uidai.gov.in 2021 Aadhaar Card Download Online – Easy Way

Aadhaar Card Download 2021: আধার কার্ড, বিভিন্ন পরিষেবা পেতে অতি আবশ্যক একটি পরিচয় পত্র। কাজেই এর গুরুত্ব অপরিসীম। আপনার আধার কার্ড থেকে এবার আপনি অনলাইনে যে কোন জায়গা থেকে যেকোনো সময় ডাউনলোড করতে পারবেন। আধার কার্ড অনলাইন ডাউনলোড করবেন কি ভাবে জেনে নিন

এমনি সুবিধা এনেছে ইউনিক আইডেন্টিফিকেশন অথরিটি অফ ইন্ডিয়া। https://eaadhaar.uidai.gov.in/ এই লিংকের মাধ্যমে ১২ ডিজিটের আধার কার্ড ডাউনলোড করতে পারবেন কার্ড হোল্ডাররা। এমনই ব্যবস্থার কথা অফিশিয়াল টুইটার হ্যান্ডেলে জানিয়েছে ইউ আই ডি এ আই (UIDAI)।

Aadhaar Card Download Online at uidai.gov.in
Aadhaar Card Download Online at uidai.gov.in

আধার কার্ড ডাউনলোডের জন্য লিংক শেয়ার করে ইউআইডিএআই টুইটারে লিখেছে:-

https://eaadhaar.uidai.gov.in/ এখান থেকে যেকোন সময় যেকোন জায়গা থেকে আধার কার্ড ডাউনলোড করতে পারবেন আপনি। রেগুলার আধার ডাউনলোড করতে পারবেন।

যাতে সম্পূর্ণ আধার নম্বর বা মাস্কড আধাার, যে আধার কার্ডে শেষের চারটি সংখ্যা দেখা যায়। ইউ আই ডি এ আই এর ডাইরেক্ট লিংকে গেলে আপনি মাস্কড আধার ডাউনলোড করতে পারবেন। যাতে আধার কার্ডের প্রথম আটটি নম্বর লুকানো থাকবে।

অনলাইনে আধার কার্ড ডাউনলোড পদ্ধতি:

অনলাইনে আধার কার্ড ডাউনলোড করার জন্য ইউ আই ডি এ আই এর ডাইরেক্ট লিংক:- eaadhaar.uidai.gov.in এখানে যেতে হবে।

ওটিপি এর মাধ্যমে লগইন করুন তারপর কয়েকটি সহজ ভাবে এগোতে হবে আপনাকে। সেই ধাপ গুলি হল:

Aadhaar Card Download
Aadhaar Card Download

# Step 1) প্রথমে আপনি UIDAI এর ডাইরেক্ট লিংক eaadhaar.uidai.gov.in এখানে লগইন করুন।

# Step 2) তারপর ১২ সংখ্যার আধার নম্বর দিন।

Aadhaar Card Download Online
Aadhaar Card Download Online

# Step 3) যদি আপনার মাস্কড আধার কার্ডের প্রয়োজন হয়, তাহলে I want a masked Aadhaar এই অপশনের বামদিকের বক্সে টিক করুন।

# Step 4) তারপর সিকিউরিটি কোড অথবা ক্যাপচা কোড পুরন করুন।

# Step 5) সেন্ড ও টি পি তে ক্লিক করুন।

# Step 6) আপনার আধার রেজিস্টারড মোবাইল নাম্বার একটি ওটিপি আসবে।

# Step 7) সেই ওটিপি পূরণ করুন।

# Step8 ) ওটিপি দেওয়ার পর আপনার কম্পিউটারের মনিটরে অথবা স্মার্ট ফোনের স্ক্রিনে আধার কার্ডের যাবতীয় তথ্য এবং আধার কার্ড ডাউনলোডের অপশন পাবেন।

# Step 9) তারপর Download অপশন এ ক্লিক করুন এবং ভবিষ্যতের ব্যবহারের জন্য Save করুন।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, আরও তিন মাস বাড়ানো হয়েছে আধার কার্ড সংযোগের সময়সীমা।

