11 টি বিষয় মনে রাখবেন অ্যাপার্টমেন্ট কেনার আগে – Apartment Buying Guide

4.7
(3)

11 Things to Know Before Buying an Apartment: অ্যাপার্টমেন্ট কেনার আগে এই ১১ টি বিষয় মনে রেখে অ্যাপার্টমেন্ট কিনে ঝামেলামুক্ত থাকা যায়। নাহলে হতে থাকে প্রচুর ঝামেলা যা আপনার মাথা খারাপ করে দেবে।

কলকাতা শহরের জীবনে অনেকদিন ধরেই অ্যাাপার্টমেন্টের চাহিদা বেড়েছে। মানুষ এখন আর জমি কিনে বাড়ি করার ঝামেলায় যেতে চায় না। মানুষ পছন্দের অ্যাাপার্টমেন্ট কিনে কয়েকদিনের মাঝেই বাড়িতে উঠার সুযোগ কাজে লাগাচ্ছে ।

এরই প্রেক্ষিতে আমাদের চারপাশের অনেকেই অ্যাপার্টমেন্ট কিনেছেন। আবার অনেকেই অ্যাপার্টমেন্ট কেনার কথা ভাবছেন। কিন্তু আশা করে অ্যাপার্টমেন্ট কিনে অনেকেই বিভিন্ন কারনে ঝামেলায় আছেন।

তাই নতুন যারা অ্যাপার্টমেন্ট কেনার কথা ভাবছেন, তাদের অ্যাপার্টমেন্ট কেনার আগেই অনেক কিছু বিবেচনা করে কেনার আছে। বুঝে শুনে না কিনলে অনেক কষ্টের টাকায় কেনা অ্যাপার্টমেন্টে ভালো ভাবে থাকা যায় না।

এজন্য আমাদের সবারই কলকাতায় অ্যাপার্টমেন্ট কেনার আগে কিছু বিষয় জানা উচিত। এতে করে আপনি নিজে বা পরিচিত অন্য কেউ অ্যাপার্টমেন্ট কিনে হয়রানির স্বীকার হবার সম্ভাবনা কমে যাবে।

11 Things to Keep in Mind Before Buying an Apartment
11 Things to Keep in Mind Before Buying an Apartment

আমাদের সাইটে নিয়মিতভাবে আপনাদের সাথে জমি, ফ্লাট সংক্রান্ত নানা বিষয় নিয়ে আলোচনা করে থাকি । আজ আমরা আলোচনা করবো, কলকাতায় অ্যাপার্টমেন্ট কেনার আগে কোন ১১ টি বিষয় মনে রাখতে হবে। তাহলে আমাদের কেউ আর অ্যাপার্টমেন্ট কিনে হয়রানীর স্বীকার হতে হবে না।

এখানে আজ ১১ টি গুরুত্বপূর্ন বিষয় নিয়ে আলোচন করার চেষ্টা করা হবে। আসুন দেখি কোন ১১ টি বিষয় মনে রাখলে অ্যাপার্টমেন্ট কিনে ঝামেলামুক্ত থাকা যায়।

1. গুরুত্বপূর্ন কাগজপত্র ভালো ভাবে যাচাই  করা।

অ্যাপার্টমেন্ট কেনার আগেই সকল গুরুত্বপূর্ন কাগজপত্র যাচাই করতে হবে। বিশেষ করে জমির দলিল, ট্যাক্স জমা দেয়ার রশিদ, কর্তৃপক্ষের অনুমতিপত্র ইত্যাদি যাবতীয় সকল কাগজপত্র দেখে নিতে হবে।

সকল কাগজপত্র ভালো করে দেখে কোন সমস্যা মনে হলে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে তারপর ঐ অ্যাপার্টমেন্ট কেনার সিদ্বান্ত নিতে হবে। অন্যথায় আপনি অ্যাপার্টমেন্ট কেনার পরও মালিকানা সংক্রান্ত জটিলতায় পড়তে পারেন।

2. আপনার অ্যাপার্টমেন্টের কার্পেট এরিয়া কতটুকু ?

আপনার অ্যাপার্টমেন্টের কার্পেট এরিয়া কতটুকু তা জেনে নেয়া খুব গুরুত্বপূর্ন। অনেক সময় অ্যাপার্টমেন্ট সাইজে অনেক বড় হলেও কার্পেট এরিয়া ছোট হওয়ায় তা সঠিকভাবে ব্যবহার করা যায় না।

অনেক সময় সিড়ি, লিফট ও অন্যান্য আনুসঙ্গিক বিষয়ে অ্যাপার্টমেন্টের এরিয়া কমে যায় তখন অ্যাপার্টমেন্টের মালিক ক্ষতিগ্রস্থ হয়।

3. ব্যাংকের সাথে ভালোভাবে বোঝাপড়া করুন

অ্যাপার্মেন্ট কেনার সময় আমরা অনেক সময় ব্যাংক লোন করে থাকি। এই ব্যাংক লোন নেয়ার সময় সকল শর্ত ভালো ভাবে দেখে নিতে হবে। আপনি দেখে নিতে হবে যে ঋনের কোন শর্ত আপনার বিপক্ষে যায় কিনা।

ঋনের সুদের হার কত? ঋন পরিশোধের সময় কত মাস ? ঋন পরিশোধের গ্রেস পিরিয়ড আছে কিনা? ইত্যাদি সকল শর্ত ভালোভাবে দেখে আপনাকে সিদ্ধান্ত নিতে হবে আপনি ব্যাংক লোন নেবেন কিনা।

4. অ্যাপার্টমেন্ট হস্তান্তর তারিখ এবং তারিখ পিছিয়ে গেলে তার জন্য শর্ত কি?

