ফেসবুকে কিভাবে ফলোয়ার বাড়াবেন? অব্যর্থ কৌশল

0
(0)

ইন্টারনেট আমাদের জীবনযাপনের ধরন ও চাহিদার ধরন পরিবর্তন করেছে। এখন নিজেদের মধ্যে প্রতিযোগিতার বিষয়বস্তু হচ্ছে ফেসবুকে কার ফলোয়ার বেশী, তার জনপ্রিয়তাও বন্ধুমহলে বেশী। সময় বদলে যায়, সেই সাথে বদলায় মানুষের চাওয়া-পাওয়া।  

এখন স্যোশাল মিডিয়াই  আমাদের জীবনের প্রতিচ্ছবি। কারো জীবন সম্পর্কে জানতে হলে তার ফেসবুক প্রোফাইলে গিয়ে তার পোস্ট দেখলেই জানতে পারবেন তার সাম্প্রতিক কর্মকান্ড, তার চিন্তা-ভাবনা। কিন্তু ফেসবুকের নিয়ম অনুযায়ী ৫০০০ এর বেশী ফ্রেন্ড করা সম্ভব নয়।

কিন্তু আপনার আইডি পাবলিক করা থাকলে আপনাকে অগণিত মানুষ ফলো অর্থাৎ অনুসরণ করতে পারবে। আর যখন আমরা কারো আইডিতে ফলোয়ার সংখ্যা বেশী দেখি তখনই বোঝা যায়, যে সে অন্যদের কাছে বেশ চর্চার মানুষ, তার এক্টিভিটি দেখতে সবাই পছন্দ করে। এটা তার ইমেজ পরিচিত মহলে বাড়িয়ে তোলে।

এছাড়াও ফেসবুক মার্কেটিং, প্রোডাক্ট প্রোমোশন,  স্পন্সরশিপ,  ভিডিও তৈরি, ভিডিও প্রোমোশন, বিভিন্ন কোম্পানির হয়ে বিজ্ঞাপনের কাজও করতে পারবেন। কিন্ত তার জন্য আপনার ফলোয়ার সংখ্যা অনেক হতে হবে। কিন্তু কিভাবে পাবেন অনেক ফলোয়ার? নিশ্চয়ই জানতে আগ্রহ হচ্ছে?

সুপ্রিয় পাঠক আমাদের আজকের পোস্ট সাজানো হয়েছে ফেসবুকে কিভাবে ফলোয়ার বাড়াবেন সে বিষয়টি নিয়ে। চলুন দেরী না করে মূল আলোচনায় যাওয়া যাক।

ফেসবুকে যেভাবে ফলোয়ার বাড়াবেন:

১. প্রোফাইল প্রাইভেসি পাবলিক রাখুন

আপনি যদি ফেসবুকে আপনার ফলোয়ার বাড়াতে চান তাহলে অবশ্যই প্রোফাইল প্রাইভেসি পাবলিক করে রাখুন। কারণ অন্যরা আপনাকে ফলো করবে আপনার পোস্ট করা ছবি, ভিডিও, মিম বা অন্যকিছু দেখার জন্য, আপনার সম্পর্কে জানার জন্য।

আর প্রোফাইল লক করা থাকলে শুধুমাত্র ফেসবুক ফ্রেন্ড ছাড়া আপনার প্রোফাইলে কি কি পোস্ট করছেন অন্য কেউ দেখতে পাবেনা। যেহেতু আপনি চাইছেন ফলোয়ার বাড়ুক সেজন্য আপনাকে নিজের সম্পর্কে জানানোর জন্য প্রোফাইল যাতে সবাই ভিজিট করতে পারে তার অপশন রাখতে হবে।

তবে যদি মনে করেন নিরাপত্তা বিঘ্নিত হবে, সেক্ষেত্রে খুব গোপনীয় বা অন্য কেউ জানলে সমস্যা হবে এমন কিছু ফেসবুকে পোস্ট না করাই ভাল হবে। প্রোফাইল পাবলিক করা থাকলে অনেক ফেসবুক ইউজার আপনাকে ফলো করবে।