আরেকটু ভালোভাবে আধার কার্ড ডাউনলোড সম্পর্কে জানা যাক:

আধার কার্ড সঙ্গে নিয়ে চলার ঝুঁকি রয়েছে তার চেয়ে e-aadhaar কার্ড ডাউনলোড করে দেওয়ার সুবিধা আছে। আজকাল রোজকার জীবনের সঙ্গে একটি বৈধ পরিচয় পত্র সঙ্গে রাখা খুবই দরকার।

কিন্তু আধার কার্ড অথবা ভোটার কার্ড যাই বলুন না কেন, সঙ্গে নিয়ে চলার একটা সমস্যা হলো, কোথাও হারিয়ে যেতে পারে।

প্রয়োজনীয় নথি হারিয়ে যাওয়ার নানান সমস্যা থাকে। তার চেয়ে e-aadhaar card Download করে ফোনে কিংবা মোবাইলে রেখে দেওয়ার সুবিধা অনেক।

অনেকেই আবার আধার কার্ডের খুঁটিনাটি বদল করার জন্য আবেদন জানিয়েছেন, অথচ হার্ডকপি হাতে পাননি। তারাও নতুন আধার কার্ড ডাউনলোড করে রাখতে পারেন নিজেদের মোবাইলে।

ডাউনলোড করার পদ্ধতি:

#১) প্রথমত আপনাকে ইউআইডিএআই এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে যেতে হবে। www.uidai.gov.in

#২) যে পেজটি ওপেন হবে সেখানে My Aadhar এই বাটনে ক্লিক করুন।

#৩) তারপর Download Aadhaar Card অপশনটিতে ক্লিক করুন একনলেজমেন্ট স্লিপের উল্লেখিত এনরলমেন্ট আইডি অথবা ১২ ডিজিটের আধার নম্বর দিতে হবে অথবা ১৬ ডিজিটের ভার্চুয়াল আইডি এবং ক্যাপচা পুরন করতে হবে।

আপনি যদি আধার কার্ডের জন্য আবেদন করে না থাকেন তাহলে খুব সহজেই আপনি আপনার আধার কার্ডের জন্য আবেদন জানাতে পারেন।

আধার কার্ডের জন্য  আবেদন পদ্ধতি:

#১) আধার কার্ড এর আবেদনের (Apply for Aadhaar Card) জন্য ভারতের যেকোনো জায়গায় অনুমোদিত যেকোনো আধার তালিকাভুক্ত কেন্দ্রে আপনার পরিচয় পত্র ও ঠিকানার প্রমাণপত্র নিয়ে যান।

#২) আবার আপনি যেখানে থাকেন সেখানে তার নাম যদি অনলাইন এ্যাপয়েন্টমেন্ট অ্যাপ্লিকেশন ওয়েবসাইটের না থাকে, তাহলে আপনি আগে থেকে সময় না জানিয়েই কাছের আধার কার্ড কেন্দ্রে চলে যেতে পারেন।

#৩) সেখান থেকে বিনামূল্যে আধার কার্ড আবেদনের ফর্ম পাবেন। অথবা ওয়েবসাইট থেকেও আপনি ডাউনলোড (Aadhaar Card Download) করতে পারবেন।

#৪) তবে সময় বাঁচানোর জন্য অনলাইনে ফর্ম ডাউনলোড করে তা ভর্তি করে একেবারেই আধার কার্ড কেন্দ্রে চলে যাওয়া ভালো, তাতে সময়ও বাঁচবে।

#৫) নাম নথিভুক্ত করার সময় আপনার ছবি, আঙ্গুলের ছাপ, এবং আইরিশ-স্ক্যান জমা নেওয়া হবে।

#৬) তারপর নাম নথিভুক্ত করার আগেই যে নথি আপনি দিচ্ছেেন, তা ভালো করে খুঁটিয়ে খুঁটিয়ে দেখে নিন। যদি কোন কিছু সঠিক করার প্রয়োজন থাকে তখনই করে নিন।

