পৈতৃক সম্পত্তির অধিকার নাতি-নাতনিরা – পৈতৃক সম্পত্তি আইন

আমরা সবাই জানি যে, মৃত ব্যক্তির সম্পত্তিতে তার সন্তানরা উত্তরাধিকার সুত্রে সম্পত্তির অধিকার লাভ করে থাকে। কিন্তু আমরা অনেকেই জানিনা যে, পিতামহের সম্পত্তিতে নাতি-নাতনিরা কি উত্তরাধিকার সূত্রে সম্পত্তির অধিকার পায়?

 

আমাদের মাঝে অনেকেই এই প্রশ্নের উত্তর জানা নেই। যদিও ক্ষেত্র বিশেষে এটি অনেক গুরুত্বপূর্ন প্রশ্ন। নাতি নাতনিদের সম্পত্তিতে অধিকারের নিয়ম জানা না থাকার ফলে, সম্পত্তির ভাগ করার সময় নানা জটিলতার সৃষ্টি হয়ে থাকে। তাই আমাদের সবারই জানা উচিত যে, পৈত্তিক সম্পত্তির অধিকার নাতি-নাতনিরা কিভাবে পায়? ভারতীয় উত্তরাধিকার আইন এ বিষয়ে কি বলে? 

 

আমাদের বাংলাভূমি সাইটে বিভিন্ন সময়ে জমি সংক্রান্ত নানা তথ্য নিয়ে আপনাদের সাথে আলোচনা করে থাকি। এতে করে আপনারা জমি সংক্রান্ত বিভিন্ন আইন কানুন সম্পর্কে জানতে পারেন। যা আপনাদের দৈনন্দিন জীবনে জমি সংক্রান্ত নানা জটিলতার সময় কাজে লাগে। এরই ধারাবাহিকতায় আজ আমরা আপনাদের সাথে পৈতৃক সম্পত্তিতে নাতি-নাতনিদের অধিকার নিয়ে আলোচনা করবো। এর ফলে আপনারা সহজেই জানতে পারবেন, পৈতৃক সম্পত্তিতে নাতি-নাতনিরা কি অধিকার পেয়ে থাকে। 

 

আসুন জেনে নিই, পৈতৃক সম্পত্তিতে নাতি নাতনিরা কি কি অধিকার পেয়ে থাকে। কি কি সম্পত্তিতে নাতি নাতনিরা অধিকার পেয়ে থাকে। 

 

পিতামহের সম্পত্তিতে তার নাতি নাতনিদের অধিকার নির্ভর করে সম্পত্তির প্রকৃতির উপর। এই সম্পত্তির পৈতৃক সম্পত্তি নাকি নিজের অর্জিত সম্পত্তি তার উপর অনেকাংশে নির্ভর করে থাকে।

 

পৈতৃক সম্পত্তি কোনগুলি? 

কোন হিন্দু ব্যক্তির তার পিতা, পিতামহ, প্রপিতামহের সম্পত্তি পৈতৃক সম্পত্তি হিসেবে বিবেচিত হয়ে থাকে। কোন ব্যক্তি এই সম্পত্তির অধিকার জন্মের সাথে সাথেই পেয়ে থাকে।

 

যদিও আমরা উত্তরাধিকার আইন অনুযায়ী জানতে পারি যে, পূর্বপুরুষদের মৃত্যুর পরই কোন ব্যক্তি সম্পত্তির মালিকানার অধিকার লাভ করে। কিন্তু পৈতৃক সম্পত্তির অধিকারের জন্য পূর্বপুরুষের মৃত্যুর আগেই মালিকানার অধিকার পেয়ে থাকে। পৈতৃক সম্পত্তির অধিকার বংশ পরস্পরায় পেয়ে থাকে। 

 

পৈতৃক সম্পত্তিতে নাতি নাতনিদের অধিকার কি? 

কোন ব্যাক্তির নিজের অর্জিত সম্পদ বা উপহার পাওয়া কোন সম্পদ থাকে, তবে নাতি নাতনিদের ঐ পিতামহের অর্জিত সম্পত্তির উপর কোন অধিকার থাকে না। ঐ সম্পত্তি পিতামহ চাইলে জীবিত অবস্থায় যে কারো কাছে হস্তান্তর করতে পারেন। শুধুমাত্র পিতামহ যদি মৃত্যুর আগে কোন উইল না করে যান, তবে হিন্দু আইন অনুযায়ী পিতামহের মৃত্যুর পর তার স্ত্রী, পুত্র, কন্যা ঐ সম্পত্তির বৈধ উত্তরাধিকারী হবেন। উক্ত সম্পত্তি তার স্ত্রী, পুত্র বা কন্যার নিজের সম্পদ হিসেবে বিবেচিত হবে। তার চাইলে ঐ সম্পত্তি যে কারো কাছে হস্তান্তর করতে পারবে। 

 

যদি পিতামহ মৃত্যুর পূর্বে কোন নাতি-নাতনির বাবা বা মা মারা যান, তবে পিতামহের মৃত্যুর পর নাতি নাতনি ঐ সম্পদের বৈধ উত্তরাধিকার হবেন। বাবা মা বেঁচে থাকলে ঐ সম্পদের বৈধ উত্তরাধিকারী হবেন বাবা/মা। তাই শুধুমাত্র বাবা/মা মৃত্যুর পরেই নাতি নাতনিরা পিতামহের সম্পত্তির উত্তরাধিকার হতে পারবেন। 

 

পিতামহের যদি পৈতৃক সম্পত্তি থাকে, তবে নাতি জন্মের সাথে সাথেই ওই সম্পদের উপর বৈধ অধিকার লাভ করবে। ভারতের সুপ্রিম কোর্টে আদেশ অনুযায়ী, কন্যা সন্তানের পিতা মৃত্যুবরন করলেই শুধু মাত্র পৈতৃক সম্পত্তির অধিকার লাভ করবে। 

সঠিক সময়ে সম্পত্তির দাবি না করা হলে কি হবে? 

দিন দিন জমি বিভক্তি নিয়ে ভারতের পারিবারিক বিরোধ বেড়েই চলেছে। উচ্চবিত্ত হতে শুরু করে সমাজের সকল শ্রেনীতে এই বিরোধ দৃশ্যমান। কোন উত্তরাধিকারী যদি নিজেকে বঞ্চিত মনে করে , এবং সেই সাথে তার সপক্ষে যথেষ্ট প্রমাণ থাকে, তবে যে কোন সময়েই ঐ সম্পত্তির দাবি করা যায়। তবে সম্পত্তির বিভিক্তি নিয়ে একবার কোর্টে রায় হলে তা পরিবর্তন করা কষ্টকর। তাই কোন উত্তরাধিকারী তার সপক্ষে যথেষ্ট সাক্ষী প্রমান থাকলে যে কোন সময়েই তার বৈধ সম্পত্তির দাবি করতে পারে। 

 

পরবর্তী লেখায় আরো বিস্তারিত লেখা থাকবে। তাই আমাদের পেজে নিয়মিত চোখ রাখুন। এই লেখাটি অনেকের কাজে লাগতে পারে তাই লেখাটি যতটুকু সম্ভব শেয়ার করুন, যাতে করে অনেকে এই লেখা থেকে শিক্ষা নিয়ে জমি সম্পর্কে অনেক কিছু জানতে পারবেন।  

Leave a Comment