২. মজার পোস্ট

ফেসবুকে সেসব ব্যক্তির পোস্ট খুবই ভাইরাল হয় যারা খুব মজার বা ফানি পোস্ট করে থাকেন। ফেসবুক বিনোদনের মাধ্যম। এটা আমরা ব্যবহার করি যতটা না শিখতে তারচেয়ে বেশী বিনোদন পেতে।

তাই সমসাময়িক বিষয় নিয়ে বা অন্যান্য কিছু নিয়ে মজার পোস্ট করুন, অন্যদের আনন্দ দিন, এমনিতেই এসব পোস্টের জন্য আপনার ফলোয়ার অনেক বেড়ে যাবে।

৩. সাহিত্য চর্চা করুন

যারা সাহিত্য চর্চা করেন, অর্থ্যাৎ গল্প, উপন্যাস, ছড়া, কবিতা লেখেন এবং সেগুলো বিভিন্ন গ্রুপে পোস্ট করেন সেগুলো জনপ্রিয়তা পেয়ে গেলে, লেখকের আইডিতে ফলোয়ার সংখ্যাও বেড়ে যায়।

কারন আইডি ফলো করা থাকলে লেখক কিছু পোস্ট করলে ফলোয়ারদের হোমপেজে সেটা প্রদর্শিত হয়। ফলোয়ারদের আর কষ্ট করে আইডি ভিজিট করার প্রয়োজন হয়না।

৩. গ্রুপের এডমিন বা মডারেটর হোন

ফেসবুকে বিভিন্ন ধরনের গ্রুপ রয়েছে। যেমন ফ্যাশন গ্রুপ, গার্লস গ্রুপ, সাহিত্য বিষয়ক গ্রুপ, স্টাডি গ্রুপ, ফান গ্রুপ, আড্ডা গ্রুপ। এসব গ্রুপের এডমিন এবং মডারেটর যারা তাদেরকে অনেক মানুষ চেনে এবং জানে।

গ্রুপে কোন কিছু পোস্ট করতে গেলে তাদের অনুমতি নিতে হয়। এজন্য তাদেরকে সবাই মেসেজ দেয়। তারা গ্রুপের সুবাদে আলাদা পরিচিতি পেয়ে যায় এজন্য তাদের ফলোয়ার সংখ্যাও দিন দিন বৃদ্ধি পায়।

৪.  বিশেষ বিষয়ক পোস্ট করুন

ফেসবুকে সবাই ই যে কেবল সময় কাটাতে আসে তা কিন্তু নয়। অনেকেই কিছু করে দেখানোর মাধ্যম হিসেবে ফেসবুককে বেছে নেয়। যেমন অনেকে মেকআপ শেখায়, ছবি আকা শেখায়, রান্নার রেসিপি শেয়ার করে, সামাজিক সমস্যা নিয়ে আলোচনা করে, উদ্যোক্তা হওয়ার প্রেরণা দেয় ইত্যাদি।

এ ধরনের কাজের সাথে যারা যুক্ত তাদের দ্বারা অনুপ্রানিত হতে প্রচুর মানুষ তাদের ফলো করে। এ ধরনের সামাজিক প্রেরনামূলক কাজের মাধ্যমে আপনি যেমন পরিচিতি পাবেন তেমনি পরবর্তীতে কোন প্রতিষ্ঠান গড়ে তুললে আপনাকে সাপোর্ট করার মত মানুষও পেয়ে যাবেন। আপনি যদি এ ধরনের কাজের সাথে যুক্ত থাকেন, আপনাকে ও অনেকেই ফলো করবে।

