সফেদা চাষের সঠিক ও সহজ পদ্ধতি – Sapodilla Cultivation Method in Bangla

সফেদা খুব সুস্বাদু ও মিষ্টি জাতীয় একটি ফল। এর বাইরের রঙ অনেকটা মেটে জাতীয় । এতে রয়েছে প্রচুর পরিমানে শর্করা ও খনিজ লবন। এর পানীয় খুব শীতল হয়ে থাকে। এটি জ্বর নাশক হিসেবে ও কাজ করে।

Sapodilla Cultivation Method in Bangla
Sapodilla Cultivation Method in Bangla

বাংলাভূমি সাইটে নিয়মিত আমরা আপনাদের সাথে নানা বিষয় নিয়ে আলোচনা করে থাকি। এর ফলে আপনারা কৃষি জমি, শিক্ষা, অর্থনীতি এসব বিষয়ে জ্ঞান লাভ করে থাকেন। বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন প্রয়োজনে আপনারা এ সকল  তথ্য থেকে উপকৃত হয়ে থাকেন।

আজ আমরা আপনাদের সাথে সফেদা চাষের পদ্ধতি নিয়ে আলোচনা করব। এতে করে আপনারা সহজেই সফেদা চাষের বিস্তারিত জানতে পারবেন। চলুন দেখে নেই সফেদা চাষের বিস্তারিত ঃ

জমি ও মাটি ঃ

যেসব জায়গায় বৃষ্টিপাত বেশি হয়ে থাকে সেসব অঞ্চলে সফেদা ভালো জন্মে। প্রায় সব ধরনের মাটিতেই সফেদা ভালো হয় তবে দোআঁশ ও বেলে দোআঁশ মাটি সফেদা চাষের জন্য বিশেষ উপযোগী।

সফেদা চাষে জমি উচু হতে হবে এবং জল নিকাশের ব্যবস্থা থাকতে হবে। মাটি ঝুরঝুরে হতে হবে।

বংশ বিস্তারঃ

বীজ থেকে বা কলমের মাধ্যমে চারা তৈরি করা হয়ে থাকে। বীজ থেকে যে চারা তৈরি করা হয়ে থাকে তাতে ফল আসতে ৭-৮ বছর সময় লাগে। সফেদার বীজ থেকে চারা তৈরি করতে হলে বীজ টিকে আগে ২-১ দিন জলে ভিজিয়ে রাখা উচিত। তারপর মাটিতে রোপন করলে ভালো ফল পাওয়া যাবে।

কলমের মাধমে ও চারা তৈরি করা যায়। সাধারনত জোড় কলমের মাধ্যমে সফেদার বংশবিস্তার হয়ে থাকে। কলম থেকে যে চারা বাছাই করা হবে তা যেন রোগ মুক্ত হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। চারা বয়স এক থেকে দেড় বছর হতে হবে।

জমি তৈরি ঃ

জমি ভালো ভবে চাষ ও মই দিয়ে তৈরি করে নিতে হবে। জমিতে জল জমে না এমন উচু জমি নির্বাচন করতে হবে। জমি ২-৩ বার চাষ দিয়ে নিতে হবে।

রোপন পদ্ধতি ঃ

সফেদার চারা রোপন করার জন্য জমিতে বর্গাকারে বা ষড়ভূজ আকারে চারা রোপন করতে হবে। এছাড়া যদি পাহাড়ি জমিতে চাষ করা হয় তাহলে কন্টুর পদ্ধতিতে চারা রোপন করতে হবে।

রোপন সময় ঃ

সফেদার চারা রোপন করার উপযুক্ত সময় হলো মে মাস থেকে সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত।

চারা রোপন দূরত্ব ঃ

সফেদার জাত ও জমির মাটির বিভিন্নতা অনুযায়ী ৫-৬ মিটার দূরত্বে চারা রোপন করা উচিত।

গর্ত তৈরি ঃ

চারা রোপন করার আগে গর্ত তৈরি করে নিতে হবে। গর্তের আকার হবে ৫০×৫০×৫০ সেমি। গর্ত তৈরি করার পর তাতে সার প্রয়োগ করতে হবে।

প্রতিটি গর্তে ২০-৩০ কেজি পচা গোবর সার প্রয়োগ করতে হবে। সার মাটির সাথে ভালোভাবে মিশিয়ে দিয়ে গর্ত ভরাট করে দিতে হবে।