#৭) তারপর তথ্য জমা হয়ে গেলে তখনই আপনাকে একনলেজমেন্ট বা স্বীকৃতি স্লিপ (Acknowledgement Slip) দেওয়া হবে। এই স্লিপটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভাবে, আপনি যতক্ষণ না আধার কার্ড পাচ্ছেন ততক্ষণ পর্যন্ত যত্নসহকারে রাখতে হবে আপনাকে। এমনকি আধার কার্ড পাওয়ার পর সেটি হারিয়ে গেলেও এই স্লিপটি তখন কাজে লাগবে।

#৮) আপনাকে আধার কার্ড দেওয়ার আগে কেন্দ্রীয় স্তরের সব তথ্য খতিয়ে দেখা হবে।

#৯) ভেরিফিকেশনের সমস্যা না থাকলে এস এম এস বা ই-মেইলের মাধ্যমে আপনাকে জানিয়ে দেয়া হবে। এর কয়েকদিন পরেই আধার কার্ড ডাক অফিসের মাধ্যমে পাঠিয়ে দেয়া হবে আপনার দেওয়া ঠিকানায়।

আধার কার্ডের আবেদনের জন্য আবেদনকারীর যোগ্যতা:

#১) যে কোন ভারতীয় নাগরিক, ভারতীয় হোক অথবা বিদেশি যারা ভারতে এখন বসবাস করছেন তারা আধার কার্ডের জন্য আবেদন জানাতে পারবেন।

#২) যে কোন বয়সের যে কোন ব্যাক্তি আধার কার্ডের জন্য আবেদন জানাতে পারবেন।

#৩) আবার তিন বছর বয়সের কম শিশুদের ক্ষেত্রে বায়োমেট্রিক তথ্যের কোন প্রয়োজন নেই এবং এক্ষেত্রে আধার মা-বাবা বা অভিভাবকের সঙ্গে সংযুক্ত করে দেওয়া হবে। ওই শিশুর ৫ বছর হলে তার বায়োমেট্রিক তথ্য নেওয়া হবে।

#৪) ৫ থেকে ১৫ বছর বয়সের ক্ষেত্রে নাম নথিভুক্ত করতে গেলে পাঁচ বছর বয়সে একবার বায়োমেট্রিক তথ্য নেওয়া হবে, আবার তার ১৫ বছর বয়স হলে আবার একবার বায়োমেট্রিক তথ্য নেয়া হবে।

আধার কার্ডের আবেদনের জন্য জরুরী ডকুমেন্টস:

#১) পরিচয় পত্র হিসেবে ভোটার কার্ড, প্যান কার্ড, ড্রাইভিং লাইসেন্স, পাসপোর্ট ইত্যাদি লাগবে।

#২) ঠিকানার প্রমান পত্রের জন্য ব্যাংকের পাসবুক, ভোটার কার্ড বা পাসপোর্ট লাগবে।

#৩) জন্মতারিখ প্রমাণের জন্য হাইস্কুলের মার্কশিট, প্যান কার্ড, লাগতে পারে। সাধারণত এই তিনটে তথ্য থাকলেই আবেদন করা যাবে। তার সাথে একটি চালু মোবাইল নাম্বার লাগবে।

#৪) তাছাড়া ঠিকানার প্রমাণপত্র হিসেবে যেকোনো একটি লাগতে পারে। যেমন শেষ ৩ মাসের জল, বিদ্যুুৎ, টেলিফোন বিল, অথবা গ্যাসের বিল।

এই ক’টি সহজ পদক্ষেপ ফলো করলেই আপনি কিন্তু আপনার মোবাইলে আধার কার্ড ডাউনলোড এবং আধার সেন্টার এ গিয়ে আধার কার্ডের জন্য আবেদন জানাতে পারবেন।

Official Website Click Here
Home Click Here

Leave a Comment