wbiwd.gov.in 2022 Irrigation and Waterway Department of West Bengal

0
(0)

West Bengal Irrigation and Waterway Department: পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য কৃষি প্রধান দেশ, এখানে সমস্ত রকমের চাষাবাদ হয়।

সে ক্ষেত্রে জল সেচের ব্যবস্থা এবং জলপথের ভূমিকা অনেকখানি। জলসেচের উপর নির্ভর করে কৃষি কাজ সম্পন্ন হয়। পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার এই বিষয়ে বিশেষ গুরুত্ব দিয়েছে।

Irrigation and Waterway অর্থাৎ পশ্চিমবঙ্গের সেচ ও জলপথ:

সময় মত কাজ সম্পন্ন করার লক্ষ্যে রাজ্য সেচ ও জলপথ দপ্তর  যে কোয়ালিটি কন্ট্রোল কেন্দ্র করবে এই কেন্দ্রগুলোতে অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতি থাকবে।

Irrigation and Waterway Department of West Bengal wbiwd.gov.in
Irrigation and Waterway Department of West Bengal wbiwd.gov.in

যার মাধ্যমে প্রয়োজনীয় পরীক্ষা করা সম্ভব হবে। পরিকাঠামো উন্নয়নের জন্য এই ধরনের উদ্যোগ এই প্রথম। এই অসময়ে কোন পরীক্ষা করা সম্ভব হবে।

Irrigation and Waterway Department এর কাজ:

রাজ্যের প্রত্যন্ত অঞ্চলেও জল সরবরাহ করার উদ্যোগ নিল রাজ্য সরকার। তাছাড়া পুরুলিয়া জেলার মত প্রত্যন্ত অঞ্চলেও যাতে পর্যাপ্ত জলের যোগান দিয়ে চাষবাস করা যায়, তার জন্য প্রয়োজনীয় সব পদক্ষেপ নিয়েছে রাজ্যের সেচ ও জলপথ দপ্তর।

প্রকল্পের আওতায় আনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ৩০ কোটি টাকা ব্যয় করে বিভিন্ন প্রকল্প গ্রহণ করেছে। খাল সংস্কার, খালগুলোর বাঁধ মেরামত করা ইত্যাদি।

এ বিষয়ে উল্লেখ্য যে, সাড়ে পাঁচ বছর আগে জলের অভাবের জন্য পুরুলিয়ায় চাষবাস ছিল প্রায় অসম্ভব। কিন্তু ২০১১ সালের পরিবর্তনের পর রাজ্য সরকার নানা উদ্যোগ নিয়েছে ও জলপথ দপ্তর। শুধু বাঁকুড়া জেলাতে ৮৯ চেক ড্যাম (Check dam West Bengal) তৈরি করেছে। তাছাড়া আরও আটটি তৈরীর কাজ জোরকদমে চলছে।

রাজ্য সরকার চলতি আর্থিক বর্ষে ৩ লক্ষ একর জমিতে সেচ প্রকল্পের আওতায় নিয়ে এসেছে এর ফলে রবি ও বোরো চাষের জন্য জলের অভাব হবেনা। এই তিন লক্ষ একর জমির মধ্যে ১ লক্ষ একর জমি জঙ্গলমহলে।

বর্ষার আগেই রাজ্যের সমস্ত মজে যাওয়া সেচ খাল, জমিদারি বাঁধ মেরামত করা, এই ডিপার্টমেন্টের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য। গঙ্গা ও পদ্মার ভাঙ্গন রোধ করতে কেন্দ্রের করার কথা, কিন্তু কেন্দ্রীয় সরকার এই নিয়ে কোনো কাজ করছেনা।

অর্থ বরাদ্দ করছে না। কয়েকটি জায়গায় গঙ্গা-পদ্মা ভয়াবহ আকার নিয়েছে। সেই সব জায়গাতে কাজ করবে সেচ দপ্তর। তাছাড়া এই খালগুলি সংস্কার হলে সেগুলিতে জল ধারণ ক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে।

এই সমস্ত কাজ গুলি বর্ষার আগেই শেষ হয়ে গেলে, বর্ষায় বাঁধভাঙা থেকে যেমন রক্ষা পাওয়া যাবে, তেমনি সারা বছর সেচ ও জলপথ দিয়ে যে জল ভালোভাবে দেওয়া যাবে।

পশ্চিমবঙ্গের পূর্বাঞ্চল অন্যতম প্রধান ধান উৎপাদনকারী রাজ্য, প্রাণী নয় বিভিন্ন ফসলের চাষ হয় এখানে, কিন্তু পর্যাপ্ত বৃষ্টিপাতের অভাবে এখানে প্রায়ই দেখা দেয় খরা।

এই পরিস্থিতিতে লোকসানের সম্মুখীন হতে হয় সমস্ত চাষীদের। রাজ্য সরকারের প্রকল্প বাস্তবায়ন করেছে, যা জল সম্পদ সংরক্ষণ করবে আবার কৃষকদের বেশি ফসল উৎপাদনে সহায়তা করবে, এই প্রকল্পের নাম বাংলা কৃষি সেচ যোজনা (Bangla Krishi Sech Yojana)।

বাংলা কৃষি সেচ যোজনার লক্ষ্য:

#১) কৃষি উন্নয়ন এই প্রকল্পের মূল লক্ষ্য হলো দরিদ্র কৃষকদের বিনামূল্যে ফসল, সেচ সুবিধা সহ তাদের ফসল চাষ বৃদ্ধি করতে সহায়তা করা।

