কেন্দ্র সরকারের অপারেশন গ্রিনস যোজনা 2022 সুবিধা ও লাভ | 2022 PM Operation Greens Scheme Benefits

অপারেশন গ্রিনস যোজনা 2022 (Operation Greens Scheme 2022): দেশে টমেটো, পেঁয়াজ এবং আলুর মত শীর্ষ ফসলের সরবরাহ স্থিতিশীল করার লক্ষ্যে ২০১৮-২০১৯ বাজেট ইউনিয়ন বাজেটে ভারত সরকার কর্তৃক গৃহীত প্রকল্প অপারেশন গ্রিনস ’। অপারেশন বন্যা বা শ্বেত বিপ্লবের মতই ভারতের অর্থমন্ত্রী অপারেশন গ্রিনস ঘোষণা করেছিলেন।

অপারেশন গ্রিনসের প্রকল্পটি ৫০০ কোটি টাকা ব্যয়ে, কেন্দ্রীয় বাজেটে ২০১৮-২০১৯ সালে ভারত সরকারের খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ শিল্প মন্ত্রনালয় দ্বারা একটি নতুন স্কিম অপারেশন গ্রিনস ঘোষণা করা হয়েছিল। অপারেশন গ্রিনস প্রকল্পটি অপারেশন বন্যার লাইনে রয়েছে এবং এফপিও – কৃষক উৎপাদক সংস্থা, প্রসেসিং সুবিধা, কৃষি-সরবরাহ এবং কৃষিপণ্যের পেশাদার পরিচালনার প্রচার করে।

দেশের কৃষিপণ্যের উৎপাদন বৃদ্ধি এবং কৃষকদের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করার জন্যই অপারেশন গ্রিন প্রকল্পের সূচনা হয়। দেশের কৃষকরা যদি উৎপাদন খরচ অনুযায়ী কৃষিপণ্যের মূল্য না পায় তাহলে তারা কৃষিকাজে আগ্রহ হারিয়ে ফেলবে। আর দেশও কৃষিপণ্য উৎপাদনে পিছিয়ে পড়বে।

mofpi.gov.in Operation Greens Scheme Apply an Eligibility
mofpi.gov.in Operation Greens Scheme Apply an Eligibility

এই সমস্যা দূর করতে স্টোরেজ ব্যবস্থার উন্নয়ন, কৃষির উতপাদন খরচ কমানো, মধ্যস্বত্তভোগীদের দৌরাত্ন বৃদ্ধি ইত্যাদি কমিয়ে কৃষকদের লাভবান করাই এই প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য। সুপ্রিয় পাঠক আজ আমাদের আয়োজন সাজানো হয়েছে অপারেশন গ্রিন সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য নিয়ে যাতে এই তথ্যগুলি দেশের কৃষকদের বিশেষভাবে উপকারে আসে এবং অন্যান্যরা এই প্রকল্প সম্পর্কে জানতে পারেন।

চলুন দেরী না করে মূল আলোচনায় যাওয়া যাক। অপারেশন গ্রিনস প্রকল্প সম্পর্কে জেনে নিন:-

অপারেশন গ্রিনস প্রকল্প

অপারেশন গ্রিনস প্রকল্পের মাধ্যমে সরকার কৃষি উৎপাদন সংস্থা, রাজ্য কৃষি এবং অন্যান্য বিপণন ফেডারেশন, সমবায়, সংস্থা, খাদ্য প্রসেসর, স্বনির্ভর গোষ্ঠী ইত্যাদিকে আর্থিক সহায়তা দেওয়ার পরিকল্পনা করে।

ই-এনএএম প্ল্যাটফর্মগুলি কৃষি উৎপাদন বাজার কমিটির সাথে সংযুক্ত থাকবে যাতে অপারেশন গ্রিনস প্রকল্পের কাঠামোগত এবং অবকাঠামোগত অংশে সহায়তা করতে পারে। এই প্রকল্পের আওতায় ২২,০০০ কৃষি বাজারের উন্নয়নে সরকার সহায়তাও ডিকোড করেছে।

