2022 অনলাইন ম্যাগাজিন ব্যবসা শুরু করার পদ্ধতি কি? | 2022 Online Magazine Business Idea in Bengali

Online Magazine Business Idea 2022 in Bengali | How to Start Online Magazine Business 2022 in India | Online Magazine Business Plan 2022 Details in Bengali, অনলাইন ম্যাগাজিন ব্যবসা 2022 শুরু শুরু করে প্রতিমাসে লাখ টাকা ইনকাম করতে পারেন বাড়িতে বসে, জানুন অনলাইন ম্যাগাজিন ব্যবসা করার সম্পূর্ণ পদ্ধতি।

আমাদের দেশে খবরের কাগজ অর্থাৎ নিউজপেপার এবং ম্যাগাজিন আজ থেকে নয়, অনেক দশক আগে থেকে চলে আসছে। মধ্যবিত্ত পরিবারের সকাল হয় চা আর খবরের কাগজের সাথে। তার সাথে অনেকেই ভালোবাসেন ম্যাগাজিন পড়তে।

Online Magazine Business Idea in Bengali
Online Magazine Business Idea in Bengali

তবে বর্তমান সময়ে সবকিছু এতটাই ডিজিটাল হয়ে গেছে যে, এইরকম খবর এখন  অনলাইনের মাধ্যমে অনেকে দেখে থাকেন। তার সাথে সাথে ম্যাগাজিনও কিন্তু অনলাইন হয়ে গেছে। আর এটি জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। প্রত্যেক মানুষ এই ডিজিটাল ম্যাগাজিন পড়তে এবং দেখতে ভীষণ পছন্দ করছেন।

অনলাইন ম্যাগাজিনের লাভ:

#১) দৃঢ়তা: অনলাইন ম্যাগাজিন ততদিন পর্যন্ত প্রকাশিত হতে থাকবে যতদিন পর্যন্ত পোর্টাল এর কাছে পর্যাপ্ত পরিমাণ তথ্য উপস্থিত থাকবে। যতদিন পর্যন্ত প্রকাশ হতে থাকবে আর এই ম্যাগাজিন সবসময়ের জন্য সুরক্ষিত থাকবে।

#২) ইন্টারেক্টিভ: অনলাইন ম্যগাজিনে ব্যক্তিগত বিভিন্ন রকমের তথ্য বেশি পরিমাণে পাওয়া যায়। অনলাইন মাগাজিনে অন্য কোন লিংকও পাওয়া যায়। যার সাহায্যে অন্য কোন সাইটে খুব সহজেই যেতে পারবেন আপনি। এছাড়াও ভিডিও দেওয়ার মাধ্যমে সেই খবরের মধ্যে এক নতুন মাত্রা যোগ হয়।

#৩) পরিবেশের জন্য লাভ দায়ক: পারম্পরিক ম্যাগাজিন পেপার ব্যবহার করা হয়, যার জন্য কাগজের প্রয়োজন পড়ে। আর কাগজের জন্য গাছ কাটতে হবে, কেননা গাছ থেকে কিন্তু কাগজ উৎপন্ন করা হয়।

আর সেক্ষেত্রে পরিবেশের অনেকটাই ক্ষতি হয়ে যায়। আর তাই অনলাইন ম্যাগাজিন আর নিউজ পেপার সব থেকে ভাল মাধ্যম। এর কারণে মানুষের কাছে ম্যাগাজিন এবং খবরও পৌঁছে যাবে তবে সেটা পরিবেশের ক্ষতি করে নয়।

#৪) কম ইনভেস্টমেন্ট: অনলাইন ম্যাগাজিন পড়তে বেশি পরিমাণে পছন্দ করছেন মানুষ। আর এই ম্যাগাজিন দেখার সময় publisher সাবস্ক্রিপশন কাস্ট কে কম করে রাখে। যার উপরে অ্যাপ্লিকেশন পারম্পরিক প্রকাশন থেকে অধিক মাত্রায় সস্তা এবং উন্নত হতে থাকে।

অনলাইন ম্যাগাজিন বিজনেস কিভাবে শুরু করবেন:

#১) বিজনেস প্লান: যে কোন ব্যবসা শুরু করতে গেলে তার আগে ভালোমতো সেই ব্যবসার প্ল্যান করতে হয়। আপনি যে উদ্যোগই নিয়ে থাকুন না কেন, তার জন্য সুপরিকল্পিত পরিকল্পনা আপনার অনেকটাই সফলতার দিকে নিয়ে যাবে। একটা সঠিক এবং ভালো বিজনেস প্লান আপনাকে বানাতে হবে এটা কিন্তু আপনার সবথেকে প্রথম স্টেপ।

#২) পাঠক সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ করা: অনলাইন ম্যাগাজিনের বাস্তবে রূপ দিতে গেলে সবচেয়ে জরুরী বিষয় হলো সেটা হল মার্কেট সম্পর্কে সম্পূর্ণ ধারণা। এর ফলে যে ডাটা আপনি পেয়ে থাকবেন তার মাধ্যমে আপনি পাঠকদের রুচি সম্পর্কে জানতে পারবেন। আর সেই মতো ম্যাগাজিন পাবলিশ করতে পারবেন।

#৩) অন্যান্য ম্যাগাজিন সম্পর্কে তথ্য: সবচেয়ে জরুরী বিষয় হলো ম্যাগাজিন প্রকাশ করছেন। তাহলে জানতে হবে যে মার্কেটে আরো যে ম্যাগাজিনগুলো উপলব্ধ আছে, তাদের সম্পর্কে বিভিন্ন রকমের তথ্য সংগ্রহ করা। কেননা আপনার প্রতিদ্বন্দ্বী থাকবে, আর আপনাকে বিজনেস মডেল এবং বিভিন্ন রকমের তথ্য নতুন আইডিয়া সংগ্রহ করতে হবে।

#৪) যথেষ্ট পুঁজি সংগ্রহ করা: যেকোনো ম্যাগাজিন ছোট হোক অথবা বড়, তার জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণ ফান্ড অথবা পুঁজি আপনার লাগবে। এতে প্রিন্ট পাবলিকেশন এর থেকেও কম পুজি লাগে। যদি আপনার কাছে পর্যাপ্ত পরিমাণে পুঁজি না থাকে তাহলে এই পুঁজি যোগাড় করার জন্য আপনাকে ভালোমতো একটা প্ল্যান বানাতে হবে।

#৫) অনলাইনে ম্যাগাজিনের রিপ্রেজেন্টেশন:

সঠিক নাম নির্বাচন: যখন আপনি এই ব্যবসাটি শুরু করার প্ল্যান বানিয়ে নেবেন সে ক্ষেত্রে এই ম্যাগাজিনের একটি সঠিক নাম আপনাকে নির্বাচন করতে হবে।

আর এর জন্য অনেক সময় লাগতে পারে আপনার। তবে নাম যাই হোক না কেন প্রকাশন এর তথ্যের সাথে পাঠকদের জন্য যেন এই ম্যাগাজিন কিছু ইউনিক এবং নতুন হয়ে থাকে।

ডোমেইন নাম নির্বাচন: ওয়েবসাইট বানানোর জন্য ডোমেইন নাম আপনার প্রয়োজন পড়বে। ভারতের বিভিন্ন রকমের ডোমেইন রেজিস্ট্রেশন আর হোস্ট স্পেস প্রদান করা অনেক কোম্পানি আপনি পেয়ে যাবেন, যেমন ধরুন গো ড্যাডি। যখনই এই সাইটের উপরে লগ ইন করা হয় আমরা দেখতে পাই যে, যে নামটি আমরা নির্বাচন করেছি সেটি আগে থেকে উপলব্ধ আছে কিনা।

যদি সেই নামটি থেকে থাকে তাহলে অন্য নাম আমাদের নির্বাচন করতে হবে। তারপর সেই নামের সাথে ডট কম, ডট ইন, ডট সিও, সেটা আমাদের প্রয়োজন অনুসারে মিলতে পারে। তাছাড়া ডোমেইন প্যাকেজে সাইটের চার্জ ৫০০ থেকে ১০০০ টাকার মধ্যে হতে পারে।

