কিভাবে মুখভর্তি দাড়ি পাবেন, যত্ন এবং কৌশল | How To Grow A Beard

0
(0)

আগের দিনের ফ্যাশন গুলি ফিরে ফিরে আসছে নতুন ভাবে, নতুন রূপে, ইদানিং ট্রেন্ডিংএও থাকছে। অনেক ছেলেরাই মুখভর্তি দাড়ি রাখতে পছন্দ করেন। তবে শুধু পছন্দ নয়, তার সাথে সাথে তার লুক এতটাই চেঞ্জ হয়ে যায় যে, পার্সোনালিটি দেখার মত।

এইতো কিছুদিন আগের কথা, যখন একটা সময় ছিল ক্লিন শেভ ফ্যাশন জগতে এক অসাধারণ বিষয়। তবে একটা কথা যে, ফ্যাশন সময়ের সাথে সাথে যেমন বদলায়, তেমনি সময়ের সাথে বদলে যায় মানুষের চিন্তা ধারাও।

How To Grow A Beard Tips And Tricks
How To Grow A Beard Tips And Tricks

এখন ছেলেদের সবচেয়ে ফ্যাশান হাতিয়ার হল মুখভর্তি দাড়ি রাখা। চাপ দাড়ি তে নিজেকে হ্যান্ডসাম লুক দেওয়ার জন্য বিশেষ ভাবে যত্ন নেওয়ার প্রয়োজন ছেলেদের দাড়ির। আজকাল দাড়ি এতটাই জনপ্রিয়তা পাচ্ছে, টিনএজ থেকে বয়স্ক সকলেই মুখভর্তি দাড়ি রাখতে স্বচ্ছন্দ বোধ করেন।

একটা আকর্ষনীয় বিষয় হলো দেশে-বিদেশে বহু গবেষণায় দেখা গিয়েছে যে মুখ ভর্তি দাড়ি রাখা ছেলেদের প্রতি মেয়েরা বেশি আকর্ষিত হয়। শুধুমাত্র ফ্যাশন বা লুক বদলের জন্য দাড়ি রাখলে হবে না, নিতে হবে তার সম্পূর্ণ যত্ন।

নিজের স্মার্ট চেহারা ধরে রাখার জন্য গাল ভর্তি দাড়ির যত্ন নেবেন কিভাবে? চলুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক –

১) ধৈর্য রাখাটা জরুরি :

প্রত্যেকটা কাজের ক্ষেত্রে যেমন ধৈর্য অনেকটা সহায়তা করে সেই কাজে সফলতা পাওয়ার জন্য, তেমনি দাড়ির বিষয়ও একই কথাা, ধৈর্য রাখতে হবে এই বিষয়ে। কেন এমনটা বলছি? কারণ দাড়ি কে সুন্দর শেপ দিয়ে রাখার জন্য যে প্রক্রিয়াটা করতে হয় তা চলে বেশ কিছুদিন ধরে। একদিনে আপনি সুন্দর শেপের দাড়ি পাবেন না।

এক মুখ দাঁড়ি রাখার যে ইচ্ছাটা আপনার রয়েছে সেটা পূরণ করার জন্য আপনাকে বেশ কিছুটা দিন অপেক্ষা করতে হবে। পুষ্টিকর ও সুষম খাবার খাওয়ার পাশাপাশি ব্যায়াম করতে হবে নিয়মমতো। ধূমপান এবং মদ্যপান থেকে দূরে থাকার পাশাপাশি পর্যাপ্ত পরিমাণ ঘুমের প্রয়োজন আছে এ বিষয়ে।

২) পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখা :

দাড়িও তো চুলের মত তাই না। তাই চুলের যত্নে যেমন নিয়মমাফিক পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখেন, সেই তার মতোই দাড়ির পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার বিষয়টাও মাথায় রাখাটা জরুরি। দাড়ি যখন বেশ বড় হতে শুরু করে তখন কিন্তু বেশ অস্বস্তি বোধ হতে পারে আপনার। কারণ ত্বকের মৃত কোষগুলি দাড়ির ভিতর জমা হতে শুরু করে, এবং চুলকানির মত সমস্যা সৃষ্টি হতে পারে।

দাড়ি ধোয়ার জন্য প্রাকৃতিক উপাদানের পাশাপাশি সালফেট মুক্ত শ্যাম্পু ব্যবহার করতে পারেন। চুল আঁচড়ানোর মত দাড়িও কিন্তু নিয়মিত আঁচড়াতে হবে, যাতে জট না পাকিয়ে যায়। তাছাড়া দাড়ির সেফ বজায় রাখার জন্য নিয়মিত আচঁড়ানো ভীষন জরুরী।

৩) মশ্চারাইজার ও কন্ডিশনার :

সুন্দ্দর, চকচকে দাড়ি পাওয়ার জন্য চুলের মত দাড়িতে ও শ্যাম্পু করার পর কন্ডিশনার ব্যবহার করুন নিয়মিত। কখনো গায়ে মাখা সাবান দিয়ে দাড়ি পরিষ্কার করবেন না। কন্ডিশনার ব্যবহার করার পর দাড়ি তে চমক রাখার জন্য ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুন।

