Pradhan Mantri Gram Sadak Yojana 2022: Benefits & Vision

প্রধানমন্ত্রীর গ্রাম সড়ক যোজনা (Pradhan Mantri Gram Sadak Yojana – PMGSY), ভারতের যেসব গ্রামের কোন উন্নত সড়ক নেই বিধায় যোগাযোগ ব্যবস্থা খুবই খারাপ সেই গ্রামগুলিতে সকল-আবহাওয়ার সাথে উপযোগী হবে এমন রাস্তা নির্মাণের লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর গ্রাম সড়ক যোজনা (PMGSY) চালু করা হয়েছিল।

এটি একটি কেন্দ্রীয় পৃষ্ঠপোষকতা প্রকল্প এবং সরকারের দারিদ্র্য বিমোচন কৌশলগুলির একটি অংশ।

প্রকল্পের জন্য যোগ্যতা: সমতল অঞ্চলে ৫০০ এবং তার বেশি জনসংখ্যার গ্রামীণ অঞ্চল; এবং পার্বত্য রাজ্যগুলি সহ মরুভূমি রাজ্যগুলি, উপজাতীয় অঞ্চলগুলি এবং অন্যান্য পশ্চাদপদ অঞ্চলগুলিতে ২৫০ বা তার জনসংখ্যা রয়েছে যেসব গ্রামে, সেসব গ্রামে উন্নত সড়ক তৈরি করা হবে।

Pradhan Mantri Gram Sadak Yojana in Bangla
Pradhan Mantri Gram Sadak Yojana in Bangla

নতুন রাস্তা নির্মাণ ছাড়াও এই অঞ্চলে বিদ্যমান রাস্তাগুলি মেরামত করাও এই প্রকল্পের আওতাভুক্ত রয়েছে, যদিও প্রাথমিক দৃষ্টি নিবদ্ধ করা হচ্ছে যেসব গ্রামে মোটেই উন্নত সড়ক নেই সেসব স্থানে সড়ক নির্মাণের উপরই জোর দেওয়া হচ্ছে।

অল ওয়েদার রোড বলতে এমন রাস্তা বোঝায় যে রাস্তাগুলি সমস্ত মৌসুমে সারা বছর ব্যবহার করা যায়। অল ওয়েদার রোড বা সকল ধরনের আবহাওয়ায় ব্যবহার উপযোগী রাস্তা নির্মাণের জন্য, প্রকল্পটিতে পর্যাপ্ত ক্রস-ড্রেনেজ কাঠামোগুলি নির্মান করা হবে যেমন কালভার্ট, ছোট ব্রিজ এবং কোজওয়ে এবং এসবের মাধ্যমে রাস্তাগুলি থেকে জল নিষ্কাশনের জন্য ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সুপ্রিয় পাঠক, ভারতের সর্বস্তরের মানুষের জীবনযাত্রার মান উন্নত করতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী যেসব প্রকল্প হাতে নিয়েছেন তার মধ্যে প্রধানমন্ত্রী গ্রাম সড়ক যোজনা অন্যতম।

আজ আমাদের আয়োজন সাজানো হয়েছে গ্রাম সড়ক যোজনা সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা নিয়ে। চলুন দেরী না করে মূল আলোচনায় যাওয়া যাক।

 

গ্রাম সড়ক যোজনার উদ্দেশ্য ও আওতা

প্রধানমন্ত্রী গ্রাম সড়ক প্রকল্পের আওতায় কোন পাকা রাস্তার পৃষ্ঠের অবস্থা খারাপ থাকলেও, তা মেরামত করা এই প্রকল্পের আওতাভুক্ত নয়।

এই প্রকল্পের আওতায় পাকা রাস্তা মেরামতের জন্য কোন ফান্ড গঠন করা হয়নি। এই প্রকল্পের আওতায় যে ফান্ড গঠন করা হয়েছে তার মূল উদ্দেশ্য অনগ্রসর গ্রামগুলোকে শহরের সাথে যোগাযোগের ব্যবস্থা করা, এবং দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের পাহাড়ী এলাকায় সড়ক নির্মাণ করা।

পাহাড়ি এলাকায় সড়ক নির্মাণের জন্য ফান্ডের অর্থের পরিমাণ বৃদ্ধি করা হয়েছে। এই ফান্ডের গঠন করা হয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার ও উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় পাহাড়ি রাজ্য সরকারের মিলিত অর্থায়নে।

বর্তমানে, প্রকল্পটি তৃতীয় পর্যায়ে রয়েছে – PMGSY – তৃতীয়।

এই প্রকল্পের আওতাভুক্ত রাস্তাগুলি পঞ্চায়েতি রাজ ইন্সটিটিউট দ্বারা রক্ষণাবেক্ষণ করা হয়।