৫. ভাইরাল হলে

আজকাল ফেসবুকে ভাইরাল হওয়া খুবই সহজ। ছবি থেকে পোস্ট, ভিডিও, মিম, ক্যাপশন, কমেন্ট, সাম্প্রতিক ঘটনা, কোন ব্যক্তির কথা, কর্মকান্ড, কোন মুভি, গান, বা যেকোন বিষয়ই ফেসবুকের মাধ্যমে দ্রুত ভাইরাল হয়ে যায়।

আর আপনি যদি এরকম ভাবে কোন কাজের জন্য ভাইরাল হতে পারেন তাহলে রাতারাতি আপনার ফলোয়ার অনেক বেড়ে যাবে।

৬. ব্যতিক্রমী পোস্ট

আপনি যদি প্রোফাইলে সবসময় ব্যতিক্রমী কোন পোস্ট করেন, হোক সেটা আলোচিত বা সমালোচিত, তাহলেই আপনার ফলোয়ার অনেক বেড়ে যাবে। আজকাল ফলোয়ার বাড়ানোর জন্য অনেকেই নিজেদের ট্রল করে বা বিভিন্ন উদ্ভট কান্ড করে নিজেরা গালি শুনে হলেও ফলোয়ার বাড়াতে চায়। তবে এ ধরনের কর্মকান্ড না করাই উচিত৷

এতে সাময়িকভাবে ফলোয়ার বাড়লেও বেশীদিন খ্যাতি ধরে রাখা যায়না এবং নিজের সম্মানহানি হয়। এরচেয়ে ভাল কোন কিছু প্রোমোট করুন এবং ব্যতিক্রমী ভাবে সেটা মানুষের কাছে ফেসবুকের মাধ্যমে ছড়িয়ে দিন। এমনিতেই আপনার ফলোয়ার সংখ্যা প্রচুর বেড়ে যাবে।

উপসংহার

ফেসবুক এখন শুধু বিনোদনের মাধ্যমই নয়। এর মাধ্যমে পৃথিবীটাই হাতের মুঠোয় চলে এসেছে আমাদের। আপনার ফলোয়ার বেশী হলে আপনার কর্মকান্ড পৌছে যাবে অনেক মানুষের কাছে। আপনি যেরকম উদ্দেশ্য নিয়ে ফলোয়ার বাড়াতে চাইবেন, ফলোয়ার বাড়লে সেরকম সুবিধাই আপনি পাবেন।

এর অর্থ হচ্ছে, অনেকে ফলোয়ার বাড়াতে চান শুধুমাত্র বন্ধু বা পরিচিতদের কাছে শোঅফ করার জন্য। অনেকে ফলোয়ার বাড়াতে ফেসবুকের মাধ্যমে বিভিন্ন বিষয় প্রোমোট করার জন্য, বা ব্যবসায়িক কারনে। উদ্দেশ্য যা ই হোক, ফলোয়ার বেশী থাকলে ফেসবুকের মাধ্যনে যেকোন কাজ করাই অনেক সহজ হবে।

আশা করি ফেসবুকে ফলোয়ার বাড়াতে পোস্টটি আপনার উপকারে আসবে। এ বিষয়ে বিস্তারিত জানতে আমাদের কমেন্ট করতে পারেন। আমরা অবশ্যই তথ্য জানিয়ে আপনাকে সাহায্য করার চেষ্টা করব। আজকের মত এখানেই শেষ করছি। ধন্যবাদ সবাইকে!

আপনাদের এই তথ্য কেমন লেগেছে?

এই পোস্টে মতামত দিতে একটি স্টারে ক্লিক করুন!

Average rating 0 / 5. Vote count: 0

No votes so far! Be the first to rate this post.

যেহেতু আপনি এই পোস্টটি দরকারী বলে মনে করেছেন ...

সোশ্যাল মিডিয়াতে আমাদের অনুসরণ করুন!

আমরা দুঃখিত যে এই পোস্টটি আপনার জন্য দরকারী ছিল না!

চলুন আমাদের এই পোস্ট উন্নত করা যাক!

আমাদের বলুন কিভাবে আমরা এই পোস্ট উন্নত করতে পারি?

Leave a Comment