Health Benefits of Coriander Leaves | ধনেপাতায় দূর হবে যেসব রোগ, জেনে রাখা জরুরি

Benefits of Coriander Leaves in Bengali: ধনেপাতা সুস্বাদু একটি হার্বস, যা তরকারিতে পড়া মাত্রই তরকারির স্বাদ সম্পূর্ণ বদলে দিতে পারে। ছোট থেকে বড় সকলেই এই জিনিসটি খেতে ভীষণ পছন্দ করেন। তবে অনেকে আছেন এর গন্ধ একেবারেই নিতে পারেন না। ডালে, তরকারিতে, মুড়ি মাখা, থেকে ফুচকা সবেতেই কিন্তু ধনেপাতা আলাদা মাত্রা যোগ করে।

ধনেপাতা ব্যবহার করা হয় নানা রকম খাবারে। তবে এই ধনেপাতা শুধুমাত্র কি স্বাদে ভরপুর? তা কিন্তু নয়, এই ধনেপাতা শরীরে অনেক উপকারে আসে। অনেক রোগ থেকে দূরে রাখতে পারে আমাদের শরীরকে। এক্ষেত্রে চিকিৎসকরা বলছেন যে, প্রতিদিন ধনেপাতা খাওয়ার ফলে অনেক রোগ দূরে পালিয়ে যেতে পারে।

Health Benefits of Coriander Leaves in Bengali
Health Benefits of Coriander Leaves in Bengali

চলুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক, ধনেপাতা খাওয়ার ফলে কি কি স্বাস্থ্য উপকারিতা পেতে পারি আমরা-

১) কিডনি ভালো রাখে :

যারা ধনেপাতা খেতে ভীষণ পছন্দ করেন তাদের জন্য তো সুখবর। মুখে স্বাদ লেগে থাকার পাশাপাশি কিডনির স্বাস্থ্যটাও বজায় রাখতে পারবেন আপনি। প্রতিদিন যদি ধনে পাতার শরবত খেতে পারেন তাহলে কিডনির স্বাস্থ্য ভালো থাকে।

তাছাড়া অন্য ভাবেও খেতে পারেন আপনি। কিডনির মধ্যে জমে থাকা ক্ষতিকারক লবণ এবং বিষাক্ত পদার্থ মূত্রের মাধ্যমে শরীর থেকে বাইরে বেরিয়ে যায়।

২) কোলেস্টেরলের মাত্রা কমে :

যে কোন খাবারের সাথে ধনেপাতা খাওয়ার ফলে শরীরে খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা দ্রুতগতিতে কমতে থাকে। তার সাথে সাথে ভালো কোলেস্টেরলের মাত্রা বৃদ্ধি পায়।

হজমে তো ভীষণ উপকারী, তাছাড়া যকৃতকে ভালোভাবে কাজ করতে সাহায্য করে। তাছাড়া পেট পরিষ্কার হয়ে যায় ধনেপাতা খাওয়ার ফলে।

৩) ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখে :

যাদের শরীরে ডায়াবেটিস আছে তারা ধনে পাতা খেতে পারেন যে কোন খাবারের সাথে। তার ফলে শরীরে মিষ্টির পরিমাণ নিয়ন্ত্রণে থাকে এবং ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে থাকতে পারে।

৪) ঋতুস্রাবে উপকারী ধনেপাতা :

এই সময় ধনেপাতা খাওয়ার ফলে শরীরের রক্ত সঞ্চালন সঠিক মাত্রায় হতে থাকে। এতে থাকা আয়রন রক্তশূন্যতা দূর করতে সাহায্য করবে।

ধনেপাতায় ফ্যাট, স্যালুবল, ভিটামিন এ এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে। ভিটামিন এ ফুসফুস এবং পাকস্থলীর ক্যান্সার প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে। যা এক কথায় ধনেপাতা খাওয়ার ফলে এসব সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে পারেন আপনি।

৫) বাতের ব্যথা উপশম করে :

এখন তো এই সমস্যা প্রায়ই দেখা যায়। জয়েন্ট গুলোতে এমন ভাবে যন্ত্রণা করবে যে আপনি বসে উঠতে পারবেন না, উঠলে বসতে পারবেন না, সেক্ষেত্রে কিন্তু প্রতিদিন ধনেপাতা খাওয়ার পরে এই সমস্যা অনেকটাই সমাধান করতে পারবেন আপনি।

ধনেপাতায় রয়েছে অ্যান্টি ইনফ্লেমেটরি উপাদান। যা কিনা বাতের ব্যথা সহ  হাড় এবং জয়েন্ট এর মুখে যন্ত্রনা উপশম করতে সাহায্য করে। তার সাথে সাথে স্মৃতিশক্তি প্রখর এবং মস্তিষ্কের নার্ভ সতেজ ও সচল রাখতে সাহায্য করে।