#২) মাইক্রো সেচ সুবিধা স্থাপন প্রকল্পের আওতায় পশ্চিমবঙ্গের সরকার কৃষকদের জন্য ক্ষুদ্র সেচ সুবিধা স্থাপন করেছে এটি কৃষি ক্ষেত্রে জলের প্রয়োজনীয়তা পূরণ করবে তারপর জলের অপচয় রোধে ও কার্যকর হবে।

#৩) সেচ পদ্ধতি দুটি নির্দিষ্ট অংশ চিহ্নিত করেছে একটি স্প্রিংকলার সেচ (Sprinkler irrigation) এবং অন্যটি ড্রিপ সেচ (Drip irrigation)। এই দুটি পদ্ধতি জল সংরক্ষণের সহায়তা করবে। তাছাড়া-

#৪) ফ্রী মেশিন ইনস্টলেশন

#৫) শস্যের ধরন

#৬) বাস্তবায়ন অঞ্চল

পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের সেচ ও জলপথ দপ্তর এর ওয়েবসাইট:

এই ডিপার্টমেন্টের ওয়েবসাইটটি হল: https://www.wbiwd.gov.in ওয়েবসাইটের মধ্যে দিয়ে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের সেচ ও জলপথ বিভাগের বিভিন্ন রকমের তথ্যসমূহ অনলাইনের মাধ্যমে জানা যায়।

পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের সেচ ও জলপথ দপ্তর ওয়েবসাইটের কাজ:

অনলাইনে কার্য সম্পন্ন হওয়ার কারণে মানুষ অনেকটাই সুবিধা পেয়েছে, সেই কারণে ঘরে বসেই https://www.wbiwd.gov.in  এই ওয়েবসাইটের মধ্যে দিয়ে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারের সেচ ও জলপথ দপ্তর সম্পর্কে বিস্তারিত জানা যায়।

অত্যাধুনিক গুণমান নির্ণয় গবেষণাগার গুলি নির্ভুল রিপোর্ট দেবে। মূলত পরীক্ষা করা হবে বালি, স্টিল ও কংক্রিট। এর পাশাপাশি গবেষণা কেন্দ্রের ডিগ্রী কোর্স (Degree course) চালু করেছে, ইঞ্জিনিয়ারিং ও হাইড্রলজি অ্যান্ড ইনফরমেশন (Engineering and Hydrology and Information) এর উপর। এছাড়া দপ্তরের ইঞ্জিনিয়ারদের জন্য স্বল্প মেয়াদী কোর্সও থাকবে।

Irrigation and Waterway Department এর বিশেষ কিছু তথ্য:

এই ডিপার্টমেন্টে Minister-in-charge:

Prof. Dr. সৌমেন কুমার মহাপাত্র

ঠিকানা: জলসম্পদ ভবন, 1st floor, বিধান নগর, Salt Lake City, Kolkata- 700091

ফোন নাম্বার: 2321 5103

ইমেইল এড্রেস: [email protected]

এই ডিপার্টমেন্টের মিনিস্টার অফ স্টেট:

ইয়াসমিন সাবিনা

ঠিকানা: জলসম্পদ ভবন, 1st floor, বিধান নগর, Salt Lake City, Kolkata-700091

ফোন নাম্বার: 2321 8778

ইমেইল এড্রেস: [email protected]

এই ডিপার্টমেন্টের প্রিন্সিপাল সেক্রেটারি:

শ্রী প্রভাত কুমার মিশ্র, IAS

ঠিকানা: জলসম্পদ ভবন 1st floor, বিধান নগর, সল্ট লেক, কলকাতা- 700091

ফোন নাম্বার: 2321 5616

ফ্যাক্স: 2334 0251

ইমেইল এড্রেস: [email protected]

এই ডিপার্টমেন্টের Nodal অফিসার:

শ্রী প্রভাস রায়, ডেপুটি সেক্রেটারি

ঠিকানা: জলসম্পদ ভবন, 3rd floor, Western Block, বিধান নগর, সল্ট লেক, কলকাতা- 700091

প্রত্যন্ত গ্রাম্য এলাকায় যেখানে চাষবাসের জন্য উপযুক্ত ও পর্যাপ্ত পরিমাণে জল সেচের ব্যবস্থা নেই, সেখানে চাষবাসের উন্নতি সাধনের জন্য পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার সেচ ও জলপথ এর মাধ্যমে সেই সব জায়গাতে চাষের প্রয়োজনীয় জলের ব্যবস্থা করে থাকে এই দপ্তরের মধ্যে দিয়ে।

যার কারণে খরাপ্রবণ এলাকাতেও জল সেচের মাধ্যমে অনায়াসেই চাষীরা তাদের চাষ আবাদ করতে পারছে নিঃসন্দেহে। বিভিন্ন রকম প্রকল্পের মধ্যে দিয়ে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার সমস্ত কৃষকের মুখে হাসি ফুটিয়েছে।

Official WebsiteClick Here
HomeClick Here

আপনাদের এই তথ্য কেমন লেগেছে?

এই পোস্টে মতামত দিতে একটি স্টারে ক্লিক করুন!

Average rating 0 / 5. Vote count: 0

No votes so far! Be the first to rate this post.

যেহেতু আপনি এই পোস্টটি দরকারী বলে মনে করেছেন ...

সোশ্যাল মিডিয়াতে আমাদের অনুসরণ করুন!

আমরা দুঃখিত যে এই পোস্টটি আপনার জন্য দরকারী ছিল না!

চলুন আমাদের এই পোস্ট উন্নত করা যাক!

আমাদের বলুন কিভাবে আমরা এই পোস্ট উন্নত করতে পারি?

Leave a Comment