মুখের দাগ দূর করতে সহজ ঘরোয়া উপায়

0
(0)

মুখ যেন একটি মানুষের মনের প্রতিচ্ছবি। মুখেই আমাদের যত অভিব্যক্তি প্রকাশ পায়। আর মুখেই যখন দাগছোপ দেখা দেয় তখন আয়নার সামনে দাড়াতেও যেন লজ্জা হয়, লজ্জা হয় বাইরে যেতে, অন্যদের সামনে দাড়াতে। কেউই চায়না তার মুখে দাগ পড়ে যাক।

কিন্তু বিভিন্ন কারনে মুখে দাগ পড়ে, ব্রণ, মেছতা, এলার্জি, শাল, ইত্যাদি কারনে মুখের ত্বকে দাগ পড়ে যায়। এগুলো দূর করতে আমরা কতকিছু করে থাকি। পার্লার, ট্রিটমেন্ট, লেজার ট্রিটমেন্ট, ঔষধ, ঘরোয়া রেমিডি আরও কত কি ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু এগুলো আমাদের অনেকসময়ই সমস্যা কমাতে গিয়ে বাড়িয়ে দেয়। মুখের দাগের সমস্যা খুবই মারাত্নক না হলে ডাক্তারের শরণাপন্ন হওয়ার প্রয়োজন নেই।

আপনি বাড়িতে বসেই কিছু ঘরোয়া উপাদান দিয়ে মুখের দাগ তুলে ফেলতে পারেন। এরসাথে ত্বকও উজ্জ্বল হবে। ব্রণের সমস্যাও দূর হবে। সুপ্রিয় পাঠক, আমাদের আজকের পোস্ট সাজানো হয়েছে মুখের দাগ দূর করার কিছু ঘরোয়া কার্যকর উপায় নিয়ে। চলুন দেরী না করে আলোচনা শুরু করা যাক।

মুখের দাগ দূর করার ঘরোয়া উপায়

১. কলা ও মধু

পাকা কলায় রয়েছে প্রাকৃতিকভাবে দাগ দূর করার ক্ষমতা, এছাড়া প্রাকৃতিক ব্লিচ। মধু ত্বকের দাগ দূর করে, সাথে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে। মুখের ত্বকের দাগ দূর করতে একটি বাটিতে একটি ছোট পাকা কলা চটকে নিন, তারপর চার টেবিল চামচ মধু মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন।

ত্বকের দাগসহ মুখের বাকি স্থানে লাগান। ১৫-২০ মিনিট রেখে ঠান্ডা জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এভাবে নিয়মিত ব্যবহারে ত্বকের দাগের সাথে মুখের ত্বকও হবে উজ্জ্বল ও মসৃন।

২. চন্দনগুড়া ও মধু

চন্দন প্রাচীনকাল থেকেই মুখের ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে ব্যবহার করা হচ্ছে। আপনার মুখের দাগ দূর করতে ও ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে চন্দনগুড়া ও মধুর প্যাক ব্যবহার করতে পারেন। এরজন্য একটি বাটিতে এক চা চামচ চন্দনগুড়া ও দুই চা চামচ মধু মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। তারপর মুখের ত্বকের দাগের উপর লাগান।

যদি চন্দনে সমস্যা না থাকে তাহলে পুরো ত্বকেই লাগান। এরপর ১০ মিনিট রেখে কুসুম গরম জল দিয়ে ঘষে প্যাকটি তুলে ফেলুন। সর্বোচ্চ ভাল ফলাফল পেতে সপ্তাহে তিনদিন প্যাকটি ব্যবহার করুন। মুখের দাগ দূর হয়ে ত্বক হবে উজ্জ্বল ও মসৃন।

৩. লেবুর রস ও মধু

লেবুর রসে রয়েছে প্রাকৃতিক ব্লিচ উপাদান ও ত্বকের দাগ দূর করার ক্ষমতা। মুখের দাগ দূর করতে লেবুর রস ও মধুর প্যাক ব্যবহার করতে পারেন। একটি বাটিতে একটি পাতিলেবুর অর্ধেক নিয়ে তাতে তিন চামচ মধু মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন।