তারপর গর্তের মাঝখানে চারা রোপন করতে হবে। চারা রোপন করার সময় খেয়াল রাখতে হবে চারার গোড়া যেন সোজা থাকে। চারাটি যেন গর্তের মাঝখানে থাকে।

চারা যেন হেলে না পড়ে তার জন্য খুটি পুতে দিতে হবে। প্রয়োজনে জল সেচ দিতে হবে।

সার প্রয়োগঃ

ভালো ফলন পেতে হলে জমিতে প্রয়োজনীয় সার প্রয়োগ করতে হবে। গাছ লাগানোর পর এক বছর পরে গাছে সার প্রদান করতে হবে। সার প্রয়োগ করতে হবে বর্ষার আগে।

প্রতি গাছে গোবর সার ২৫-৩০ কেজি, ইউরিয়া ১০০ গ্রাম, টিএসপি ১৫০ গ্রাম, এমওপি ১৫০ গ্রাম প্রয়োগ করে দিতে হবে। গাছের বয়স বৃদ্ধির সাথে সাথে সারের পরিমান বাড়বে।

সবগুলো সার তিন কিস্তিতে প্রয়োগ করতে হবে। প্রথম কিস্তি দিতে হবে বর্ষাকালের শুরুতে ফল আহরন করার পর, দ্বিতীয় কিস্তি দিতে হবে বর্ষাকাল শেষ হবার পর সেপ্টেম্বর মাস থেকে অক্টোবর মাস পর্যন্ত। তৃতীয় কিস্তি দিতে হবে ফুল আসার পর।

আগাছা দমনঃ

জমিতে আগাছা থাকলে তা দমন করে দিতে হবে। আগাছা গাছের বৃদ্ধি বাধাগ্রস্থ করে। তাই গাছের গোড়ায় যেন আগাছা না থাকে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

সেচ ব্যবস্থাপনা:

সফেদা গাছ গরম আবহাওয়া সহ্য করতে পারে তাই সফেদা গাছে তেমন সেচ দেওয়ার দরকার হয় না। তবে উন্নত ফলন পেতে হলে মাঝে মাঝে হালকা সেচ দেওয়া ভালো।

চারার ভালো বৃদ্ধির জন্য শুকনা মৌসুমে ১০-১৫ দিন পর পর সেচ দেওয়া ভালো। গাছে ফল ধরলে ফল পরিপক্ক হওয়া পর্যন্ত গাছের গোড়ায় সেচ দিতে হবে।

তবে গোড়ায় যেন জল জমে না থাকে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। প্রয়োজনে নালা তৈরি করে দিতে হবে।

পরিচর্যাঃ

গাছের কাঠামো সুন্দর রাখার জন্য মাঝে মাঝে ডাল ছাটাই করে দিতে হবে। কলম থেকে চারা তৈরি করা হলে গাছের নিচ থেকে অনেক ডাল গজায় সেগুলো ছাটাই করে দিতে হবে।

রোগ দমন ব্যবস্থাপনাঃ

সফেদা গাছে কোন মারাত্নক রোগ দেখা দেয় না। তবে পাতায় এক ধরনের দাগ পড়তে দেখা যায়।  আবার কান্ড ছিদ্রকারি এক ধরনের পোকার আক্রমন দেখা যায়।

পাতায় দাগ দেখা গেলে প্রতি লিটার জলের সাথে ২ গ্রাম ডাইথেন এম ৪৫ মিশিয়ে স্প্রে করতে হবে। আর কান্ড ছিদ্রকারি পোকা দমন করার জন্য কেরোসিন ব্যবহার করা যেতে পারে।

ফল সংগ্রহঃ

ফল পরিপক্ক হবার পর তা সংগ্রহ করতে হবে। ফল যখন শক্ত থাকবে তখনই সংগ্রহ করার উপযুক্ত সময়। ফলের খোসায় যখন হালকা কমলা রঙ দেখা যাবে তখন ফল সংগ্রহ করতে হবে।

ফলনঃ

সঠিক উপায়ে যত্ন নিতে পারলে একটি সফেদা গাছ থেকে ৩৫০-৫৫০টি ফল পাওয়া যেতে পারে।

Leave a Comment