ইস্টার সানডে 2023 তারিখ ও সময় | Easter Sunday 2023 Date & Muhurat

ইস্টার সানডে 2023 তিথি ও সময় ভারতীয় সময় অনুসারে। কবে পড়েছে এবছরের ইস্টার সানডে 2023? ইস্টার সানডের শুভ সময় কখন? জানুন 2023 ইস্টার সানডের মুহূর্ত ও কেনাকাটার শুভ মুহূর্ত এবং তাৎপর্য। এই বছরের কবে ইস্টার সানডে? জেনে নিন কেনাকাটার পাশাপাশি উৎসবের শুভ সময় ও মুহূর্ত। এছাড়াও ইস্টার সানডের তাৎপর্য, পূজা বিধি এবং এই সময় কি কাজ করা উচিৎ ও কি না করা উচিৎ জানুন সবকিছু।

ইস্টার সানডে তারিখ ও সময় | Easter Sunday Date & Muhurat
ইস্টার সানডে 2023 তারিখ ও সময় | Easter Sunday 2023 Date & Muhurat

ইস্টার সানডে 2023 (Easter Sunday 2023): প্রতিটি উৎসব কোন না কোন একটি নির্দিষ্ট তারিখে পড়ে এবং সেই দিন অনুসারে প্রতিবছর সেই উৎসবটি পালন করা হয়। তবে খ্রিস্ট ধর্মে ইস্টার সানডে কিন্তু তেমনটা নয়, এর পিছনের কারণটি হল চতুর্থ শতাব্দীর শাসনকালে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল যে, বসন্তের প্রথম পূর্ণিমার দিনের পরের প্রথম রবিবার ইস্টার উদযাপিত করা হবে।

এই বছর ইস্টার সানডে 2023 কবে?

Easter Sunday Festival
9 April 2023
Sunday

ইস্টার সানডের বাংলায় তারিখ

ইস্টার সানডে উৎসব
৯ এপ্রিল ২০২৩
রবিবার

 

খ্রিস্টানদের কাছে ইস্টার সানডে হল একটি উল্লেখযোগ্য এবং আনন্দদায়ক উৎসব। যেখানে যিশুখ্রিস্টের পুনরুজ্জীবন এর ঘটনা জড়িত রয়েছে। সেই কারণে এই দিনটি তাদের কাছে খুবই আনন্দের।

ইস্টার সানডের ইতিহাস 2023:

এই দিনটি যিশুখ্রিস্টের অলৌকিক ঘটনা গুলির মধ্যে একটি বিশেষ ঘটনা বলে মনে করা হয়। গুড ফ্রাইডে যীশু কে রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে ক্রুশে ঝুলানো হয়েছিল। তৃতীয় দিনে তিনি আবার জীবিত হয়েছিলেন, আর সেই দিনটি ছিল রবিবার।

আর এটাই প্রমাণ করে যে, সত্যকে কখনো ধ্বংস করা যায় না। খ্রিস্টানদের এই উৎসব বড়দিনের মতো পালিত না হলেও, এর গুরুত্ব রয়েছে অনেকখানি। ইস্টার হল যীশুর পুনরুত্থানের উৎসব।

যেখানে লোকেরা শোক পালন করে এবং গুড ফ্রাইডে উদযাপন করে। সেখানে তাদের পুনরুত্থান ইস্টার উদযাপন করা হয়। যেখানে মানুষ গির্জা এবং বাড়িতে মোমবাতি জ্বালায় আর এই দিনে লর্ড সাপারের আয়োজন করা হয়।

যীশু খ্রীষ্ট ছিলেন ঈশ্বর পুত্র, তার অলৌকিক কাজ গুলিতে সকলেই খুবই রেগে গিয়েছিলেন। তারা একসঙ্গে জেরুজালেম পর্বতে যীশু খ্রীষ্ট কে ক্রুশবিদ্ধ করেছিল। বাইবেল অনুসারে জানা যায় যে, এই দিনটি ছিল খুবই দুঃখজনক এবং বেদনাদায়ক। সেদিন যীশুকে চাবুক দিয়ে মারধর করা হয়েছিল।

তার মাথায় কাঁটার মুকুট পরিয়ে দেওয়া হয়েছিল। তার কাছে থেকে তার নিজের ক্রুশ কেড়ে নিয়ে পাহাড়ে নিয়ে যাওয়া হয়, তাদের হাতের নখের আঘাত ছিল যীশুর গায়ে। তারপর ভয়ংকর আঘাত এবং নরকীয় অত্যাচার সহ্য করতে হয়েছিল যীশুকে।

কিন্তু তা সত্বেও যীশুর কপালে একটা রেখা ও ছিল না, তিনি বললেন যে, “হে ঈশ্বর তুমি এদের ক্ষমা করো, কারণ ওরা জানে না যে ওরা কি করছে”। এইভাবে কিন্তু যীশু পৃথিবীকে পাপ মুক্ত করার জন্য নিজেকে উৎসর্গ করেছিলেন।

Leave a Comment