এই প্রকল্পের নোডাল মন্ত্রণালয় হ’ল পল্লী উন্নয়ন মন্ত্রণালয়।

২০১২ সালে, জাতীয় পল্লী সড়ক উন্নয়ন সংস্থা (এনআরআরডিএ), পল্লী উন্নয়ন মন্ত্রণালয়, এবং আইএলওর মত একটি আন্তর্জাতিক সংস্থার সাথে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করার জন্য একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী গ্রাম সড়ক যোজনার তৃতীয় পর্বের উদ্দেশ্য হ’ল বিদ্যমান গ্রাম সড়কের সাথে নতুন নির্মিত সড়কের সংযোগসাধন করা যাতে করে এই সড়কের মাধ্যমে সহজেই শহরের সাথে যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতি হয়।

গ্রাম থেকে শহরে যাওয়া, এবং বিভিন্ন প্রয়োজন ও পণ্যের সরবরাহ এতে গতিশীলতা পাবে। এই সড়কগুলো নির্মানের ফলে বিদ্যমান গ্রামীণ সড়ক নেটওয়ার্ক আরও শক্তিশালী হবে। গ্রামের অনগ্রসরতা অনেকাংশে দূর হবে এই পদক্ষেপের মাধ্যমে।

PMGSY গ্রাম সড়ক যোজনার সুবিধা

গ্রামীণ সড়ক যোজনার দুটি প্রধান সুবিধা রয়েছে যা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এক, এটি সামাজিক ও অর্থনৈতিক সেবার অনুপ্রবেশ বাড়িয়ে গ্রামীণ উন্নয়ন করবে যার ফলে কৃষকদের আয় এবং মানুষের কর্মসংস্থানের সুযোগ বৃদ্ধি পাবে। দ্বিতীয়ত, এটি দারিদ্র্য বিমোচনের মূল উপাদান হিসেবে বিবেচিত হবে।

জাতীয় মহাসড়ক বাদে রাস্তাঘাটের উন্নয়ন রাজ্য সরকারের দায়িত্ব। অপ্রতুল তহবিল এবং পরিকল্পনাকারীদের অমনোযোগের কারণে গ্রামীণ রাস্তাগুলির খুব কমই উন্নয়ন সম্ভব হয়েছে। এই স্কিমটি এই শূন্যস্থান পূরণ করতে এবং উন্নয়নের দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে পৌছে দেওয়ার চেষ্টা করে চলেছে।

Pradhan Mantri Gram Sadak Yojana
Pradhan Mantri Gram Sadak Yojana

সড়ক সংযোগ বৃদ্ধির ফলে গ্রামীণ জনগোষ্ঠী সরকারের দেওয়া কর্মসংস্থান, স্বাস্থ্য, শিক্ষা এবং বিভিন্ন সামাজিক কল্যাণমূলক প্রকল্পের সুযোগ যেকোন সময় সহজে গ্রহণ করতে পারবে।

ভাল রাস্তা থাকলে খামার থেকে বাজারে সহজ ও দ্রুত পণ্য পরিবহন করা সম্ভব হয়। গ্রাম থেকে শহরের বাজারগুলিতে চাহিদানুযায়ী পণ্যগুলির সরবরাহ নিশ্চিত করতে উন্নত গ্রাম সড়কের কোন বিকল্প নেই।

অন্যান্য সুবিধাগুলির মধ্যে রয়েছে গ্রামে প্রাপ্ত কাচামালের দ্বারা ছোটখাটো কুটির শিল্প এবং অন্যান্য শিল্প বা ব্যবসার উন্নয়ন করা, সড়ক ব্যবস্থার উন্নয়নের ফলে উৎপাদিত পণ্য সহজেই শহরের বাজারে বিক্রয় করা সম্ভব হবে। এভাবে অনেক মানুষের কর্মসংস্থান সম্ভব হবে।

এছাড়া, সড়ক ব্যবস্থার উন্নয়ন হলে স্বাস্থ্যকর্মী, শিক্ষক এবং কৃষি সম্প্রসারণ কর্মীদের মতো সরকারী কর্মীদের স্বেচ্ছায় গ্রামে যাওয়ার পরিমাণ বৃদ্ধি পাবে,যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নত হলে তারা তাদের পরিষেবা দেওয়ার উৎসাহিত বোধ করে থাকে।

