2021 Swami Vivekananda Scholarship পাওয়ার যোগ্যতা ও আবেদন পক্রিয়া

“শিক্ষা হল একজন মানুষের মাঝে পরিপূর্নতা লাভের অভিব্যক্তি” স্বামী বিবেকানন্দের এই বাণীকে সামনে রেখে পশ্চিমবঙ্গ সরকার চালু করেছে Swami Vivekananda Scholarship।

এটি বিকাশ ভবন স্কলারশীপ নামেও পরিচিত। এই স্কলারশীপ পশ্চিমবঙ্গের দরিদ্র ও মেধাবী ছাত্রছাত্রীদের জন্য দেয়া হয়। উচ্চ মাধ্যমিক, স্নাতক, স্নাতকোত্তর পর্যায়ে এই Swami Vivekananda Scholarship দেয়া হয়। ২০১৬ সাল থেকে এই Scholarship চালু হয়।

Swami Vivekananda Scholarship Eligibility & Application
Swami Vivekananda Scholarship Eligibility & Application

বর্তমানে ধীরে ধীরে এর স্কলারশীপের সংখ্যা ও বিভিন্ন খাতে বৃত্তি সহায়তা দিচ্ছে। এই Scholarship এর আর্থিক ব্যয় পশ্চিমবঙ্গের সরকারের তহবিল হতে প্রদান করা হয়।

শুরুতে ৪৫ কোটি টাকা দিয়ে শুরু হলেও বর্তমানে এর বাজেট বেড়ে ২০০০ কোটি টাকায় দাড়িয়েছে। সমাজের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর মাঝে শিক্ষার আলো পৌছে দিতে এবং অনেক দরিদ্র মেধাবী ছাত্রের উচ্চ শিক্ষার সুযোগ দেওয়াই এই Scholarship-এর মূল লক্ষ্য।

আজ আমরা আপনাদের সাথে Swami Vivekananda Scholarship নিয়ে আলোচনা করবো। আমরা জানবো এই Scholarship-এর আবেদন করতে কি কি যোগ্যতা লাগে? এই Scholarship-এ আবেদন করতে আবেদনপত্রের সাথে কি কি কাগজপত্র দরকার হয়।

Swami Vivekananda Scholarship-এর গুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্যঃ

বিষয় বিবরণ
স্কলারশীপের নাম Swami Vivekananda Scholarship
স্কলারশীপ কর্তৃপক্ষ West Bengal Higher Education Department (WBHED)
স্কলারশীপের উপযুক্ত বিষয় উচ্চ মাধ্যমিক, স্নাতক, স্নাতকত্তোর, মেডিক্যাল, ইঞ্জিনিয়ারিং , নার্সিং, ডিপ্লোমা, প্যারামেডিক্যাল
আবেদনের প্রক্রিয়া অনলাইন
আবেদনের শুরুর তারিখ 11ই সেপ্টেম্বর 2020
আবেদনের শেষ তারিখ 15ই নভেম্বর 2020
অফিসিয়াল ওয়েবসাইট svmcm.wbhed.gov.in

এই Scholarship এর জন্য কি কি যোগ্যতা দরকার হয়?

আসুন দেখে নি Swami Vivekananda Scholarship পেতে কি কি যোগ্যতা থাকা প্রয়োজন হয়,

১) আবেদনকারী ছাত্রছাত্রীকে অবশ্যই পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দা হতে হবে।

২) আবেদনকারী ছাত্রছাত্রীকে অবশ্যই পশ্চিমবঙ্গের অনুমোদিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের উচ্চ মাধ্যমিক অথবা আরো উপরের শ্রেনীতে শিক্ষারত অবস্থায় থাকতে হবে।

৩) আবেদনকারী ছাত্রছাত্রীর পরিবারের বার্ষিক আয় ২,৫০,০০০ টাকার কম হতে হবে।

৪) উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ে আবেদনের জন্য আবেদনকারীকে মাধ্যমিক পরীক্ষায় শতকরা ৭৫% নাম্বার লাভ করতে হবে।

৫) স্নাতক পর্যায়ে আবেদনের জন্য আবেদনকারীকে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় শতকরা ৭৫% নাম্বার লাভ করতে হবে।

৬) ডিপ্লোমা পর্যায়ে আবেদন করার জন্য আবেদনকারীকে মাধ্যমিক পরীক্ষায় শতকরা ৭৫% নাম্বার লাভ করতে হবে।

৭) মাস্টার্স কোর্সে আবেদন করার জন্য আবেদনকারীকে স্নাতক পরীক্ষায় শতকরা ৫৩% নাম্বার লাভ করতে হবে।

এই Scholarship-এ কিভাবে আবেদন করতে হয়?