তারপর মুখের ত্বকে লাগিয়ে ১০ মিনিট রাখুন। এরপর ধুয়ে ফেলুন। এটা আপনার ত্বক অনেক উজ্জ্বল করতে সাহায্য করবে। সেই সাথে বিশ্রী দাগও থাকবে না।

৪. শশা ও আলুর রস

আলুর রস যেকোন দাগ তুলতেই খুব উপকারী। মুখের ত্বকের দাগ তুলতে একটি ছোট আলু পাটায় বেটে রস করে নিন অথবা ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করে নিন। এরপর তাতে শশার রসও করে নিন। এরপর দুই ধরনের রস মিশিয়ে একত্র করে মিশ্রণ তৈরি করুন। তারপর মুখে এই মিশ্রনটি লাগিয়ে নিন।

তবে দেখতে হবে এটা মুখের কোন এলার্জি সৃষ্টি করছে কিনা, তারপর ৫-১০ মিনিট রেখে হালকা কুসুম জল দিয়ে ঘষে তুলে ফেলুন। এটা ব্যবহার করলে মুখ ফর্সা ও দাগহীন হবে সহজেই।

৫. এলোভেরা জেল

মুখের দাগ দূর করতে প্রতিদিন এলোভেরা জেল দাগের স্থানে ব্যবহার করুন। পুরো মুখেও ব্যবহার করতে পারেন, যদি না এলার্জির সমস্যা থাকে। তবে এলোভেরা জেল ত্বকে লাগিয়ে কখনো রোদে যাবেন না।

এতে ত্বক পুড়ে যেতে পারে। ঘরেই থাকুন। ৫-১০ মিনিট পর মুখ ধুয়ে ফেলুন। এটা আপনার ত্বকের দাগ দূর করবে। ত্বক করবে নরম ও উজ্জ্বল।

৬. টকদই ও লেবু

মুখের ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে এবং যেকোন দাগ দুর করতে টকদইয়ের কোন তুলনা নেই। তাই মুখের দাগ দূর করতে প্রতিদিন মুখে টকদই ও লেবু একসাথে মিশিয়ে ব্যবহার করতে পারেন। এটা ত্বক ফর্সা ও দাগমুক্ত করবে।

উপসংহার

মুখের ত্বকেই আমাদের সৌন্দর্য ফুটে ওঠে। আর সেই মুখেই যদি থাকে দাগছোপ তবে সেখানে সৌন্দর্য থাকেনা। এটা আমাদের আত্নবিশ্বাস অনেক কমিয়ে দেয়। তাই মুখের ত্বকের যত্নে উপরিউক্ত ঘরোয়া উপাদানগুলো ব্যবহার করুন।

এগুলো ত্বকের কোন ক্ষতি ছাড়াই দাগ দূর করবে এবং ত্বকের দাগ ও ক্ষত সারিয়ে তুলবে। এরজন্য বাড়তি করে কোন ট্রিটমেন্ট বা লেজার করানোর প্রয়োজন হবেনা। আশা করি পোস্টটি আপনাদের উপকারে আসবে।

এ বিষয়ে বিস্তারিত জানতে বা কোন প্রশ্ন থাকলে আমাদের কমেন্ট করে জানাতে পারেন। এ বিষয়ে কোন মতামত থাকলে আমাদের কমেন্ট করতে পারেন। আমরা অবশ্যই তথ্য জানিয়ে আপনাকে সাহায্য করার চেষ্টা করব। আজকের মত এখানেই শেষ করছি। ধন্যবাদ সবাইকে।

আপনাদের এই তথ্য কেমন লেগেছে?

এই পোস্টে মতামত দিতে একটি স্টারে ক্লিক করুন!

Average rating 0 / 5. Vote count: 0

No votes so far! Be the first to rate this post.

যেহেতু আপনি এই পোস্টটি দরকারী বলে মনে করেছেন ...

সোশ্যাল মিডিয়াতে আমাদের অনুসরণ করুন!

আমরা দুঃখিত যে এই পোস্টটি আপনার জন্য দরকারী ছিল না!

চলুন আমাদের এই পোস্ট উন্নত করা যাক!

আমাদের বলুন কিভাবে আমরা এই পোস্ট উন্নত করতে পারি?

Leave a Comment