PM Sukanya Samriddhi Yojana 2022: Online Registration & Eligibility

যোজনার নামসুকন্যা সমৃদ্ধি যোজনা
যোজনা শুরু করেছেনকেন্দ্র সরকার
উদ্দেশ্যদেশের কন্যাদের ভবিষ্যৎ উজ্জ্বল করা
লাভবানদেশের কন্যা সন্তানরা

লকডাউন ও করোনা কালের পরিস্থিতি যত তীব্র হচ্ছে ততই আর্থিক অনটনের সম্মুখীন হচ্ছে ক্ষুদ্র সংসার গুলি।যার ফলে শিশু সন্তানদের ভবিষ্যত চিন্তা আরও ভাবাচ্ছে প্রতিনিয়ত।


তাই মেয়েদের ভবিষ্যত উজ্জ্বল করতে ভারত সরকারের পক্ষ থেকে সুকন্যা সমৃদ্ধি যোজনার মত প্রকল্প চালু করা হয়েছে।যে সমস্ত মেয়ে সন্তানদের টাকার অভাবে অল্প বয়সেই বিয়ে দেওয়া হচ্ছে বিশেষ করে সেই সব মেয়েদের জন্য এই প্রকল্প।


এই যোজনার মধ্যে দিয়ে মেয়েদের জন্য একটি নির্দিষ্ট অনুপাতে টাকা সঞ্চয় করা যাবে।যা একটি স্বল্প সঞ্চয় প্রকল্প।এই প্রতিবেদনে আমরা জেনে নেব এই প্রকল্পের সুযোগ সুবিধা টাকার পরিমাণ এবং আরও অন্যান্য বিষয়।

জেনে নেওয়া যাক এই প্রকল্পের মাধ্যমে কীভাবে টাকা পাওয়া যাবে এবং কী কী করতে হবে।


প্রাথমিক করনীয়:

কন্যা সন্তানের বয়স ২ থেকে ১০ বছরের মধ্যে বাবা মা কে এই যোজনার জন্য একটি অ্যাকাউন্ট খুলতে হবে। তবে অবশ্যই কন্যা সন্তানের নামেই সেই ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট খুলতে হবে বাবা মা শুধু আমানতকারী হিসেবে টাকা জমা দিতে পারবেন।


একটি কন্যা সন্তানের নামে একটিই আ্যকাউন্ট খোলা যাবে। এবং একজনই অভিভাবক সেই অ্যাকাউন্ট এর আমানতকারী হতে পারেন।


১. অ্যাকাউন্ট খুলতে কী কী প্রয়োজন:

  • অভিবাবকের পরিচয়পত্ররে প্রমাণ। ভোটার কার্ড, প্যান কার্ড, বা আধার কার্ড

  • কন্যা সন্তানের জন্ম পত্রিকা

  • অ্যাকাউন্ট খোলার একটি ফর্ম

  • বাবা মায়ের স্থায়ী ঠিকানার প্রমাণ পত্র।


২. কোথা থেকে এই অ্যাকাউন্ট খুলতে পারবেন:

এই যোজনার অ্যাকাউন্ট পোস্ট অফিস থেকে খুলতে পারবেন এছাড়াও স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া, পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্ক, ব্যাঙ্ক অফ বরোদা, ব্যাঙ্কঅফ ইন্ডিয়া, কানাডা ব্যাঙ্ক, অন্ধ্রা ব্যাঙ্ক, ইউকো ব্যাঙ্ক এবং এলাহাবাদ ব্যাঙ্কে খোলা যেতে পারে।


ভারত সরকারের অনুমোদিত ব্যাঙ্ক থেকে এই অ্যাকাউন্ট খোলা সম্ভব।এই অ্যাকাউন্ট খোলার ফর্মটি RBI এর ওয়েবসাইট থেকে ডাউনলোড করা যাবে।


৩. সুকন্যা সমৃদ্ধি অ্যাকাউন্ট খোলার জন্য আরও কিছু প্রয়োজনীয় তথ্য:

  • অ্যাকাউন্টটি ১০০০/- টাকার বিনিময়ে খোলা যাবে। আগে সর্বোনিম্ন বিনিয়োগ ১০০০/- ছিল যা এখন তা কমিয়ে ২৫০/- করা হয়েছে।

  • প্রতিটি আ্যকাউন্টের জন্য প্রতি বছরে ন্যূনতম ১০০০/- টাকা জমা করতে হবে। প্রতিটি আ্যকাউন্টে সর্ব্বোচ্চ ১,৫০,০০০/- টাকা জমা করা যেতে পারে।

  • অভিভাবকদের কেবল ১৪ বছর পূর্তি পর্যন্ত আ্যকাউন্টে টাকা জমা করতে হবে। 

  • মোট জমা পরিমাণের 50% উত্তোলন করা যাবে তবে কন্যা সন্তানের বছর ১৪ না হওয়া পর্যন্ত তোলা যাবে না।

  • বছরে ৯.১ শতাংশ হারে সুদের পরিমাণ (9.1% Interest Rate) এই প্রকল্পটি  রয়েছে। যদিও, প্রতি বছর এপ্রিল মাসে এটির সংশোধন করা যাবে।

  • অ্যাকাউন্ট খোলার তারিখ থেকে আমানতগুলি 14 বছর পর্যন্ত করা যেতে পারে।এই সময়ের পরে, অ্যাকাউন্টটি প্রযোজ্য হার অনুসারে কেবল সুদ অর্জন করবে।

  • ন্যূনতম বার্ষিক আমানতের 1000 টাকা জমা না দিলেলে এসএসওয়াই অ্যাকাউন্টটি নিষ্ক্রিয় হয়ে যাবে।