মার্কেটে বিভিন্ন রকমের ক্ষতিকারক কেমিক্যাল ছাড়া ময়েশ্চারাইজার পেয়ে যাবেন আপনি। তাছাড়া প্রাকৃতিক উপায়ে দাড়ি এবং দাড়ির ত্বককে নরম ও মসৃণ রাখার জন্য নারকেল তেল ব্যবহার করতে পারেন। তার সাথে বেবি অয়েল, ভিটামিন ই সমৃদ্ধ তেল ও এক্সট্রা ভার্জিন অয়েল ব্যবহার করতে পারেন।

৪) দাড়ির যত্নে অ্যালোভেরা জেল :

চুলের মত দাড়িতেও অনায়াসেই ব্যবহার করতে পারেন অ্যালোভেরা জেল। ত্বক ও চুলের জন্য এলোভেরা জেল খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি উপাদান। কারণ অ্যালোভেরা হল এনজাইমের একটি উৎস।

অ্যালোভেরা জেল ত্বকে জমা মৃতকোষ কে সরিয়ে দিয়ে ত্বক এবং দাড়ির গোড়াকে সুস্থ ও সতেজ রাখতে সাহায্য করে। নিয়মিত প্রতিদিন দাড়িতে এলোভেরা জেল ব্যবহার করে দেখুন না আপনার দাড়িতে আসবে এক্সট্রা সাইন।

৫) দাড়ি ট্রিম করুন :

চুল যেমন ট্রিম করতে হয় তার জন্য চুল আগাগোড়া সমান সামঞ্জস্য বজায় থাকে। তেমনি দাড়িকে ঘন লুক দেওয়ার জন্য নিয়মিত রুপে ট্রিম করা প্রয়োজন। তার পাশাপাশি দাড়ির ক্ষতি থেকে রক্ষা করে ট্রিম। দাড়ি কাটার জন্য ভালো একটি গ্রুমিং কিট অথবা ট্রিমারের সাহায্য নিন।

এর ফলে আপনার দাড়ির ঘনত্ব দিন দিন বাড়তে থাকবে। সম্ভব হলে অন্তত পক্ষে 2 মাস অন্তর এটি করতে থাকুন। দেখবেন আপনার দাড়ির লুক আগের থেকে কতটা চেঞ্জ হতে শুরু করেছে।

৬) পাতলা দাড়ির যত্ন :

যারা মুখ ভর্তি দাড়ির ইচ্ছা থাকা সত্বেও পেয়ে ওঠেন নাা, নিজেদের পাতলা দাড়ির জন্যয, তাদের জন্য একটা বিশেষ টিপস হলো গাল ভর্তি দাড়ি না থাকলেও শুধুমাত্র গোফ ও তার সাথে নিচে দাড়ি রেখে দুটো গাল ক্লিন শেভ রাখলেও তার লুক অনেকটাই ফ্যাশনেবল লাগে। এতে আপনার পাতলা দাড়ির সমস্যা বোঝাও যাবে না আবার দাড়ি রাখার ইচ্ছা টাও আপনার পূরণ হয়ে যাবে।

৭) মানানসই দাড়ি :

আপনার মুখের সাথে মানাবে এমন দাড়ি রাখার চেষ্টা করুন। তাহলে আপনার নিজের পার্সোনালিটি বজায় থাকার পাশাপাশি সবার কাছে অন্যরকম রূপে ধরা দিতে পারবেন আপনি। মুখের শেপ অনুযায়ী দাড়ি রাখলে আপনাকে দেখতে আরো বেশী সুন্দর লাগবে।

এখন প্রত্যেকটা ছেলেদের মুখে দাড়ি থাকাটা মাস্ট। কারণ এটাই এখন ফ্যাশান। ক্লিন শেভ এর জামানা চলে গেছে। এলোমেলো চুল, মুখভর্তি দাড়ি এসব দিয়েই ফ্যাশন চলছে এখন রমরমিয়ে। তবে আপনার যদি ইচ্ছা থাকে যে গাল ভর্তি দাড়িতে আপনার লুকটাই চেঞ্জ করবেন, তাহলে এই টিপসগুলো মাথায় রাখলে আপনার এই ইচ্ছেটা খুব তাড়াতাড়ি পূরণ হতে পারে।

আপনাদের এই তথ্য কেমন লেগেছে?

এই পোস্টে মতামত দিতে একটি স্টারে ক্লিক করুন!

Average rating 0 / 5. Vote count: 0

No votes so far! Be the first to rate this post.

যেহেতু আপনি এই পোস্টটি দরকারী বলে মনে করেছেন ...

সোশ্যাল মিডিয়াতে আমাদের অনুসরণ করুন!

আমরা দুঃখিত যে এই পোস্টটি আপনার জন্য দরকারী ছিল না!

চলুন আমাদের এই পোস্ট উন্নত করা যাক!

আমাদের বলুন কিভাবে আমরা এই পোস্ট উন্নত করতে পারি?

Leave a Comment