উগাদি 2023 তারিখ ও সময় | Ugadi 2023 Date & Muhurat

উগাদি 2023 তিথি ও সময় ভারতীয় সময় অনুসারে। কবে পড়েছে এবছরের উগাদি 2023? উগাদির শুভ সময় কখন? জানুন 2023 উগাদির মুহূর্ত ও কেনাকাটার শুভ মুহূর্ত এবং তাৎপর্য। এই বছরের কবে উগাদি? জেনে নিন কেনাকাটার পাশাপাশি উৎসবের শুভ সময় ও মুহূর্ত। এছাড়াও উগাদির তাৎপর্য, পূজা বিধি এবং এই সময় কি কাজ করা উচিৎ ও কি না করা উচিৎ জানুন সবকিছু।

উগাদি তারিখ ও সময় | Ugadi Date & Muhurat
উগাদি 2023 তারিখ ও সময় | Ugadi 2023 Date & Muhurat

উগাদি 2023 (Ugadi 2023): উগাদি উৎসব দক্ষিণ ভারতীয়দের কাছে একটি প্রধান উৎসব হিসেবে পরিচিত। এই উৎসব অন্ধপ্রদেশ, কর্ণাটক, তেলেঙ্গানার মত বিভিন্ন রাজ্যনববর্ষ হিসেবে পালিত হয়ে আসছে অনেকদিন আগে থেকে। চৈত্র মাসের প্রথম দিনে এই উৎসব পালন করা হয়, যেটা তাদের নতুন বছরের প্রথম দিন হিসেবে পরিচিত।

এই বছর উগাদি 2023 কবে?

Telegu New Year/Ugadi Festival
22 March 2023
Wednesday

Pratipada Muhurat Start
10:50 PM on 21 March 2023
Pratipada Muhurat End
8:25 PM on March 2023

উগাদি উৎসবের বাংলায় তারিখ

তেলেগু নববর্ষ/উগাদি উৎসব
২২ মার্চ ২০২৩
বুধবার

প্রতিপদ মুহূর্ত শুরু
২১ মার্চ ২০২৩, রাত্রি ১০ঃ৫০ টায়
প্রতিপদ মুহূর্ত শেষ
২২ মার্চ ২০২৩, রাত্রি ৮ঃ২৫ টায়

 

যেকোনো উৎসবের কোন না কোন ইতিহাস থাকে, কোন একটা সময় কাল থেকে সেই উৎসব শুরু হয় আর সেটা বংশ পরম্পরা হোক অথবা সময়ের সাথে সাথে বর্তমান সময় পর্যন্ত এসে পৌঁছায় আর সেই সমস্ত কাহিনীর উপরে নির্ভর করে একটা বিশ্বাসের জোরে সেই উৎসব প্রতিনিয়ত পালন করা হয়। তেমনি উগাদি উৎসবের ইতিহাস হল এই উৎসব খুবই প্রাচীন এবং বহু শতাব্দী কাল ধরে দক্ষিণ ভারতের রাজ্য গুলিতে জাঁকজমকপূর্ণ ভাবে পালিত হয়ে আসছে।

উগাদি উৎসব কেন পালন করা হয়?

যেহেতু দক্ষিণ ভারতের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ উৎসব হল এই উগাদী উৎসব, তাই এটি তাদের কাছে নববর্ষের আগমন বলা যায়। উগাদি উৎসব নিয়ে অনেক বিশ্বাস প্রচলিত আছে, এমনই একটি বিশ্বাস অনুসারে যখন শিব ব্রহ্মাকে অভিশাপ দিয়েছিলেন যে তিনি কোথাও পূজিত হবে না, তবে অন্ধ্রপ্রদেশ ও দক্ষিণ ভারতের অন্যান্য রাজ্যে উগাদি উপলক্ষে শুধুমাত্র ব্রহ্মাকে পূজা করা হবে। কারণ এটা বিশ্বাস করা হয় যে, এই দিনে ব্রহ্মা মহাবিশ্বের সৃষ্টি শুরু করেছিলেন।

আর সেই কারণে এই উগাদি উৎসবের দিনটিকে কন্নড় এবং তেলেগু নববর্ষ হিসেবে জাঁকজমকপূর্ণ ভাবে পালন করে থাকে। এর পাশাপাশি পুরাণের কাহিনী অনুসারে ভগবান বিষ্ণু এই দিনে মৎস অবতার নিয়েছিলেন। তাছাড়া অন্যদিকে পৌরাণিক বর্ণনা অনুসারে বিশ্বাস করা হয় যে, ভগবান শ্রী রামের রাজ্য অভিষেক হয়েছিল এই উগাদি উৎসবের দিনে।

তার পাশাপাশি আবার দেখা যায় সম্রাট বিক্রমাদিত্য শকদের জয় করেছিলেন এই দিনে। এছাড়া নতুন শস্য অথবা ফসল তোলার আনন্দে কৃষকরা এই উৎসবটিকে অনেক বেশি সম্মান করে, আর ঈশ্বরের কাছে ধন্যবাদ জানিয়ে এই উৎসব পালন করা হয় খুবই জাঁকজমকপূর্ন ভাবে।

উগাদি উৎসবের আচার অনুষ্ঠান: 

এই দিনে পূজা অর্চনা করার একটি বিশেষ পদ্ধতি রয়েছে। এবং তা অনুসরণ করলে এই উৎসবে ভগবানের অশেষ কৃপা পাওয়া যায় বলে বিশ্বাস।

এই দিনে সকালে ঘুম থেকে উঠে দৈনন্দিন সমস্ত কাজকর্ম সেরে শরীরে ব্যাসন আর তেল মেখে স্নান করতে হবে, যেমনটা পয়লা বৈশাখে হলুদ ও নিমপাতা মেখে স্নান করার কথা বলা হয়েছে। এরপর হাতে অক্ষত, গন্ধ ফুল ও জল নিয়ে ব্রহ্মার মন্ত্র উচ্চারণ করে পূজা করতে হয়।

Leave a Comment