  • যদি অ্যাকাউন্টে ন্যূনতম টাকা জমা না হয়, তবে ৫০/- টাকা অর্থদন্ড হিসাবে ধার্য করা হয়।

  • একটি অ্যাকাউন্ট যে তারিখে খোলা হয়েছে সেই তারিখ থেকে 21 বছর পর পরিপক্ক হবে।

  • অর্থাৎ ১.৫ লাখ করে সঞ্চয় করলে ২১ বছর পরে তার পরিমাণ ৭৯ লাখ টাকা হতে পারে।

  • প্রতিটি আ্যকাউন্টে সর্ব্বোচ্চ ১,৫০,০০০/- টাকা জমা করা যেতে পারে। প্রতি আর্থিক বছরে আমানতের সংখ্যার কোনও সীমাবদ্ধতা নেই।

  • সর্বোচ্চ দুজন কন্যা সন্তানের জন্য এই অ্যাকাউন্ট খোলা সম্ভব তবে যমজ সন্তানের জন্য নিয়মে ছাড় রয়েছে তার জন্য ডাক্তার নার্সিং হোমের লিখিত পত্র জমা দিতে হবে।

  • কেন্দ্রীয় সরকার জুলাই ত্রৈমাসিকে এই প্রকল্পের সুদের হার ৭.৬ শতাংশ স্থির করেছে।

  • সরকার থেকে জানানো হয়েছে গতবছর ২০ মার্চ থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত লকডাউন চলাকালীন যে সমস্ত শিশুকন্যার বয়স ১০ বছর পেরিয়ে গিয়েছে আগামী ৩১ জুলাই বা তার আগে তাদের নামে সুকন্যা সমৃদ্ধি অ্যাকাউন্ট খোলা যেতে পারে বলে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে।

  • নগদ, চেক বা ডিমান্ড ড্র্যাফ্টের মাধ্য়মে ডাকঘর বা ব্যাংকে টাকা জমা করা যাবে। এছাড়াও CBS পদ্ধতির সহায়তা নিয়ে ই-ট্রান্সফারও সম্ভব।

  • আয়কর আইনের ৮০ সি ধারায় এই প্রকল্পে বিনিয়োগে করছাড় পাওয়া যায়। এছাড়াও এই যোজনায় পাওয়া সুদ এবং ম্যাচিওরিটির টাকার উপরও কর দিতে হবে না। এবং যিনি আমানতকারী শুধুমাত্র তিনি কর ছাড় পাবেন। তবে সেক্ষেত্রে বাবা মা দুজনেই নয় একজন অভিভাবক পাবেন

  • কন্যার বিয়ের পূর্ব পর্যন্ত এই অ্যাকাউন্টের মেয়াদ থাকবে।

  • বাজারে স্থিত সুদের হারের মধ্যে সেরা এবং সর্বোচ্চ পরিপক্কতার পরিমাণ কন্যা সন্তানকে দিতে হবে।

  • এই অ্যাকাউন্ট স্থানান্তর যোগ্য অর্থাৎ ভারতের যে কোনো জায়গায় এই অ্যাকাউন্ট স্থানান্তর করতে পারবেন।

  • কন্যার ১৮ বছর বয়স না হওয়া পর্যন্ত কেউ টাকা তুলতে পারবেন না। শুধুমাত্র উচ্চশিক্ষার জন্য ১৮ বছর পরে ৫০% টাকা তোলা যাবে।

  • আইন অনুসারে কন্যা সন্তানের বাবা বা মা যতদিন চায় ততদিন এই অ্যাকাউন্ট চালিয়ে যেতে পারেন তবে মেয়ে ১৮ বছরের পরে সক্রিয় হলে মেয়েও এই অ্যাকাউন্টটি চালানোর অধিকার লাভ করবে।

  • দুভার্গ্যজনক ভাবে যদি কন্যা সন্তানের অকাল মৃত্যু ঘটে তবে ব্যালেন্সের পরিমাণ এবং অ্যাকাউন্ট খোলার দিন থেকে জমা সুদের জন্য অভিভাবক দাবী করতে পারেন।

  • এছাড়াও জরুরী ভিত্তিতে টাকা উত্তোলন সম্ভব যেমন কন্যা সন্তান গুরুতর অসুস্থ হলে।

  • কন্যার বিবাহের অনুষ্ঠানের জন্য মেয়াদ সম্পূর্ণ হওয়ার আগেই অ্যাকাউন্টটি বন্ধ করে দেওয়ার বিকল্পের সুযোগ রয়েছে।

  • বলাই বাহুল্য এটি কম ঝুঁকি পূর্ণ এবং স্থায়ী একটি বিনিয়োগ।

  • এই যোজনার থেকে উচ্চতর সুদ প্রাপ্তি ঘটে।


আজকের দিনে দাঁড়িয়েও মেয়ে বা কন্যা সন্তানদের প্রতি অবহেলা কমে নি। আধুনিকতার শিখড়ে পৌঁছেও অনেক কন্যা শিশু পড়াশোনার সুযোগ থেকে অবহেলিত বঞ্চিত। তাদেরকে আশার আলো দেখাতেই এই সুকন্যা সমৃদ্ধি প্রকল্পের সূচনা।


এই প্রকল্পের কাজ শুরু হয়েছে ২০১৫ সাল থেকে।ফলে ২১বছর পূর্ণ হয়নি কোনো অ্যাকাউন্টের,তাই এই অ্যাকাউন্টটি বন্ধ করার ক্ষেত্রে কি কি করা যাবে সে বিষয়ে পরিষ্কার কোনো কোনো গাইডলাইন সেভাবে পাওয়া যায় নি।

Leave a Comment