৬) ত্বকের জ্বালাপোড়া কমায় :

ধনেপাতায় থাকে সিনিঅল এসেন্সিয়াল অয়েল এবং লিনোলিক অ্যাসিড। যার মধ্যে অ্যান্টি রিউমেটিক ও অ্যান্টি আর্থ্রাইটিক বৈশিষ্ট্য মজুত রয়েছে। এই উপাদানগুলো ত্বকে জ্বালাপোড়া এবং ফুলে যাওয়া উপশম করতে পারে।

৭) অ্যান্টিসেপটিক হিসেবে কাজ করে :

বিষাক্ত জিনিস রোধ করতে পারে ধনেপাতা। অ্যান্টিসেপটিক, অ্যান্টিফাঙ্গাল এবং অ্যান্টি অক্সিডেন্ট উপাদান থাকার কারণে বিভিন্ন রকম ত্বকের অসুস্থতা সারাতে সাহায্য করে। ত্বক সুস্থ ও সতেজ রাখার জন্য ধনে পাতার গুণ কিন্তু অনেক।

৮) এলার্জি রোধ করে :

বিভিন্ন রকম এলার্জি সমস্যায় ভুগতে পারেন অনেকেই। সেক্ষেত্রে কিন্তু ধনেপাতা খাওয়ার ফলে মুখের স্বাদ বজায় থাকার পাশাপাশি এলার্জি টাকেও রোধ করতে পারবেন আপনি।

ধনেপাতায় অ্যান্টিহিস্টামিন উপাদান থাকার কারণে এলার্জি রোধ করতে পারে। ধনে পাতার মধ্যে থাকা অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল, অ্যান্টি ইনফেকসাস, ডিটক্সিফাইং, ভিটামিন সি এবং আয়রন, গুটি বসন্ত রোগ কে প্রতিকার ও প্রতিরোধ করতে পারে।

৯) যৌন শক্তি বৃদ্ধি করে :

ধনেপাতায় থাকা উত্তেজক পদার্থ যৌন শক্তি বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে। মধু জাতীয় খাবারের সাথে ধনেপাতার মিশ্রন খাওয়ার ফলে মানুষের যৌন শক্তি প্রাকৃতিক ভাবে বৃদ্ধি করতে পারে।

তাছাড়া মুখের দুর্গন্ধ দূর করতে এবং মুখের রুচি বাড়ানোর জন্য ধনেপতা বিশেষভাবে ভূমিকা পালন করে। তাছাড়া শুকনো ধনেও একই ভাবে কাজ করে। মাঝে মাঝে ধনে পাতা চিবিয়ে খাওয়ার মাধ্যমে মুখের দুর্গন্ধ একেবারেই কেটে যাবে।

১০) মাথা ব্যথা সারাতে পারে :

অতিরিক্ত হারে যখন কারোর মাথা ব্যথা করতে শুরু করে তখন ধনেপাতা অথবা ধনে গাছ বেটে সেই রস কপালে লাগাতে পারেন। মাথাব্যথা কমে যাবে অনেকটাই।

ধনেপাতা চিবিয়ে তা দিয়ে দাঁত মাজলে দাঁতের মাড়ি শক্ত হয় তার সাথে সাথে মুখের দুর্গন্ধ তো যাবেই। আপনার যদি দাঁতের গোড়া থেকে রক্ত পড়তে শুরু করে তাহলে এই টোটকা আপনার কাজে আসবে। কেননা ধনেপাতার রস দাঁতের মাড়ি থেকে রক্ত পড়া বন্ধ করে।

আপনার যদি ধনেপাতা ভীষণ পছন্দের হয়ে থাকে তাহলে তো স্বাস্থ্য গুণ সম্পন্ন এই পাতা আপনার ভালো বন্ধু হয়ে যাবে, তাই না। কিচেন গার্ডেন অথবা বাগানে হোক, টবে, ধনেপাতা সারা বছরই করতে পারেন আপনি। রান্নার স্বাদ বাড়ানোর পাশাপাশি আপনি কিন্তু অনেক রোগের উপশম করতে পারবেন এই ধনেপাতা দিয়ে।

শুধুমাত্র মুখোরোচক তরকারি নয়, কত রকম রোগের চিকিৎসা করতে পারে এই ধনেপাতা সেটা তো জানলেন। তাহলে প্রতিদিন পরিমান মত ধনেপাতা খাওয়া যেতেই পারে। কি বলেন আপনারা!

Leave a Comment