এটি গ্রামাঞ্চলের সমৃদ্ধিতে অবদান রাখে সর্বস্তরের উন্নতিতে সাহায্য করে। মানুষ যখন শহর থেকে গ্রামমুখী হয়, এবং উন্নত জ্ঞান ও প্রযুক্তি গ্রামে প্রয়োগ করা হয় তখনই গ্রামের মানুষের জীবন-যাত্রার মান উন্নত হয়, আর এটা সম্ভব হয় গ্রাম সড়ক উন্নয়নের ফলে।

প্রধানমন্ত্রী গ্রাম সড়ক যোজনার চ্যালেঞ্জস

তহবিলের ঘাটতি: পল্লী উন্নয়ন মন্ত্রনালয়ের মতে, ২০২০-২৫ থেকে পাঁচ বছরের মেয়াদে নির্মিত রাস্তাগুলির রক্ষণাবেক্ষণের জন্য ৭৫০০০-৮০০০০ কোটি টাকা ব্যয় করতে হবে,

চলতি অর্থবছরে রাজ্যগুলিকে, ১১,৫০০ কোটি টাকা ব্যয় করতে হবে এবং প্রয়োজনীয় পরিমাণ ২০২০-২৫ সালের প্রতি বছর ১৯০০০ কোটি টাকা প্রয়োজন হবে,

কেন্দ্রীয় সরকারের রাজস্ব জমা এবং তহবিল গঠন বেশ চাপের মধ্যে রয়েছে এ কারণে, পর্যাপ্ত পরিমাণে অনুদান সঠিক সময়ে রাজ্যগুলিতে স্থানান্তরিত করা সম্ভব হবে কিনা তা ভবিষ্যদ্বাণী করা কঠিন।

পল্লী উন্নয়ন সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির (চেয়ার: ডঃ পি ভেনুগোপাল) মার্চ ২০১৭ সালে ‘প্রধানমন্ত্রীর গ্রাম সড়ক যোজনা’ সম্পর্কিত যে প্রতিবেদন জমা দিয়েছে, তার প্রতিবেদন অনুসারে, রাজ্য পল্লী সড়ক উন্নয়ন এজেন্সিগুলিতে প্রশিক্ষিত ও অভিজ্ঞ কর্মীদের ঘন ঘন বদলির কারণে প্রকল্পটির উন্নয়ন ও কার্যকারিতা বাধাগ্রস্থ হচ্ছে।

এছাড়া সড়ক নির্মাণে আবহাওয়া, সময়, জমির অভাব, ইত্যাদি বিভিন্ন সমস্যা রয়েছে। ৪৪ টি জেলার জন্য এই প্রকল্পের আওতায় ৫০০০ কিলোমিটার দীর্ঘ সড়ক অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে ৩৫ টি জেলা বামপন্থী চরমপন্থী (এলডাব্লুই) সন্ত্রাস দ্বারা মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে।

অন্তিম কথা

ডিজিটাল ভারত গড়ার জন্য যেসব পদক্ষেপ ও প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে তারমধ্যে প্রধানমন্ত্রী গ্রাম সড়ক যোজনা অন্যতম একটি প্রকল্প।

কিছু সীমাবদ্ধতা থাকলেও এই প্রকল্পের কাজে যথেষ্ঠ পরিমাণ ফান্ড গঠন করা হয়েছে, এবং প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য প্রয়োজনীয় জনবল, প্রযুক্তি, কাচামাল ইত্যাদি সঠিক সময়ে সরবরাহ ও প্রকল্প বাস্তবায়নের উদ্দেশ্য নিরলস কাজ করা হচ্ছে।

আশা করা যাচ্ছে ২০২৫ সাল নাগাদ ভারতের গ্রাম সড়ক ব্যবস্থার অভূতপূর্ব উন্নতি সাধান হবে। আশা করি প্রধানমন্ত্রী গ্রাম সড়ক সম্পর্কে বিস্তারিত জানাতে সক্ষম হয়েছি। আপনারা সরকারি ওয়েবসাইটে http://omms.nic.in/ গিয়ে সকল রিপোর্ট দেখতে পারেন।

সুপ্রিয় পাঠক, আমাদের লেখার উদ্দেশ্য থাকে ভারত সরকারের উন্নয়ন প্রকল্প এবং তার অগ্রগতি সম্পর্কে আপনাদের জানানো, যাতে সেগুলো সম্পর্কে আপনারা অবগত হতে পারেন এবং সুবিধাসমূহ উপভোগ করতে পারেন।

কেন্দ্র সরকারের সমস্ত যোজনাClick Here
পশ্চিমবঙ্গের সমস্ত প্রকল্পClick Here
বাংলাভুমি হোমClick Here

Leave a Comment