2022 লেখাপড়া না জানা মানুষ এই ব্যাবসা করে 10-12000 টাকা উপার্জন করুন

3.9
(39)

Small Business Ideas for Uneducated Person 2022: পৃথিবীতে এমন মানুষ ও আছেন যাদের কিনা আর্থিক অনটনের কারণে পড়াশোনা করার মত ক্ষমতা থাকেনা। শুধুমাত্র প্রতিদিনের খাবার টুকু জোগাড় করতে গিয়ে তাদের প্রাণ হাতে নিয়েও কাজ করতে হয়।

তবে আজকাল নিরক্ষরতা দূরীকরণ হয়েছে অনেকাংশে। উচ্চশিক্ষায় শিক্ষিত না হলেও সামান্য শিক্ষা অর্জন করতে আজকে অনেকেই সক্ষম।

Small Business Ideas for Uneducated Person in Bengali
Small Business Ideas for Uneducated Person in Bengali

আপনি যদি এমন কোন মানুষের খোঁজ পেয়ে থাকেন যারা কিনা একেবারেই পড়াশোনা জানেন না অথবা খুব অল্প পরিমাণে পড়াশোনা করেছেন, তাদেরকে আপনি কিছু টাকা উপার্জন করা ব্যবসা সম্পর্কে আইডিয়া দিতে পারেন। যার ফলে সেই ব্যক্তি নিজের জীবিকা নির্বাহ করার জন্য একটি সুন্দর পথ খুঁজে পান।

চলুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক, এমন কিছু ব্যবসার আইডিয়া যা কিনা লেখাপড়া না জানা এবং কম লেখাপড়া জানা মানুষ অনায়াসেই করতে পারবেন এবং তা থেকে ভালো মত একটা উপার্জন করতে পারবেন:-

দুধের হোম ডেলিভারি ব্যবসা:

সকালে ঘরের দরজায় সবার প্রথমে দুধের প্যাকেট তারাই দিয়ে যান যারা এই ব্যবসা করে থাকেন অর্থাৎ দুধের হোম ডেলিভারি ব্যবসা করে থাকেন। যারা কিনা প্রতিদিন সকালে লোকের ঘরে ঘরে গিয়ে দুধ দিয়ে আসেন।

তাছাড়া এই সমস্ত লোক বেশিরভাগ ক্ষেত্রে লেখাপড়া না জানা হয়ে থাকেন। কিন্তু অনেকেই হয়তো মনে করতে পারেন যে এরা নিজেদের কেন ডেয়ারি ফার্ম খুলতে পারেন না, সবার ঘরে ঘরে গিয়ে দুধ দিয়ে আসার কাজ কেনইবা করে থাকেন! সেক্ষেত্রে একটা কথা বলে রাখা ভালো যে, দুধের ডেয়ারি খুলতে গেলে অনেক টাকার প্রয়োজন পড়ে, সেই টাকা অথবা পুঁজি তাদের কাছে থাকেনা।

আর তাছাড়া বাড়িতে গিয়ে দুধ নিয়ে আসার পরিবর্তে ঘরে বসে দুধ পেয়ে যাওয়ার বিষয়টা মানুষ ভীষণ উপভোগ করেন, এই কারণে তারা বেশি টাকা দিতেও প্রস্তুত আছেন, আর সেই জন্য এসব লোক এই দুধের হোম ডেলিভারির ব্যবসা থেকে ভালো মত একটা উপার্জন করতে পারেন।

শুধুমাত্র সকাল টুকুই কাজ করে মাসে ১০ থেকে ১২ হাজার টাকা উপার্জন করা যেতে পারে।

গাড়ি ধোয়ার সেন্টার:

অল্প লেখাপড়া জানা মানুষ কিন্তু গাড়ি ধোয়ার সেন্টার খুলতে পারেন, তা থেকেও ভালো মত একটা উপার্জন আছে। আজকের সময় বেশিরভাগ মানুষের কাছে গাড়ি থেকে থাকে, দু চাকা থেকে চার চাকা বেশিরভাগ মানুষের কাছে আজকে আছে।

আপনার বাড়ির আশেপাশে জায়গা থাকলে অথবা বাজার এর কাছে আপনি এই গাড়ি ধোয়ার সেন্টার খুলতে পারেন। এর থেকে আপনি ১৫ থেকে ২০ হাজার টাকা প্রতি মাসে উপার্জন করতে পারবেন।

বিভিন্ন রকমের সবজির ব্যবসা:

শুধুমাত্র লেখাপড়া জানলেই যে লক্ষ টাকা রোজগার করা যায় এমন ধারনা কিন্তু ভুল, যদি কোন কিছু মন দিয়ে, কঠোর পরিশ্রম দিয়ে করা যায় তাহলে  বেশি লেখাপড়ার দরকার পড়ে না, গ্রামের অল্প শিক্ষিত এবং অশিক্ষিত মানুষ এই সবজি ব্যবসা করে প্রচুর টাকা রোজগার করতে পারেন।

পাইকারি দামে সবজি কিনে এনে তা থেকে কিছুটা পরিমাণ লাভ রেখে আপনি সেগুলিকে স্থানীয় বাজারে অথবা বাড়িতে বাড়িতে বিক্রি করতে পারেন, এই ব্যবসা করতে গেলে অধিক পরিমাণে ইনভেস্ট এর কোনো প্রয়োজন নেই।