রিয়েল স্টেট কোম্পানীগুলি অ্যাপনাকে অ্যাপার্টমেন্ট হস্তান্তরের সম্ভব্য তারিখ দেবে। ঐ তারিখে অ্যাপার্টমেন্ট হস্তান্তর করা সম্ভব না হলে কি জরিমানা হবে তা চুক্তির শর্তে উল্লেখ থাকতে হবে।

তা নাহলে, আপনার ব্যাংকের কিস্তি পরিশোধ শুরু হয়ে গেলে আপনি ঝামেলায় পড়ে যাবেন। তাই অ্যাপার্টমেন্ট হস্তান্তরের তারিখ ও এই তারিখে সম্ভব না হলে কি করা যাবে তা শর্তে উল্লেখ থাকতে হবে।

5. টাকা পরিশোধের শর্ত কি?

আপনি যদি সঠিক সময়ে টাকা পরিশোধ করতে না পারেন, তাহলে কি জরিমানা হবে তা চুক্তিতে উল্লেখ থাকতে হবে। তা নাহলে অনেক সময় সঠিক সময়ে টাকা জমা না হলে নানা ঝামেলা হতে পারে।

6. অন্য অ্যাপার্টমেন্ট বিক্রেতাগন কি অফার করছে?

আপনি অ্যাপার্টমেন্ট কেনার আগেই লক্ষ্য করবেন যে , একই এলাকায় অন্য অ্যাপার্টমেন্ট বিক্রেতাগন কি সুবিধা দিচ্ছে। এতে করে আপনি যাচাই করার সুযোগ পাবেন।

7. অ্যাপার্টমেন্টের অবস্থান কোথায়?

আপনার পছন্দের অ্যাপার্টমেন্ট বর্তমান কোন পজিশনে আছে এবং ভবিষ্যতে এই অবস্থান কোথায় গিয়ে দাঁড়াবে তা এখনই ভেবে নিতে হবে।

8. স্কুল, হাসপাতাল, মার্কেট কোথায় অবস্থিত?

অ্যাপার্টমেন্ট কেনার আগে দেখে নিতে হবে, এই এলাকা থেকে স্কুল, হাসপাতাল এসব কত দূরে অবস্থিত। আপনি যখন বসবাস করবেন তখন এসব বিষয় অনেক গুরুত্বপূর্ন।

9. ঐ এলাকায় শব্দের মাত্রা কতটা ?

আপনি কোন মিল কারখানার পাশেই অ্যাপার্টমেন্ট কিনলে সেখানকার শব্দে আপনি ঘুমাতে পারবেন না। তাই অ্যাপার্টমেন্ট কেনার আগেই দেখে নিতে হবে যে এখানকার আশেপাশে শব্দের মাত্রা কতটুকু।

10. প্রজেক্টের টাইমলাইন দেখতে হবে।

আপনি যে প্রজেক্টের অ্যাপার্টমেন্ট কিনবেন, তা তার টাইম লাইন মিলিয়ে নেবেন। যদি দেখেন টাইমলাইন থেকে ঐ প্রজেক্ট অনেকটা পিছিয়ে আছে, তাহলে বুঝে নেবেন, এখানে কোন ঝামেলা আছে। তাই অ্যাপার্টমেন্ট কিনলেও বুঝেশূনে কিনবেন।

11. প্রজেক্ট শেষ হবে কবে?

আপনি অ্যাপার্টমেন্ট কেনার সময় ওই প্রজেক্ট সম্পন্ন হবার তারিখ দেখে চিন্তা ভাবনা করে কিনবেন। যদি কোন প্রজেক্ট আরো ৫-৭ বছর পরে সম্পন্ন হয়, তাহলে ওই প্রজেক্টে বিনিয়োগ করতে চিন্তাভাবনা করে বিনিয়োগ করতে হবে।

এভাবে আজ আমরা কলকাতায় অ্যাপার্টমেন্ট কেনার সময় কি কি বিষয় মনে রাখতে হবে তার ১১ টি পয়েন্ট দেখলাম, আলোচনা করলাম। আগামীতে আরো কিছু বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো, তাই আমাদের পেজে নিয়মিত চোখ রাখুন। এই লেখাটি অনেকের কাজে লাগতে পারে তাই লেখাটি যতটুকু সম্ভব শেয়ার করুন, যাতে করে অনেকে এই লেখা থেকে শিক্ষা নিয়ে অ্যাপার্টমেন্ট কিন্তে পারে।

আপনাদের এই তথ্য কেমন লেগেছে?

এই পোস্টে মতামত দিতে একটি স্টারে ক্লিক করুন!

Average rating 4.7 / 5. Vote count: 3

No votes so far! Be the first to rate this post.

যেহেতু আপনি এই পোস্টটি দরকারী বলে মনে করেছেন ...

সোশ্যাল মিডিয়াতে আমাদের অনুসরণ করুন!

আমরা দুঃখিত যে এই পোস্টটি আপনার জন্য দরকারী ছিল না!

চলুন আমাদের এই পোস্ট উন্নত করা যাক!

আমাদের বলুন কিভাবে আমরা এই পোস্ট উন্নত করতে পারি?

Leave a Comment