হোস্ট স্পেস: যখন ডোমেইন নাম সঠিকভাবে নির্বাচন করা হয়ে যাবে, তারপর হোস্ট স্পেস পারচেস করতে হবে। হোস্টিং সার্ভিস প্রোভাইডার সার্ভার স্পেস এর অফার দিয়ে থাকে। যা থেকে আমরা ওয়েবসাইট শুরু অথবা এক্টিভেট করতে পারি। আর এই সার্ভিসের দাম অথবা চার্জ ৯০০ থেকে ১৫০০ প্রতিবছর হয়ে থাকে।

অনলাইন ম্যাগাজিনের জন্য সঠিক টিম তৈরি করা:

যখন বিজনেস প্লান অন্ড মার্কেটের তথ্য জোগাড় করা সম্পূর্ণরূপে হয়ে যাবে, এবার সময় এসেছে এই বিজনেস করার জন্য একটা দল গঠন করা, অর্থাৎ একটা গ্রুপের মধ্যে কোন কাজ কে করতে পারবেন সেটা ঠিক করা অথবা হিউম্যান রিসোর্স ডিপার্টমেন্ট বানাতে পারেন।

অনলাইন প্রকাশন এ যতক্ষণ না পর্যন্ত সফলতা মিলছে ততক্ষণ পর্যন্ত কিন্তু টিম ভালোভাবে তৈরি হচ্ছে না। টিম বানানোর জন্য রাইটার, এডিটর, ফটোগ্রাফার, প্রুফরিডার, আর ফটো এডিটর এর প্রয়োজন পড়বে। এর সাথে সাথে সেলস ম্যানেজার মার্কেটিং এক্সপার্ট পাবলিকেশন ম্যানেজার এরও প্রয়োজন পড়বে আপনার।

কনটেন্ট ক্রিয়েশন এবং পোস্টিং:

#১) কন্টেন লিখতে হবে ভালোভাবে।

#২) প্রুফরিডার অথবা কপি রিডার যখন কোন ঘটনা অথবা গল্প রাইটার লিখে থাকেন অথবা টাইপ করে থাকেন সেক্ষেত্রে টাইপিং এর সময় অনেক কিছু ভুল হতে পারে, যখন একটি কনটেন্ট সম্পূর্ণ হয়ে যায় তখন এই লেখাটিকে প্রুফ রিডার এর কাছে পাঠানো হয়, সেই প্রুফ রিডার এর কাছে শব্দ এবং গ্রামারের ভালোমতো তথ্য আছে অথবা তিনি এই সম্পর্কে ভালো মতন দক্ষতা রাখেন। যেখানে যেখানে ভুল হয় সেখানে তিনি ঠিক করে দেন।

#৩) ফাইনাল কারেকশন।

#৪) ফটোর সাথে প্রমাণ জুড়ে দেওয়া। ম্যাগাজিন এমন একটা জিনিস সেটা শুধুমাত্র লেখার জন্য কিন্তু পাঠকদের আকর্ষণ করে না এখানে সুন্দর রঙিন ফটো থাকার কারণে কিন্তু অনেকেই এই ফটোর মোহে পড়ে যায় এবং সুন্দর রং এর বিভিন্ন রকমের ফটোর জন্যই ম্যাগাজিন অনেকেই পড়তে ভালোবাসেন।

#৫) ম্যাগাজিনটিকে ভালো মত আকর্ষনীয় করার জন্য একটি সুন্দর আকর্ষনীয় পেজ ডিজাইন করতে হবে।

#৬) ফাইনাল প্রোটোটাইপ। যখন এডিটর প্রোটোটাইপ থেকে সন্তুষ্টি লাভ করে নেয় অর্থাৎ লেখাটি ভালো হয়েছে এমন জেনে তারপরে কনটেন্টকে ডিজিটাইজেশন করা হয়ে থাকে।

#৭) কন্টাক্ট ডিজিটাইজেশন। প্রোটোটাইপ বানানোর ক্ষেত্রে সফটওয়্যার এর প্রয়োজনীয়তা হবে যেমন কোন কিছু সঠিক করা কোন কিছু গুরুত্বপূর্ণ জিনিস এড করা ইত্যাদি।

অনলাইন ম্যাগাজিন এর জন্য অনুমতি অথবা পারমিট:

প্রিন্ট নিউজ পেপার এর রেজিস্ট্রেশন করা কিন্তু ভীষণ মুশকিল একটি কাজ। তার সাথে সাথে এতে সময় প্রচুর পরিমাণে লাগতে পারে। ভারতের নিউজপেপার রেজিস্টার অথবা আর এন আই নিউজ পেপার রেজিস্ট্রেশন সার্টিফিকেট প্রদান করে থাকে।

তবে অনলাইনে এমন করার ক্ষেত্রে কোন প্রয়োজনীয়তা নেই। যদি একবার আমরা কোন ম্যাগাজিনের নাম কে ওয়েবসাইটে দিয়ে দিতে পারি, অন্য কেউ সেই নাম ব্যবহার করতে পারবেন না।

অনলাইন ম্যাগাজিনে কর্মচারীরা প্রয়োজনীয়তা:

অনলাইন ম্যাগাজিন ঘরে বসেই আপনি বানাতে পারবেন এবং এর সমস্ত রকমের কাজ ঘরে বসেই করা হয়। যদি আপনার কাছে একটি ভালোমতো টিম থাকে যার মধ্যে সমস্ত রকমের কর্মচারী বেশ দক্ষতার সাথে কাজ গুলি করে থাকেন, তাহলে সবাই মিলে, মিলে মিশে কাজটি করে ভালোমতো উপার্জন করতে পারবেন।

অনলাইন ম্যাগাজিনের জন্য কিছু কর্মচারী আপনার প্রয়োজন পড়বে। যখনই ম্যাগাজিন পাবলিস করা হবে তা এই ম্যাগাজিনের কনটেন্ট আর ওর সাইজের উপরে নির্ভর করবে কতগুলি কর্মচারী আপনার প্রয়োজন পড়বে অথবা পাঁচজন কনটেন্ট রাইটার, এডিটর, ফটোগ্রাফার, ওয়েব ডিজাইনার, সবথেকে বেশি গুরুত্বপূর্ণ হয়ে থাকে।

এডিটর প্রুফ রিডার এর কাজ ও করতে পারেন। আবার কনটেন্ট বানাতেও পারেন। আর এই ব্যবসাটি কে আগে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য এদেরকে ভালোভাবে নির্বাচন করতে হবে আপনাকে।

এখন জানা যাক অনলাইন ম্যাগাজিন থেকে কিভাবে টাকা উপার্জন করবেন:

অনলাইন ম্যাগাজিনের উদ্দেশ্যই হলো টাকা উপার্জন করা। অনলাইন ম্যাগাজিন বিজনেসে টাকা উপার্জনের অনেক রাস্তা আছে। প্রকাশনের কিছু পদ্ধতি থাকে, যার মধ্যে পাঠক একটি নিশ্চিত টাকা জমা করতে থাকে।

সেটা মাসিক হতে পারে অথবা বার্ষিক। তবে এটা কেবলমাত্র এর উপরে নির্ভর করে না, অনলাইন বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে কিন্তু টাকা উপার্জন করা সম্ভব। ম্যাগাজিনে একটি ব্লগ সেকশন থাকে, যেখানে বিজ্ঞাপনের জন্য নির্দিষ্ট টাকা নেওয়া হয়ে থাকে।

আর এর জন্য কোম্পানি সাহায্য করে থাকে। যদি সাইটের উপরে ট্রাফিক খুব বেশি হয়ে থাকে, তখন কিন্তু এই কোম্পানির প্রমোশনে অনেক বেশি সহযোগিতা করে থাকে। যখন অনলাইন কোনো বিজ্ঞাপন সাইটের উপরে চলে তখন একটা পর্যাপ্ত পরিমাণ টাকা এখান থেকে পাওয়া যায়।

এতে লিংকের মাধ্যমে কিছু সম্পর্কিত থাকে এমনভাবে, কিছু প্রোডাক্ট ম্যাগাজিনের উপরে আসতে পারে। যখন কোন অন্য ইউজার সেই প্রোডাক্টটি কেনার জন্য লিংকে ক্লিক করবেন, তখন কিন্তু তার থেকে একটা পরিমাণ টাকা পাওয়া যায়।