প্রতিদিন তাজা সবজি সবাই পেতে চান, তাই বাজারে যেতে হয় সবাইকে। আপনি প্রতিদিন প্রায় ৩০০ টাকার সবজি কিনে সেই সবজি গুলিকে ১০০০ টাকা পর্যন্ত বিক্রি করতে পারেন, আর সেই কারণে এই ব্যবসাটি লাভ দায়ক একটি ব্যবসা।

পাংচার অথবা গাড়ির চাকায় হাওয়া দেওয়া ব্যবসা:

গাড়ি সে ছোট হোক অথবা বড় পাংচার তো হবেই। তার জন্য টায়ার এবং টিউব ঠিক করার জন্য লোক এরকম দোকান খুঁজে থাকেন। যেখানে টায়ার এবং টিউব  বদল করে নতুন লাগানো যায়, আর সেই জন্য এই ব্যবসা করতে গেলে আপনাকে শিক্ষিত হতে হবে না, এই সম্বন্ধে বিশেষ তথ্য আপনার মধ্যে থাকলেই চলবে।

তবে একটা কথা বলা জরুরী যে এই ব্যবসা শুরু করতে গেলে আপনাকে প্রথমে কিছু প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কিনতে হতে পারে, তার জন্য হয়তো ইনভেস্ট লাগতে পারে আপনার, তবে সেটা খুবই অল্প পরিমাণে। এই ব্যবসা থেকে আপনি প্রতিমাসে ১২ থেকে ১৫ হাজার টাকা আয় করতে পারবেন।

চায়ের (স্টল) দোকান:

নামটা শুনলে মনে হয় এ থেকেই বা কেমন রোজগার হতে পারে, তবে একটা কথা খেয়াল রাখতে হবে যে চা এমন একটা পানীয় যা থেকে আপনি হাজার অথবা লাখ নয় কোটি টাকাও রোজগার করতে পারেন। তবে তার মধ্যে আপনার ব্যবসা করার ক্ষমতা, চায়ের কোয়ালিটি, আপনার চায়ের দোকানে অথবা স্টলে গ্রাহকদের ভিড় তার একমাত্র কারণ হতে হবে।

তাছাড়া আমাদের দেশে মানুষের সকাল হয় চায়ের সাথে, বেশিরভাগ মানুষ ঘর থেকে বাইরে বেরিয়ে চায়ের স্টলে গিয়ে চা পান করতে বেশি পছন্দ করেন, যখন কোন কাজ থেকে কেউ ফ্রি হয়ে থাকেন তখনই চা পান করে থাকেন, এরকম চায়ের স্টল বিভিন্ন গলিতে, স্কুল কলেজের পাশে, অফিসের পাশে, অফিসের মধ্যে ক্যান্টিনে, হোটেলের মধ্যে সব জায়গাতে কমবেশি আছে।

তবে এই ব্যবসা থেকে অধিক পরিমাণে উপার্জন করা যায় বলে, আজকাল অল্প শিক্ষিত বা অশিক্ষিতরাই শুধু এই ব্যবসা করছেন না, অনেক শিক্ষিত তরুণ-তরুণীরা এই ব্যবসাতে নিজেদেরকে নিযুক্ত করে ফেলেছেন।

এই ব্যবসা থেকে কম করে ১০ থেকে ১২ হাজার টাকা প্রতি মাসে আয় করা সম্ভব এবং বলে রাখা ভালো যে বিভিন্ন রকমের স্বাদের চা তৈরি করে এই ব্যবসা করতে পারলে এই ব্যবসাটি আপনার জন্য ভীষণ লাভ দেওয়া একটি ব্যবসা। ব্যবসাটিতে বেশি পরিমাণে ইনভেস্ট আপনাকে করতে হবে না।

যেটুকু ইনভেস্ট করতে হবে, তা চা বানানোর জন্য যা যা উপকরণ লাগে এবং এই ব্যবসাটি চালানোর জন্য সামান্য পরিমাণ যে উপকরণগুলি প্রয়োজন, এগুলি কিনতেই লাগবে। তার থেকে আলাদা কিছু কিনতে হবে না আপনাকে।

প্রতিটি ব্যবসাই লাভ দায়ক, আপনি যদি সেটাকে মন দিয়ে, ভালোভাবে গুছিয়ে, গ্রাহকদের সন্তুষ্ট করার পাশাপাশি এই ব্যবসাটি ভালোভাবে চালিয়ে নিয়ে যেতে পারেন, সে ক্ষেত্রে আপনি অধিক লাভের দেখা পেতে পারেন নিঃসন্দেহে।

আপনাদের এই তথ্য কেমন লেগেছে?

এই পোস্টে মতামত দিতে একটি স্টারে ক্লিক করুন!

Average rating 3.9 / 5. Vote count: 39

No votes so far! Be the first to rate this post.

যেহেতু আপনি এই পোস্টটি দরকারী বলে মনে করেছেন ...

সোশ্যাল মিডিয়াতে আমাদের অনুসরণ করুন!

আমরা দুঃখিত যে এই পোস্টটি আপনার জন্য দরকারী ছিল না!

চলুন আমাদের এই পোস্ট উন্নত করা যাক!

আমাদের বলুন কিভাবে আমরা এই পোস্ট উন্নত করতে পারি?

Leave a Comment