মাঝেই রয়েছে।

 

নাভি মুম্বাইয়ের ড্রোনাগিরি, কালামবলিতে শিল্পায়ন ও পাশেই আধুনিক আন্তর্জাতিক মানের বিমানবন্দর নির্মানাধীন হওয়ায় এখানকার জীবন যাত্রার মান খুব দ্রুত আরো আধুনিক হয়ে যাবে। তাই এখানে জমি কিনে রাখা হবে খুবই বুদ্ধিমানের কাজ। নাভি মুম্বাইয়ের বাড়ির মূল্য এখন ৩০ লক্ষ টাকা হতে ৫০ লক্ষ টাকা মধ্যে হওয়ায় এটা এখনো ভারতের অন্যতম সস্তায় জমি কেনার স্থান। 

সুরাট, গুজরাট 

অর্থনৈতিক কেন্দ্র হয়ে উঠায় সুরাটে ইতিমধ্যে গড়ে উঠেছে নানা বহুতল ভবন ও নানা শিল্পকারখানা। সেই সাথে যোগাযোগ ব্যবস্থায় অনেক উন্নয়ন হয়েছে। এখানে রেলপথ ও ফ্লাইওভারের অনেক উন্নয়ন কাজ হওয়ায় এখানে যাতায়াত ব্যবস্থা অনেকটাই সুবিধাজনক। তাই সুরাটের চারপাশে নানা আবাসন প্রকল্প গড়ে উঠেছে। এই সময়ে এখানে জমি কেনা অনেকটা লাভজনক। কারণ ভারতের অন্যান্য শহরের তুলনায় এখনো এখানকার জমির দাম তুলনামূলক কম।

 

জয়পুর, রাজস্থান

জয়পুর ভারতের অন্যতম একটি দ্রুত উন্নয়নশীল শহর। এখানকার আবাসনখাতে অনেক বড় বড় প্রকল্প তৈরি হয়েছে। তাই এখানকার মানুষের জীবনে এসেছে আধুনিকতার ছোয়া। এই এলাকাটি বর্তমানে উত্তর ভারতের একটি গুরুত্বপূর্ন স্থানে পরিনত হয়েছে। এখানকার কিছু সুবিধাজনক স্থান যেমন মালভিয়া নগর, টঙ্ক রোড এবং আজমীরি রোড আবাসনের জন্য খুবই উত্তম স্থানে পরিনত হয়েছে। এখানকার জমির মূল্যবৃদ্ধির হার বছরে ১২%-১৭%। তাই এখানে এখনই জমি কেনা হবে খুবই লাভজনক একটি সিদ্ধান্ত। 

আজ আমরা আপনাদের সাথে ভারতের কোথায় সস্তায় জমি পাওয়া যায় তা নিয়ে আলোচনা করলাম। আগামীতে আরো কিছু এলাকা নিয়ে আলোচনা করবো, তাই আমাদের পেজে নিয়মিত চোখ রাখুন। এই লেখাটি অনেকের কাজে লাগতে পারে তাই লেখাটি যতটুকু সম্ভব শেয়ার করুন, যাতে করে অনেকে এই লেখা থেকে শিক্ষা নিয়ে জমি থেকে আয় করার ব্যবস্থা করতে পারে। 

Leave a Comment