অনলাইন ম্যাগাজিন বিজনেসে ইনভেস্টমেন্ট:

যদি আপনি এই বিজনেসটা ছোট স্তরের শুরু করেন তাহলে বেশি পরিমাণে আপনার ইনভেস্ট করতে হবে না। ৩০০০ টাকার থেকেও কম টাকা দিয়ে ডোমেইন নাম আর হোস্ট স্পেস কিনতে পারেন।

আর এই দুটি জিনিসের জন্য বছরে একটা টাকা দিতে হয়। কিছু ডোমেইন নাম আর হোস্ট স্পেস এর জন্য ৯০০ থেকে ১২০০ প্রতিবছর দিতে হতে পারে। তাছাড়া এটা তার প্যাকেজ এর উপরেই নির্ভর করে।

অনলাইন ম্যাগাজিন বিজনেসের লাভ অথবা প্রফিট:

অনলাইন কোন বিজনেস প্রফিট অথবা লাভ খুব তাড়াতাড়ি কিন্তু পাওয়া যায় না। যেমন এই অনলাইন ম্যাগাজিন বিজনেসে আপনি খুব তাড়াতাড়ি লাভ নাও পেতে পারেন। আপনার কনটেন্ট এর উপরে কিন্তু নির্ভর করবে পাঠকরা আপনার কনটেন্ট কতটা পছন্দ করছেন এবং আপনার সাইটের উপরে ট্রাফিক কতটা আসছে।

আর সেই কনটেন্ট এর মধ্যে বিজ্ঞাপন কেমন চলছে সেটাও নির্ভর করছে। এ থেকে  ১৫% থেকে ১৮% শতাংশ পর্যন্ত লাভ আপনি প্রথম কিছু মাসে পেতে পারেন। যদি একের অধিক প্ল্যাটফর্মের উপরে কাজ করা যায় তাহলে খুব তাড়াতাড়ি আপনি এই ব্যবসাটি থেকে প্রফিট পেতে পারবেন।

অনলাইন ম্যাগাজিন বিজনেসে ঝুঁকি:

অনলাইনে রিপ্রেজেন্টেশন থেকে এর শুরুটা করতে পারেন, কিন্তু বেশ কঠিন কাজ ও বটে। কেবলমাত্র অনলাইন ম্যাগাজিন পেজ পর্যাপ্ত নয়, এর সাথে সাথে ওয়েবসাইট মডেল ও থাকতে হবে। এর জন্য একের বেশি প্ল্যাটফর্ম এর উপর কাজ করতে হতে পারে।

আপনার পাঠকদের প্রযোজকের সাথে সবসময়ের জন্য একটা মেলবন্ধন থাকতে হবে। যার ফলে এটুকু তো জানা যাবে যে, পাঠক আর প্রযোজক কি চাইছেন। তেমন ভাবেই কাজ করা যেতে পারে।

অনলাইন ম্যাগাজিন বিজনেসে মার্কেটিং এবং বিজ্ঞাপন টিপস:

#১) পারম্পরিক প্রমোশন।

#২) সোশ্যাল মিডিয়া টুল।

#৩) e-mail মারকেটিং প্রসেস।

আজকাল সবকিছুই অনলাইনে হয়ে গিয়েছে। মানুষ আর ঘরের থেকে বাইরে বেরিয়ে কোন কিছু কাজ থেকে শুরু করে কেনাকাটা এবং খবরের কাগজ অথবা ম্যাগাজিন পড়া পছন্দ করছেন না। এর জন্য  ল্যাপটপ, মোবাইলের স্কিনে দেখতেই পছন্দ করেন।

সেক্ষেত্রে আপনি যদি এই ম্যাগাজিনের বিজনেস অনলাইনে করে থাকেন, তাহলে সকলের ভীষণ পছন্দ হবে। রংবেরঙের ফটোর সাথে সুন্দর কনটেন্ট আকর্ষণ করবে পাঠকদের। একটি টিম বানিয়ে অনেকগুলি প্লাটফর্মের উপর কাজ করে এই বিজনেস থেকে আপনি ভালোমতো উপার্জন করতে পারবেন।

Leave a Comment