আবেদনকারীকে Swami Vivekananda Scholarship এর জন্য অফিসিয়াল ওয়েবসাইটের নির্দিষ্ট লিংকে আবেদন করতে হয়। এই আবেদন বিভিন্ন শ্রেনীতে করা যায়।

এই Scholarship-এর জন্য আবেদনের সময় কোন হার্ড কপি কাগজপত্র দরকার হয় না। এই Scholarship-এ আবেদনের বিভিন্ন ধাপ আপনাদের জন্য নিচে দেয়া হলো।

১) Swami Vivekananda Scholarship এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে আপনার নির্দিষ্ট শ্রেনীতে রেজিষ্ট্রেশন করুন।

২) সফলভাবে রেজিষ্ট্রেশন সম্পন্য করার পর আপনি আপনার নিজের ইউজার আইডি ও পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করুন।

৩) লগইন করার পর ওয়েবসাইটে বিভিন্ন তথ্য দিন।

৪) অন্যান্য দরকারী কাগজপত্র সাইটে আপলোড করুন।

কি কি কাগজপত্র জমা দিতে হয়?

Swami Vivekananda Scholarship এ আবেদন করতে কিছু কাগজপত্র জমা দিতে হয়। আসুন দেখে নি আবেদন করতে দরকারী কাগজপত্র কি কি জমা দিতে হয়।

১) সর্বশেষ পরীক্ষা পাশের মার্কশীটের সামনের ও পিছনের পাশের ফটোকপি ।

২) মাধ্যমিক পরীক্ষার প্রবেশপত্রের কপি।

৩) পরিবারের আয়ের প্রমাণপত্র।

৪) পরিবারের আয়ের এফিডেভিট ।

৫) ব্যাংকের পাশবইয়ের প্রথম পাতার ছবি, যাতে করে আপনার ব্যাংক একাউন্ট নাম্বার ভালোভাবে বুঝা যায়।

৬) আধার কার্ড, রেশন কার্ড, ভোটার আইডি কার্ড।

৭) সাম্প্রতিক তোলা পাসপোর্ট সাইজ ছবি।

৮) শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভেরিফিকেশনের কাগজপত্র।

Swami Vivekananda Scholarship এর আর্থিক সুবিধা বিভিন্ন কোর্সের উপর নির্ভর করে থাকে। এই স্কলারশীপ মাসিক ১০০০ টাকা হতে মাসিক ৫০০০ টাকা পর্যন্ত হতে পারে।

উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের কোর্সের জন্য মাসিক ১০০০ টাকা, স্নাতক কোর্সের জন্য মাসিক ১০০০ টাকা হতে ১৫০০ টাকা, মাস্টার্স কোর্সের জন্য মাসিক ২০০০ টাকা থেকে ২৫০০ টাকা, Mphil কোর্সের জন্য মাসিক ৫০০০ টাকা হয়ে ৮০০০ টাকা পর্যন্ত দেয়া হয়ে থাকে।

আজ আমরা Swami Vivekananda Scholarship এর বিস্তারিত জানতে পারলাম। পশ্চিমবঙ্গের সরকারের অর্থায়নে এই স্কলারশীপের ফলে সমাজের পিছিয়ে পড়া অনেক দরিদ্র ও মেধাবী ছাত্রছাত্রী তাদের শিক্ষা জীবন চালিয়ে যেতে পারে এবং উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত হবার সু্যোগ পায়।

পরবরতীতে আপনাদের জন্য আরো বিস্তারিত তথ্য নিয়ে আলোচনা করবো। আরো অনেক স্কলারশীপ নিয়ে জানতে চোখ রাখুন আমাদের সাইটে।

Scholarship ছাড়াও বিভিন্ন রকমের Investments, Insurance, Loan, LIC Policy, Mutual Funds ইত্যাদি Financial ব্যাপারে বাংলাতে জানার জন্য আমাদের ওয়েবসাইটে নজর রাখুন। এখানে পাবেন এই সকল বিষয়ে দুর্দান্ত গাইড যা আপনাকে আপনার টাকা সুরক্ষিত ভাবে বিনিয়োগ এবং অন্যান্য ব্যাপারে সাহায্য করবে। আপনাদের যে কোন পরামর্শ, প্রশ্ন আমাদের কমেন্টের মাধ্যমে জানানোর জন্য অনুরোধ করা হলো।

Leave a Comment