অপারেশন গ্রিনসের উদ্দেশ্য

একই জমিতে কয়েক ধরনের ফসল উৎপাদন, উৎপাদন বৃদ্ধি এবং কৃষিক্ষেত্রে নতুন প্রযুক্তির যথাযথ ব্যবহার দ্বারা গ্রাহক ও উৎপাদকদের জন্য দাম স্থিতিশীলকরণ। শীর্ষস্থানীয় কৃষকদের এফপিও এবং শীর্ষস্থানীয় উৎপাদন ক্লাস্টারগুলিকে শক্তিশালী করতে এবং তাদের বাজারের সাথে সংযুক্ত করার লক্ষ্যে লক্ষ্যভিত্তিক হস্তক্ষেপের মাধ্যমে মূল্যস্তরের উন্নতি করাই এই প্রকল্পের উদ্দেশ্য।

খামারের অবকাঠামো তৈরি, উপযুক্ত সংরক্ষণ ক্ষমতা সম্পন্ন খামার, উপযুক্ত কৃষি-রসদ বিকাশ এবং ভোক্তা কেন্দ্রগুলি সংযুক্ত করে ফসলের ক্ষয় হ্রাস করে ফসলের সংকট দূর করতে পারলে কৃষক এমনিতেই লাভবান হবেন।

দ্রব্যের কম উৎপাদন খরচ এবং ন্যায্য বিক্রয়মূল্য নিশ্চিত করা গেলে কৃষক পণ্য উৎপাদনে আগ্রহী হয়ে উঠবে।

অপারেশন গ্রিনসের প্রয়োজন

অপারেশন গ্রিনস স্কিমের মূল প্রয়োজনীয়তা হচ্ছে ২০২২ সালের মধ্যে কৃষকদের আয় দ্বিগুণ করা। যখন পর্যাপ্ত আধুনিক স্টোরেজ ক্ষমতা না থাকায় উদ্ভিজ্জ পণ্যগুলির উৎপাদন খরচ তীব্রভাবে বেড়ে যায় তখন সবজীর দাম বেড়ে যায়।

কিন্তু যদি পর্যাপ্ত স্টোরেজ সুবিধা থাকত, তাহলে উৎপাদন খরচ এত বৃদ্ধি পেত না, এবং সবজীর দাম ও স্বাভাবিক থাকত। অতএব, প্রকল্পটি তখনই সফল হবে, যখন কৃষকরা পর্যাপ্ত স্টোরেজ সুবিধা ব্যবহার করে কম মূল্যে সবজি উৎপাদন করতে পারবেন।

বেশিরভাগ সময়ই কৃষকরা কৃষিপণ্য বিক্রয় করে যে অর্থ পান তা তাদের উৎপাদন খরচের ১/৪। এর কারণ ভারতে কৃষিপণ্যের পাইকারী মূল্য এর খুচরা মূল্যের তুলনায় অনেক কম। ফলে কৃষক ক্ষতিগ্রস্থ হয় কিন্তু মধ্যস্বত্তভোগী লাভবান হন।

অপারেশন গ্রিনস প্রকল্পটি কৃষিতে অতিরিক্ত পণ্যগুলিতে নয়, মৌলিক উপাদানগুলির সহজলভ্যতা এবং কৃষকদের কৃষিপণ্যের ন্যায্যমূল্য প্রাপ্তির জন্য এই সমস্যাগুলিতে মনোনিবেশ করবে।

অপারেশন গ্রিনস স্কিমের কৌশলসমূহ:

স্বল্প মেয়াদে দাম স্থিতিশীলকরণের ব্যবস্থা

দীর্ঘমেয়াদে ইন্টিগ্রেটেড ভ্যালু চেইন ডেভলপমেন্ট প্রকল্প এবং স্বল্পমেয়াদী মূল্য স্থিতিশীলতা ব্যবস্থা:

শীর্ষ ফসলের জন্য উপযুক্ত সংরক্ষণ ব্যবস্থা এবং স্থানের ন্যায্যভাড়া নিশ্চিত করা। নাফেড (NAFED) দাম স্থায়িত্ব বাস্তবায়নের নোডাল এজেন্সির দায়িত্ব পালন করবে। নাফেডের অর্থ ভারতের জাতীয় কৃষি সমবায় বিপণন ফেডারেশন।

খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ শিল্প মন্ত্রণালয় শীর্ষস্থানীয় ফসলের উৎপাদন থেকে স্টোরেজ পর্যন্ত পরিবহণের জন্য ভর্তুকির ৫০% সরবরাহ করবে।

দীর্ঘমেয়াদী ইন্টিগ্রেটেড ভ্যালু চেইন ডেভলপমেন্ট প্রকল্পগুলি:

অপারেশন গ্রিনস প্রকল্পের পদক্ষেপগুলি:

ফলস উৎপাদনের পর তা সংরক্ষণ,পরিবহন এবং বিপণণ পর্যন্ত যাবতীয় ব্যবস্থার নিয়ন্ত্রণ ও সমন্বয় সাধন করা যাতে প্রতিটি পদক্ষেপ সঠিক হয়। উৎপাদন মানের প্রক্রিয়াজাতকরণ সুবিধা – ফসল কাটার পরে যেমন বিপণন এবং গ্রাহক পয়েন্টগুলিকে যুক্ত করা

শীর্ষ ফসলের চাহিদা ও সরবরাহ ব্যবস্থাপনার জন্য ই-প্ল্যাটফর্ম তৈরি ও পরিচালনা করার পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। ন্যূনতম সংখ্যক মধ্যস্থতাকারীর সাথে গ্রাহক ও উৎপাদন কেন্দ্রকে সংযুক্ত করার প্রয়োজন রয়েছে। এছাড়াও, সংযুক্ত খুচরা বিক্রয়গুলির সাথে প্রসেসিং শিল্পের সংযোগ স্থাপন অত্যাবশ্যক যাতে পণ্যটির প্রায় এক-চতুর্থাংশ প্রক্রিয়াজাত করা সহজ হয়।

সরকার দামের ওঠানামা বন্ধ করতে, ভোক্তাদের জন্য কম দাম নিশ্চিত করতে এবং একই সাথে কৃষকদের পিছিয়ে পড়া বন্ধ করতে গ্রাহক প্রদত্তদামেই দামে কৃষকদের আয়ের পরিমাণ বাড়ানো নিশ্চিত করতে চায়। খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ শিল্পের জন্য বাজেট বরাদ্দকে ১০০% বাড়ানোর ঘোষণা এ ক্ষেত্রে একটি দারুন পদক্ষেপ।

উপসংহার

যেকোন উৎপাদন ও বিপণণের মাঝেই মধ্যস্বত্তভোগীর দৌরাত্ম রয়েছে। কিন্তু এর কারণে কৃষক ক্ষতিগ্রস্থ হয় সেইসাথে গ্রাহকরাও অনেক বেশীমূল্যে পণ্য কিনতে বাধ্য হয়। এটা দেশের কৃষক এবং ভোক্তা দুইশ্রেণীকেই ক্ষতিগ্রস্থ করে ফলে দেশের কৃষি সার্বিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়।

তাই উৎপাদন, সংরক্ষণ, উৎপাদনের খরচ কমানো, কৃষকের পণ্যের জন্য ন্যায্যমূল্য প্রাপ্তি এবং ভোক্তাদের ন্যায্যমূল্যে পণ্যপ্রাপ্তি নিশ্চিত করতে অপারেশন গ্রিনস প্রকল্প গ্রহন করা হয়েছে। আশা করা যায় এই প্রকল্পের মাধ্যমে কৃষকরা উপকৃত হবে, দেশের কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধি পাবে এবং ভোক্তারাও উপকৃত হবেন।

সুপ্রিয় পাঠক, আমাদের লেখার উদ্দেশ্য থাকে ভারত সরকারের উন্নয়ন প্রকল্প এবং তার অগ্রগতি সম্পর্কে আপনাদের জানানো, যাতে সেগুলো সম্পর্কে আপনারা অবগত হতে পারেন এবং সুবিধাসমূহ উপভোগ করতে পারেন। আশা করি পোস্টটি ভাল লাগলে এ বিষয়ে মন্তব্য করে আমাদেরকে উৎসাহ প্রদান করবেন। আজকের মত এখানেই শেষ করছি।

ধন্যবাদ সবাইকে।

HomeClick here
Official WebsiteClick here

Leave a Comment